ব্রিটিশ পার্লামেন্টে রোবট

রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮

শিল্পখাত তো বটেই, এর বাইরে হাসপাতালে খুব সেনসেটিভ কাজ, কেয়ার হোমগুলো এবং বয়স্কদের পরিচর্চায়

রোবটের ব্যবহার বাড়বে। পরে ওই দুটি বিষয়ের বাইরেও অনেক ধরনের আলোচনা হয় পিপার ও পার্লামেন্টের সদস্যদের মধ্যে। ওই আলোচনায় নৈতিকতা ও সামাজিক ন্যায়বিচার নিয়ে কথা হয়, পিপার সে সব কথা শোনে এবং কয়েকবার

মাথাও নাড়ে। পিপারের বুকে দেয়া আছে একটি ট্যাবলেট কম্পিউটার। পিপারকে পার্লামেন্টে ডাকার ফলে অনেকেই

মজা-মশকরা করতেও ছাড়েননি।

পিপার নামের একটি রোবটকে প্রথমবারের মতো পার্লামেন্টে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার তাকে আমন্ত্রণ করে নিয়ে যায় দেশটির পার্লামেন্টের শিক্ষাবিষয়ক কমিটি।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) এবং

চতুর্থ শিল্পবিপ্লব নিয়ে কিছু প্রশ্ন করার জন্যই শিক্ষাবিষয়ক কমিটি পিপারকে আমন্ত্রণ জানায়।

ওই কমিটির সদস্যরা নারীর মতো করে তৈরি পিপারের কাছে জানতে চান, এআইওর ব্যবহার বাড়ার

ফলে মানুষের কাজের জায়গা কতটুকু থাকবে?

পিপার তার উত্তরে জানায়, রোবট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখলেও মূল বিষয় নির্ভর করবে মানুষের ওপর। তাই শঙ্কিত হবার যথেষ্ট কারণ নেই।

রোবটকে মানুষই চালনো করবে। এবিসি নিউজ জানাচ্ছে, পিপার পার্লামেন্টে ঢুকে স্পিকারকে সম্বোধন করে শুভ সকাল জানান এবং তাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য সবাইকে ধন্যবাদও দেয়। পরে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব নিয়ে কথা বলে পিপার। পিপার জানায়, শিল্পখাত তো বটেই, এর বাইরে হাসপাতালে খুব সেনসেটিভ কাজ, কেয়ার হোমগুলো এবং বয়স্কদের পরিচর্চায় রোবটের ব্যবহার বাড়বে।

পরে ওই দুটি বিষয়ের বাইরেও অনেক ধরনের আলোচনা হয় পিপার ও পার্লামেন্টের সদস্যদের মধ্যে। ওই আলোচনায় নৈতিকতা ও সামাজিক ন্যায়বিচার নিয়ে কথা হয়, পিপার সে সব কথা শোনে এবং কয়েকবার মাথাও নাড়ে। পিপারের বুকে দেয়া আছে একটি ট্যাবলেট কম্পিউটার। পিপারকে পার্লামেন্টে ডাকার ফলে অনেকেই মজা-মশকরা করতেও ছাড়েননি।

টুইটার ও অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের সঙ্গে মেলানোর চেষ্টা করেছেন। অনেকেই আবার নাম দিয়েছেন ‘মেবট’। রোবট বিশ্বের প্রথম ‘সাংস্কৃতিকভাবে সচেতন’ রোবট তৈরির জন্য জাপান এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নের একটি আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রকল্পের অংশ হিসেবে পিপার তৈরি করেছে মিডলসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়। :: ডটনেট ডেস্ক

ডট নেট'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj