অ্যান্ড্রয়েড পাই

রবিবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গুগলের জনপ্রিয় মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড। স¤প্রতি অবমুক্ত হয়েছে অপারেটিং সিস্টেমটির নবম সংস্করণ অ্যান্ড্রয়েড পাই। নতুন এ সংস্করণে যুক্ত হয়েছে নতুন কিছু ফিচার। গুগল অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের প্রতিটি সংস্করণ কোনো ডেজার্ট বা মিষ্টান্নের নামে নামকরণ করে থাকে। এই যেমন জেলি বিন, কিট ক্যাট, ললিপপ, মার্শমেলো এবং ওরিও। এই ধারাবাহিকতায় এল পাই। অ্যান্ড্রয়েড পাইয়ের ফিচারকে প্রধানত তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এগুলো হলো ইন্টেলিজেন্সি, সিমপ্লিসিটি এবং ডিজিটাল ওয়েলবিং। অ্যান্ড্রয়েডের নবম এ সংস্করণে নোটিফিকেশন আগের চেয়ে আরো উন্নত করা হয়েছে এবং গুরুত্ব দেয়া হয়েছে ব্যাটারির চার্জ ধরে রাখার বিষয়টিতে। এ ছাড়া রয়েছে মজার ও অভিনব সব ফিচার।

ড্যাশবোর্ড এবং অ্যাপ টাইমার

ডিজিটাল ওয়েলবিংয়ের প্রথম সুবিধাই হচ্ছে ড্যাশবোর্ড। অ্যান্ড্রয়েড পাইয়ের ড্যাশবোর্ড ফিচারটি মূলত অতিরিক্ত স্মার্টফোন আসক্তি থেকে মুক্ত করার জন্যই রাখা হয়েছে। এই ফিচারটি জানাবে ফোনে কোন ফিচারটির পেছনে কতক্ষণ সময় দিচ্ছেন, কোন অ্যাপটি বেশি, কোনটি কম ব্যবহার করেন ইত্যাদি তথ্য। এই ড্যাশবোর্ড দেখাবে আপনি আজকে ৪ ঘণ্টা ফেসবুক অ্যাপ ব্যবহার করেছেন, ২ ঘণ্টা ইউটিউবে ভিডিও দেখেছেন অথবা ১ ঘণ্টা ব্রাউজার অ্যাপ ব্যবহার করেছেন।

এ ছাড়া ওই দিন ঠিক কতবার ফোনটির স্ট্ক্রিন আনলক করেছেন এবং কতগুলো নোটিফিকেশন রিসিভ করেছেন। অ্যাপ টাইমারের মাধ্যমে আপনি ফিচারগুলো ব্যবহারের সময় নির্ধারণ করে দিতে পারবেন। সেই সময় পরেই ফিচারটি অফ হয়ে যাবে। আর একটি ফিচার হলো ডিঅ্যান্ডডি। অর্থাৎ ডু নট ডিস্টার্ব। এই ফিচারটি অন করলে কাজের মধ্যে আর কোনো নোটিফিকেশন এলেও আপনাকে দেখাবে না। ফলে কোনো ঝামেলা ছাড়া কাজ করতে পারবেন। এ ছাড়া উইন্ড ডাউন ফিচারটি ঘুমানোর সময় সম্পূর্ণ ডিভাইসটির থিম চেঞ্জ করে সাদা-কালো থিম দেবে। ফলে চোখের ওপরে কম প্রভাব ফেলবে এবং ঘুমাতে সাহায্য করবে। পরদিন সকালে আবার সাদা-কালো থিমটি চেঞ্জ হয়ে রেগুলার থিম চলে আসবে।

আপডেট নোটিফিকেশন

সংস্করণটিতে সবাধিক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে নোটিফিকেশন অ্যালার্ট। যে কোনো অ্যালার্টের সঙ্গে ছবি দেখানো হবে। যেমন কোনো কলের নোটিফিকেশনের ক্ষেত্রে যিনি কল করেছেন তার একটি ছোট ছবি দেখানো হবে। কোনো কনটেন্ট শেয়ার করা হলে তার প্রিভিউ দেখা যাবে অ্যালার্টের সঙ্গে। সেসঙ্গে স্মার্ট রিপ্লাই ফিচারের মাধ্যমে নোটিফিকেশনগুলো থেকেই ব্যবহারকারীরা তাদের পাওয়া মেসেজের জবাব দিতে পারবে। ব্যবহারকারীরা টাইপ না করেও প্রত্যাশিত জবাব পাঠিয়ে দিতে পারবেন।

অ্যাপ অ্যাকশন

নতুন সংস্করণে নতুন একটি আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স সুবিধা যুক্ত হচ্ছে, অ্যাপ অ্যাকশনস। প্রতিদিন আপনার ফোনে কোন সময়ে কোন অ্যাপ ব্যবহার করেন তার সাজেশন দেখাবে।

ধরুন প্রতিদিন সকালে আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ে বা অফিসে যাওয়ার সময় উবার বা পাঠাও অ্যাপ ব্যবহার করেন। অ্যাপ অ্যাকশনের মাধ্যমে সেই নির্দিষ্ট সময় আপনার প্রয়োজনী এই অ্যাপটি নিজে থেকেই ওপেন করবে। শুধু তাই নয়, নির্দিষ্ট সময় অ্যাপ চালু করতে আপনার মোবাইল ডাটা চালু করে নেবে। অথবা আপনি যদি ওয়াইফাই এলাকাতে থাকেন তবে কানেকশনটি অন করে নেবেন। আবার আপনি সর্বশেষ ফোনে হেডফোন লাগিয়ে ইউটিউব অন করেছিলেন, পরে আবার যখন ফোনে হেডফোন লাগাবেন তখন সে ইউটিউব সাজেশন আকারে দেখাবে।

¯øাইসেস

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার আরেকটি ব্যবহার করা হয়েছে ¯øাইসেসের মাধ্যমে। ধরুন, আপনি অপরিচিত কোনো শহরে গেছেন। তখন গুগলে ¯øাইসেস ব্যবহার করে আপনি কাছের রেস্টুরেন্টের টেবিল বুক করতে পারবেন। অথবা উবারে করে কোথাও যেতে চান, তবে কত দূরে সেই গাড়িটি আছে তা জানিয়ে দেবে ¯øাইসেসের মাধ্যমে।

ব্যাটারি কার্যক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ

মোবাইলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ব্যাটারি। ফোন বা ফিচার যতই উন্নত হোক না কেন, ব্যাটারি ব্যাকআপ না থাকলে এটা আপনার নজর কাড়বে না। ফোন উৎপাদনকরী প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বিষয়টিতে নজর দিয়েছে অপারেটিং সিস্টেম তৈরি প্রতিষ্ঠান গুগল। তাই এবার ফোনের কার্যক্ষমতা বাড়াতে যুক্ত করা হয়েছে অ্যাডাপটিভ ব্যাটারি, যা নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে এআই প্রযুক্তির মাধ্যমে। এর মাধ্যমে কোন অ্যাপটি পাওয়ার্ড দিতে হবে এবং কোন অ্যাপটি ব্যাক পাওয়ার বন্ধ করতে হবে, তা নিজেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ফলে ফোনের ব্যাটারি আগের

চেয়ে অনেক বেশি সময় ধরে চলবে। এর পরই রয়েছে অ্যাডাপটিভ ব্রাইটনেস। বেশিরভাগ সময়ে আমরা ফোনে অটোব্রাইটনেস ব্যবহার করি।

তবে ঘরের বাইরে থাকা অবস্থায় তা ভালোভাবে কাজ করে না। ফোনের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে ফোনে কখন কতটুকু আলো লাগবে, তা নিয়ন্ত্রণ করবে অ্যাডাপটিভ ব্রাইটনেস।

ইন্টিটিভ নেভিগেশন

আপনার কাজকে সহজ করবে এই বাটনটি। নেভিগেশনে থাকছে একটি স্বতন্ত্র হোম বাটন। এর মাধ্যমে স¤প্রতি আপনি কোন অ্যাপ ব্যবহার করছেন তা বিস্তারিত দেখাবে। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলো সোয়াইপ করে দেখতে পারবেন। এর মাধ্যমে কোনো নম্বর কপি করলে ডায়াল বক্সটি ওপেন হবে। আবার ই-মেইল ঠিকানা কপি করলে ই-মেইল অ্যাপটি খুলে যাবে।

জেসচার নেভিগেশন

অ্যান্ড্রয়েড পাইতে নেভিগেট করার জন্য কোনো অনস্টিক্রন নেভিগেশন বার এবং ৩টি অনস্টিক্রন বাটন থাকবে না। এখানে একটি বার থাকবে, যেটি থেকে ওপরের দিকে সোয়াইপ করে চলে যাওয়া যাবে ওভারভিউ স্টিক্রনে। আবার লেফট সোয়াইপ করে চলে যাওয়া যাবে রিসেন্ট অ্যাপস মেনুতে। এ ছাড়া ব্যাক বাটন দেয়া হয়েছে শুধু পেছনে যেতে। এই নেভিগেশন বারটিকে গুগল বলছে কুইক স্টক্রাব। তবে গুগল এটিকে একমাত্র নেভিগেশন অপশন হিসেবে রাখছে না। চাইলে সেটিংস থেকে ফিচারটিকে ডিজেবল করে দিয়ে ট্র্যাডিশনাল তিন বাটনের অনস্টিক্রন নেভিগেশন বার ফিরিয়ে আনতে পারবেন।

ভলিউম ও স্টিক্রন রোটেশন

ভলিউম ¯øাইডার আবার স্থানান্তরিত হয়েছে। এবার এটি ফোনের ডান দিকে ভলিউম বাটনের কাছাকাছি সাজানো হয়েছে। এটি বোধগম্য যে, কেউ যদি কোনো নতুন বাড়িতে আসে তখন তার কাছে যেমন মনে হবে ঠিক তেমনি নতুন অপারেটিং সিস্টেমটি নতুন ব্যবহারকারীদের কাছে মনে হবে। ভলিউম কিগুলো পরিচালনা করা একটু অন্যরকম মনে হলে আপনি রিংয়ার ভলিউম ম্যানুয়ালভাবে কন্ট্রোল করতে পারেন। রিংয়ারটি আপনি সফটওয়্যারের মাধ্যমে অন করে নিতে পারেন এবং আলাদা করেও সাজিয়ে নিতে পারেন। আপনার প্রতিক্রিয়া এমন হতে পারে যে, কেন আগে এমনটি ছিল না? আপনি চাইলে আপনার ফোনের স্টিক্রন রোটেশন ম্যানুয়ালভাবেই কন্ট্রোল করতে পারেন।

এটি সাধারণত স্টিক্রন ঘুরানোর সময় একটি

পপ-আপ আইকনের মাধ্যমে রোটেশন কন্ট্রোল করা হয়। আপনি যখন ফোনের স্টিক্রনটি ঘুরাবেন তখন এটি কাজ করবে। এটি আপনার ফোনের ওপরেও নির্ভর করবে।

:: ডটনেট ডেস্ক

ডট নেট'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj