খাজায় রক্ষা অস্ট্রেলিয়ার

শুক্রবার, ১২ অক্টোবর ২০১৮

খেলা ডেস্ক : দুবাই টেস্টে গতকাল শেষ বিকেলে প্রিয় দলের জয়ের জন্য সৃষ্টিকর্তার নিকট দুহাত তুলে প্রার্থনা করেন পাকিস্তানের সমর্থকরা! কিন্তু তাতেও কোনো সুফল আসেনি। শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ওসমান খাজা এবং অজি অধিনায়ক টিম পাইনের ব্যাটিংয়ের ওপর ভর করে ম্যাচটি ড্র করে অস্ট্রেলিয়া। পাকিস্তান তাদের প্রথম ইনিংসে ৪৮২ রান এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ১৮১ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে ২০২ রান এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৮ উইকেটে ৩৬২ রান সংগ্রহ করে।

মূলত ড্রয়ের উদ্দেশ্য নিয়েই ম্যাচের পঞ্চম এবং শেষ দিনে গতকাল ব্যাটিং করতে নামে অস্ট্রেলিয়া। ব্যাট হাতে এদিন ঠাণ্ডা মাথায় খেলতে থাকেন আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান ওসমান খাজা এবং ট্রেভিস হেড। চতুর্থ উইকেট পার্টনারশিপে দুজন মিলে করেন ১৩২ রান। হেড তুলে নেন ক্যারিয়ারের ১১তম হাফসেঞ্চুরি। এরপর বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকা সম্ভব হয়নি। মোহাম্মদ হাফিজের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। পঞ্চম উইকেটে ব্যাট করতে এসে ভালো করতে পারেননি মার্নাস লেবুসচেঞ্জ। আউট হওয়ার পূর্বে করেন মাত্র ১২ রান। তবে ষষ্ঠ উইকেটে ওসমান খাজা এবং টিম পাইনের ব্যাটিংয়ে ড্রয়ের দিকেই এগোচ্ছিল ম্যাচ। এ সময় দুজন মিলে ৭৯ রানের জুটি করেন। তবে পাকিস্তানি স্পিনার ইয়াসির শাহের বলে খাজা এলবিডব্লিউ হলে ম্যাচের মোড় ঘুরে যায়। এরপর অজি ব্যাটসম্যানদের কেউই যেন ক্রিজে দাঁড়াতে পারছিলেন না। মাত্র ১ রান করে ইয়াসির শাহের বলে ক্যাচ তুলে দেন মিচেল স্ট্রাক। রানের খাতা না খুলতেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন পিটার শিডল। ঘাতক আবারো ইয়াসির শাহ। তবে নাথান লিয়নকে সঙ্গে রেখে ড্রয়ের প্রচেষ্টা চালিয়ে যান অধিনায়ক টিম পাইনে। আর সফলও হন। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৪১ রান করেন ওসমান খাজা। টিম পাইনে ৬১ রান করে অপরাজিত থাকেন। পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন ইয়াসির শাহ। মোহাম্মদ আব্বাস নেন ৩টি উইকেট। এর আগে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি পাকিস্তানের। ৩৮ রানেই প্রথম দুই উইকেট হারায় তারা। দলীয় খাতায় ৭ রান যোগ হতে আরো একটি উইকেটের পতন ঘটে। চতুর্থ উইকেটে ইমাম-উল-হক এবং হ্যারিস সোহেল মিলে করেন ৬৫ রান। আর ষষ্ঠ উইকেটে বাবর আজমের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়েন আসাদ শফিক। ৬ উইকেটে দলীয় স্কোর ১৮১ রান হলে ইনিংস ঘোষণা করে সরফরাজরা। সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন ওপেনার ইমাম-উল-হক। আর আসাদ শফিক করেন ৪১ রান। অজি পেসার জন হোল্যান্ড সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন। ২টি উইকেট নেন নাথান লিয়ন।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj