৮৮ প্রতিষ্ঠানে অনাদায়ী ঋণ ১ লাখ ৩১ হাজার কোটি টাকা : শীর্ষ ১০০ ঋণ খেলাপির তালিকা দিলেন অর্থমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কাগজ প্রতিবেদক : জাতীয় সংসদে দেশের শীর্ষ ১০০ ঋণখেলাপির তথ্য প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি জানিয়েছেন, দেশে বর্তমানে ঋণখেলাপির সংখ্যা ২ লাখ ৩০ হাজার ৬৫৮ জন/প্রতিষ্ঠান। এ ঋণখেলাপিদের কাছে ৮৮টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অনাদায়ী অর্থের পরিমাণ ১ লাখ ৩১ হাজার ৬৬৬ কোটি ১৬ লাখ টাকা। গতকাল বুধবার বেগম পিনু খানের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি সংসদকে এসব তথ্য জানান।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবি (ঋণ তথ্য ব্যুরো) ডাটাবেজে সংরক্ষিত চলতি বছরের জুন মাস পর্যন্ত তথ্যানুযায়ী সংসদে দেয়া অর্থমন্ত্রীর তালিকা অনুযায়ী শীর্ষ ১০০ ঋণখেলাপির মধ্যে রয়েছে- মোহাম্মদ ইলিয়াস ব্রাদার্স প্রাইভেট লিমিটেড, কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেম লি., ম্যাক্স স্পিনিং মিলস, রাবেয়া ভেজিটেবল ওয়েল ইন্ডাট্রিজ, রাইজিং স্টিল মিল, ঢাকা ট্রেডিং হাউস, বেনেটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, আনোয়ারা শিপিং মিলস, ক্রিসেন্ট লেদার প্রোডাক্টস, ইয়াসির এন্টারপ্রাইজ, চৌধুরী নিটওয়ার, সিদ্দিক ট্রেড, রূপালী কম্পোজিট লেদার ওয়্যার, আলফা কম্পোজিট টয়েলস হলমার্ক ফ্যাশন লিমিটেড, মুন্নু ফেব্রিক্স, ফেয়ার ইয়ার্ন প্রসেসিং লিমিটেড, ফেয়ার ট্রেড ফেব্রিক্স, শাহরিজ কম্পোজিট টয়েল লিমিটেড, ম্যাক ইন্টারন্যাশনাল, সুরুজ মিয়া শিপিং মিলস, প্যাসিফিক বাংলাদেশ টেলিকম লিমিটেড, সালেহ কার্পেট মিল, পদ্মা পলি কটন নিট ফেব্রিক্স, এ কে স্টিল প্রমুখ।

অর্থমন্ত্রীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সবচেয়ে ঋণখেলাপি (অনাদায়ী) ব্যাংকগুলোর মধ্যে রয়েছে- সোনালী ব্যাংক লি. (১৮ হাজার ৬৬২ কোটি ৯৭ লাখ ৩০ হাজার), জনতা ব্যাংক লিমিটেড (১৪ হাজার ৮৪০ কোটি ২৭ লাখ টাকা), অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড (৯ হাজার ২৮৪ কোটি ৪২ লাখ), বেসিক ব্যাংক লি. (৮ হাজার ৫৭৬ কোটি ৮৫ লাখ ৭ হাজার টাকা), ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড (৫ হাজার ৭৬ কোটি ৪৩ লাখ ৩ হাজার টাকা)।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জানান, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বিভিন্ন প্রকল্পের অনুক‚লে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা থেকে প্রাপ্ত বৈদেশিক সাহায্যের আশ^াসের পরিমাণ ছিল ৩৬১ দশমিক ৩৫ মিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে ঋণের পরিমাণ ৩৬০ মিলিয়ন ডলার এবং অনুদানের পরিমাণ ১ দশকি ৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং বৈদেশিক সাহায্যের প্রাপ্তির (ডিসবার্সমেন্ট) পরিমাণ ছিল ১৮৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্যে ঋণের পরিমাণ ১৮৫ দশমিক ৪৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং অনুদানের পরিমাণ ২ দশমিক ৪২ মার্কিন ডলার। অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে সারা দেশে বেসরকারি ব্যাংক থেকে কৃষকদের মধ্যে ১১ হাজার ৩১৬ কোটি টাকার কৃষি ও পল্লী ঋণ দেয়া হয়েছে।

মো. আব্দুল মতিনের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি সংসদকে জানান, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা ২ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ৯১ শতাংশ অর্জিত হয়েছে। চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj