নেপাল-মালদ্বীপ মুখোমুখি

বুধবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

খেলা প্রতিবেদক : সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ১২তম আসরের সেমিফাইনাল পর্বের খেলা শুরু হচ্ছে আজ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় ফুটবল স্টেডিয়ামে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে প্রথম সেমিফাইনালে বিকেল ৪টায় নেপালের বিপক্ষে মাঠে নামবে মালদ্বীপ। ম্যাচটি বিটিভি এবং চ্যানেল নাইনে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। এ ম্যাচে জয়ী দল শনিবার ফাইনালে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে অংশ নেয়ার গৌরব অর্জন করবে।

২০০৩ সালের পদাঙ্ক অনুসরণ করেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের এবারের আসরে অংশ নিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। গ্রুপপর্বে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে প্রত্যাশা অনুযায়ী সাফল্যও অর্জন করেন লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। কিন্তু শেষ ম্যাচে কঠিন সমীকরণে পড়ে যায় জামাল ভূঁইয়া বাহিনী। সুপার ফোরে উঠতে হলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়া তাদের উপায় ছিল না। শেষ ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে জয় কিংবা ড্র প্রয়োজন ছিল স্বাগতিকদের। কিন্তু ব্যর্থ হয় জেমি ডের শিষ্যরা। হিমালয়ের দেশটির বিপক্ষে হেরেছে ২-০ গোলের ব্যবধানে। ফলে প্রথম পর্ব থেকেই বাদ পড়ে স্বাগতিকরা। এদিকে গ্রুপ ‘এ’-তে শিরোপার আশা ধরে হিমালয়ের দেশ নেপাল এবং আন্তর্জাতিক ফুটবলে তিন বছর পর ফেরা দল পাকিস্তান। ফাইনালে ওঠার জন্য প্রথম সেমিফাইনালে নেপালের প্রতিপক্ষ মালদ্বীপ। ‘এ’ গ্রুপে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেরা চারে উঠেছে নেপাল। ৩ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট। অবশ্য নিজেদের প্রথম ম্যাচেই পাকিস্তানের বিপক্ষে ২-১ গোলের ব্যবধানে হেরেছিল নেপালিরা। এদিকে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থানে থাকা পাকিস্তান এবং বাংলাদেশেরও পয়েন্ট ছিল ৬। কিন্তু গোল ব্যবধানে এগিয়ে ছিল বাল গোপাল মাহারজানের শিষ্যরা।

নেপাল যে কপালের জোরে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এদিকে তাদের প্রতিপক্ষ মালদ্বীপও ভাগ্যের জোরোই সেমিতে উঠেছে। ‘বি’ গ্রুপে মাত্র ১ পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থানে ছিল মালদ্বীপ এবং শ্রীলঙ্কা। গোল ব্যবধানেও সমান থাকায় সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে ওঠার জন্য টস ব্যবস্থা বেছে নেয়া হয়। আর ভাগ্যের পরীক্ষায় জিতে যায় মালদ্বীপ। ফেডারেশন অব ফুটবল এসোসিয়েশন (ফিফা) কর্তৃক প্রদত্ত র‌্যাঙ্কিংয়ে নেপালের চেয়ে এগিয়েই রয়েছে আলী আসফাক বাহিনী। নেপাল যেখানে ১৬১ নম্বরে অবস্থান করছে, সেখানে মালদ্বীপ রয়েছে ১৫০তম স্থানে। শুধু তাই নয়, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ২০০৮ সালে শিরোপাও জিতেছে মালদ্বীপ। সেবার ফাইনালে ভারতরকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে দলটি। আর সেখানে নেপালের সর্বোচ্চ অর্জন তৃতীয় স্থান। ফুটবল ইতিহাসে দুদল এ পর্যন্ত মোট ১৫ বার মুখোমুখি হয়েছে। যেখানে হিমালয়ের দেশটি জিতেছে মাত্র ৪টি ম্যাচে, আর ৭টিতে জয় পেয়েছে মালদ্বীপ। অবশিষ্ট ৪টি ম্যাচ ড্র হয়েছে। আর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে এখনো মালদ্বীপের বিপক্ষে জয়ের দেখা পায়নি বিরাজ মাহারজানরা।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj