স্ত্রীর মৃত্যুতে প্যারোলে মুক্তি পেলেন নওয়াজ

বৃহস্পতিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কাগজ ডেস্ক : স্ত্রী কুলসুম নওয়াজের জানাজায় অংশ নিতে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা জেল থেকে প্যারোলে মুক্তি পেয়েছেন পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। পাশাপাশি নওয়াজের মেয়ে মরিয়ম ও জামাতা ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ সফদারকেও প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয়েছে। ১২ ঘণ্টার জন্য তাদের প্যারোল দেয়া হলেও নওয়াজ-পতœী কুলসুম নওয়াজকে সমাহিত করা পর্যন্ত এ সময়সীমা বাড়ানো হতে পারে। খবর ডনের।

গত বছরের আগস্টে কুলসুম নওয়াজের গলায় ক্যান্সার ধরা পড়ে। এর জন্য লন্ডনে চিকিৎসারত অবস্থাতেই গত ১৫ জুন হৃদরোগে আক্রান্ত হন কুলসুম। তাকে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং তখন থেকেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। পারিবারিক সূত্রকে উদ্ধৃত করে ডন জানায়, গত রবিবার রাত থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। গত মঙ্গলবার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন কুলসুম। লন্ডনে কেনা বিলাসবহুল চারটি ফ্ল্যাটের মূল্য পরিশোধে দেয়া অর্থের উৎস দেখাতে ব্যর্থ হওয়ার দায়ে গত জুলাই থেকে ১০ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করছেন নওয়াজ। একই অভিযোগে মেয়ে মরিয়মকে দেয়া হয় ৭ বছরের কারাদণ্ড। আর তার স্বামী সফদার ভোগ করছেন এক বছরের কারাদণ্ড। কুলসুম নওয়াজের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদারকে ৫ দিনের জন্য প্যারোলে মুক্তি দিতে আবেদন জানিয়েছিলেন নওয়াজের ভাই ও পিএমএল-সভাপতি শাহবাজ শরিফ। তবে শেষ পর্যন্ত তাদের ১২ ঘণ্টার জন্য প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয়। মুক্তির পর তাদের পুলিশি পাহারায় বিমানে নেয়া হয় লাহোরে। আগামীকাল শুক্রবার নওয়াজ পরিবারের জাতি উমরা বাসভবনস্থ পারিবারিক কবরস্থানে কুলসুমকে সমাহিত করার কথা।

সরকারি সূত্রকে উদ্ধৃত করে ডন জানিয়েছে, কুলসুমকে সমাহিত করা পর্যন্ত নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদারের প্যারোলের সময়সীমা বাড়ানো হতে পারে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শাহবাজ শরিফ ও তার ছেলে হামজা বৃহস্পতিবার লন্ডনে রিজেন্ট পার্ক মসজিদে কুলসুমের জানাজায় অংশ নেবেন। এরপর মৃতদেহ লাহোরে আনা হবে। তবে কুলসুমের দুই ছেলে লন্ডনে থেকে যাবেন।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj