জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের প্রতি দৃষ্টি দিন

শুক্রবার, ১২ অক্টোবর ২০১৮

প্রতি বছর দেশের হাজারো শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য এক মহাযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। কিন্তু এক ঘণ্টার পরীক্ষায় করো ভাগ্যে তা জুটে আর কারো হয় ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। পরবর্তী সময় তারা বেছে নেয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। অনেক ভালো ভালো ছাত্রছাত্রী এখানে স্বপ্ন নিয়ে আত্মনিয়োগ করে। দেশের সবচেয়ে বেশি ছাত্রছাত্রী এখানে ভর্তি হয়। কিন্তু তারা যে আশা-আকাক্সক্ষা নিয়ে এখানে আসে শেষ পর্যন্ত তা খুব কমসংখ্যক ছাত্রই পারে লক্ষ্য পূরণ করতে। এর পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। যেমন- ১. ক্লাসরুমের সংকট ২. শিক্ষকের অভাব ৩. স্বতন্ত্র পরীক্ষার হল না থাকা ৪. গবেষণা যন্ত্রের অভাব ৫. শিক্ষকদের আমলাতান্ত্রিক মনোভাব ইত্যাদি। দেখা যায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিদিন নিয়মিত ক্লাস হয়। ক্লাসের পরে নিয়মিত গ্রুপ স্টাডি হয়। প্রতিদিন যাওয়া-আসায় তাদের মধ্যে যেমন বন্ধুসুলভ সম্পর্ক গড়ে ওঠে, তেমনি শিক্ষকদের সঙ্গেও তাদের একটা গভীর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে তাদের জ্ঞান আরো সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে। সহপাঠীদের সঙ্গে বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি নিয়ে আলোচনা করা। ফলে তাদের মন হবে প্রফুল্ল। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী বিভিন্ন প্রফেশনাল জীবনে জড়িয়ে পড়ে। তারা বিভিন্ন প্রাইভেট/পার্ট টাইম চাকরিতে জড়িয়ে পড়ে। ফলে তাদের ছাত্রত্বের মনমানসিকতা হারিয়ে যায়। তাই এই জাতীয় সংকট ও সমস্যা দূর করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। তাহলেই আমরা একটি আদর্শ ও সুশিক্ষিত জাতি গড়ে তুলতে পারব।

মো. বেলাল হোসেন

শিক্ষার্থী, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা কলেজ।

চিঠিপত্র'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj