জানালেন ইসি সচিব : ৩০ অক্টোবরের পর নির্বাচনের তফসিল

মঙ্গলবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কাগজ প্রতিবেদক : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ৩০ অক্টোবরের পর যে কোনো দিন ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ। তিনি বলেন, ৩০ অক্টোবর থেকে কাউন্ট-ডাউন শুরু হবে। তারপর যে কোনো সময় তফসিল হবে। তবে কবে হবে- তা নির্ধারণ করবে কমিশন। গতকাল সোমবার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

ইসি সচিব বলেন, জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি ৮০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে, নির্বাচনের আগে ৩০০ আসনের সীমানা নির্ধারণ একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ, আমরা সেটা সম্পন্ন করতে পেরেছি। ভোটার তালিকা চূড়ান্ত হয়েছে। ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভোটার তালিকার সিডি জেলা-উপজেলায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তারপর সেখানে এগুলো মুদ্রণ হবে। এ ছাড়া ভোটকেন্দ্রের খসড়াও চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। ওই খসড়ায় ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৪০ হাজার ৯৯টি এবং ভোট কক্ষের সংখ্যা ২ লাখ ৬ হাজার ৫৪০টি নির্ধারণ করা হয়েছে। নির্বাচনের ২৫ দিন আগে ভোটকেন্দ্রের গেজেট প্রকাশ করা হবে। তিনি আরো জানান, প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে একজন প্রিসাইডিং অফিসারসহ এবারের জাতীয় নির্বাচনে ৭ লাখের মতো কর্মকর্তা-কর্মচারীর প্রয়োজন হবে।

এদিকে তফসিল ঘোষণার মাস দুয়েক আগে নির্বাচন সংক্রান্ত আইন গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে (আরপিও) সংশোধন আনার উদ্যোগ নিয়েছে ইসি। ইতোমধ্যে সংশোধনী প্রস্তাব ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। তাতে ব্যালটের পাশাপাশি ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেয়ার সুযোগ রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। কিন্তু আর কী কী সংশোধনী ইসি চেয়েছে, তা পরিষ্কার করেনি সংস্থাটি।

এ বিষয়ে গোপনীয়তা কেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে হেলালুদ্দীন বলেন, কোনো গোপনীয় বিষয় নয়। আরপিও সংশোধন প্রস্তাব ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। ভেটিং অনুমোদন হলে মন্ত্রিসভায়, সংসদে পাস হবে। তারপর সবাই জানতে পারবেন। সবকিছু আগ থেকে জানাতে হবে, এমন তো কোনো প্রবিধান নেই।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj