একজোড়া ঝুমকো

শনিবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আল-মাসুদ হক মিঠুল

মা,

আজকাল নিজেকে বড্ড অচেনা মনে হয়।

নিজের অচেনা শহরের বুকে

প্রতিদিন হেঁটে চলি অজানা পথে।

এক বুক ব্যথা আর অক্ষমতার পাহাড় ডিঙিয়ে

বারবার ছুটে চলার অদম্য ইচ্ছেটায় ভাটা পড়ে যায়।

ধূলিময় পথের গুমোট পরিবেশে

নিজেকে আবিষ্কার করি

অকৃতজ্ঞ সন্তান হিসেবে।

খুব কি বেশি চেয়েছিলে?

প্রত্যাশার পারদে এ আবদার তো নিছকতা মাত্র

এক জোড়া কানের ঝুমকোই তো চেয়েছিলে

হাসতে হাসতে তোমায়

অভয় দিয়ে বলেছিলাম এ আর কি?

এর থেকে বড়টা চাও।

তুমি মায়াভরা মুখে বললে এটাই তোমার সব থেকে বড় চাওয়া।

সেই যে দিতে চাইলাম আজো দিতে পারলাম না।

আজকাল বড্ড অপরাধী মনে হয়,

জীবনে ছুটে চলার বাঁকে বাঁকে

পথ আগলে দাঁড়িয়ে থাকে ফেলে আসা অতীত স্মৃতি।

ভাবছি এবার তোমায় আর নিরাশ করব না,

বহুদিন ঘুমের ঘোরে স্বপ্ন দেখি না মা,

কিন্তু আজকাল স্বপ্ন দেখি,

বহুদিনের জমানো অর্থেই খুব ছোট করে এক জোড়া ঝুমকো বানিয়েছি।

আমার খুব ইচ্ছে নিজেই তোমার কানে পরিয়ে দিয়ে বলব

‘মাগো এত ছোট বলে অভিমান কর না’

জানি তুমি অভিমান করবে না

আমি আসছি মা,

এবার পুজোর ছুটিতে ঠিক আসছি।

পাঠক ফোরাম'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj