প্রশ্নফাঁস চক্র আটক : ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রথম মামলা

শুক্রবার, ১২ অক্টোবর ২০১৮

কাগজ প্রতিবেদক : মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁসকারী চক্রের সক্রিয় ৫ সদস্যকে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হলেন- কাউসার গাজী, সোহেল মিয়া, তারিকুল ইসলাম শোভন, রুবাইয়াত তানভির ওরফে আদিত্য ও মাসুদুর রহমান ইমন। ডিএমপির পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে হওয়া প্রথম মামলার আসামি এই পাঁচজন। গতকাল বৃহস্পতিবার পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন অর্গানাইজড ক্রাইমের বিশেষ পুলিশ সুপার মোল?্যা নজরুল ইসলাম। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার রায়হান উদ্দীন খান, সহকারী পুলিশ সুপার শারমিন জাহান প্রমুখ।

সিআইডির এ কর্মকর্তা বলেন, প্রশ্ন ফাঁসকারী প্রতারণা চক্রের মাস্টারমাইন্ড (মূল পরিকল্পনাকারী) কাউসার গাজী। তাকে এ কাজে সহযোগিতা করত তার বন্ধু সোহেল মিয়া। তিনি অন্যের জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভুয়া বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলার মাধ্যমে টাকা লেনদেন করতেন। জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা সিআইডিকে জানান, তারা দীর্ঘদিন এ প্রশ্নপত্র ফাঁসের কাজ করে আসছেন। কিন্তু এবার প্রশাসনের তৎপরতায় প্রশ্নপত্র ফাঁস করতে পারেননি। কিন্তু ভুয়া প্রশ্নপত্র তৈরি করে ১০টি ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে মেডিকেলের প্রশ্ন পাওয়ার প্রচারণা চালান। তারা বিভিন্ন সাজেশন বই, বিগত বছরগুলোর প্রশ্নপত্র একত্রে করে একটি ভুয়া প্রশ্নপত্র তৈরি করেন। তিনি আরো বলেন, তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে যে মামলা হয়েছে সেটি তদন্তাধীন আছে। আমরা আশা করি, এ প্রতারক চক্রের অন্য সদস্যদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে পারব।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj