গাড়ি কি নষ্ট হতে চলেছে

রবিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আধুনিক গাড়ি চালানো অনেকটাই সহজ। ইগনিশনে চাবি ঘুরিয়ে দিন, গিয়ার দিয়ে গাড়ি চালানো শুরু করুন। অন্য যে কোনো দক্ষতার মতো গাড়ি চালানোটাও শিখে নিতে পারেন যে কেউ। কিন্তু বিপত্তি বাঁধে তখনই যখন গাড়ি

বিগড়ে যায় রাস্তার মাঝে। গাড়ি নষ্ট হবে, এটা আগে থেকেই বুঝতে পারলে রাস্তার মাঝে এমন ঝামেলায় পড়তে হয় না।

ওডোমিটারে মাইলের সংখ্যা : গাড়ি চলার সময়ে প্রতি মিনিটেই তার সবগুলো পার্টের ওপর চাপ পড়ে। সময়ের সঙ্গে এর কন্ডিশন খারাপ হয়। অনেক বেশি দিন ধরে রিপেয়ার না করে গাড়ি চালাতে থাকলে তা নিঃসন্দেহে একটি বিপদ সংকেত। শেষ রিপেয়ার কবে করেছেন মনে করে দেখুন। বেশিদিন হয়ে থাকলে তা চেক করাতে কোনো গ্যারেজে নিয়ে যান।

তেল কমে গেছে : নিয়মিত গাড়ি মেকানিক দিয়ে চেক করালে আর এই চিন্তা থাকে না। এরপরেও মাঝে মাঝে নিজে চেক করে নিতে পারেন ইঞ্জিন অয়েল। কোনো লিক থাকলে ইঞ্জিন অয়েল কমে যায় এবং দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থাকে।

টায়ার ক্ষয়ে গেছে : টায়ার অনেকটা জুতোর মতো। তা বহু ব্যবহারে ক্ষয়ে গেলে তা পরে হাঁটা যায় না। টায়ারও বহুদিন ব্যবহারে ক্ষয়ে যেতে পারে।

এ ক্ষয়ে যাওয়া টায়ার নিয়ে রাস্তায় চলা বিপজ্জনক, যে কোনো সময়ে গাড়ি পথচ্যুত হতে পারে। টায়ার ক্ষয়ে গেছে কিনা সে বিষয়ে খেয়ার রাখুন।

ব্রেক সমস্যা করছে : গাড়ির ব্রেক বেশ কয়েকটি অংশে তৈরি হয়। এতে থাকে প্যাড, রোটর, হাইড্রলিক সিলিন্ডার, হোস ইত্যাদি।

ব্রেকে সমস্যা হলে বোঝা যায়। যেমন তা কিচকিচ শব্দ করলে বুঝতে হবে সমস্যাটি রোটরে। ব্রেক থেকে পোড়া প্লাস্টিকের গন্ধ এলে বুঝতে হবে প্যাডে সমস্যা। এসব ঝামেলা নিয়মিত দেখা দিলে ব্রেক মেরামত করে নিতে হবে। নয়তো হুট করে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

চেক ইঞ্জিন লাইটটি জ্বলছে : অনেক গাড়ির ড্যাশবোর্ডে এই লাইটটি থাকে। তা জ্বলছে মানে ইঞ্জিনে ছোট-বড় কোনো একটা সমস্যা আছে। সমস্যা যেটাই হোক না কেন, তা মেকানিককে দেখিয়ে নিরাপদ থাকা উচিত।

সূত্র: গুড হাউজকিপিং

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj