শিঙ্গাড়া খেয়ে বোনের মৃত্যু, ভাই হাসপাতালে

বৃহস্পতিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি : শিঙ্গাড়া খেয়ে মিথিলা (৫) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি আছে নিহত শিশুর আপন ভাই নাঈম (৯)। গত মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার খুবজিপুর ইউনিয়নের পিঁপলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত শিশু ব্র্যাকে এবং অসুস্থ নাঈম পিঁপলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র।

সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, মৃত শিশু ও তার ভাই পিঁপলা কারিগরপাড়া গ্রামের নুর ইসলাম ওরফে শুকুরের ছেলেমেয়ে। মঙ্গলবার দুপুরে অবুঝ ওই দুই শিশু গ্রামের হাবিলের দোকান থেকে দুটি শিঙ্গাড়া কিনে খায়।

শিশুর দাদা আফজাল হোসেন বিলাপ করতে করতে বলেন, জীবিকার তাগিদে ছেলে এবং ছেলে বউ তিন সন্তান রেখে ঢাকায় গার্মেন্টেসে চাকরি করে। নাতি-নাতনিরা তার কাছেই থাকে। ঘটনার দিন বোন মিথিলাকে নিয়ে নাঈম পার্শ্ববর্তী হাবিলের দোকানে গিয়ে শিঙ্গাড়া কিনে খায়। ওই শিঙ্গাড়া খাওয়ার কিছুক্ষণ পরই তার নাতি-নাতনি বমি করতে করতে অসুস্থ হয়ে পড়ে। মুহূর্তেই দুজনই মাটিয়ে লুটিয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিক গুরুদাসপুর হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসক নাঈমকে হাসপাতালে ভর্তি করলেও মিথিলার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। হাসপাতাল গেট পার হওয়ার আগেই মিথিলার মৃত্যু হয়। নাঈম গুরুদাসপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

গুরুদাসপুর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক রবিউল করিম শান্ত জানান, প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে খাদ্যে বিষক্রিয়ার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে নাঈমের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত।

সংশ্লিষ্ট মাহী বেকারির মালিক মো. মোজাম্মেল হক জানান, তার এসব খাদ্য সহ¯্রাধিক দোকানে সরবরাহ হয়। কোথাও থেকে এ ধরনের খবর পাওয়া যায়নি। এ ঘটনা অন্য কোনো কারণে ঘটতে পারে।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সেলিম রেজা জানান, ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj