গরুর দুধ মায়ের দুধের বিকল্প নয়

শুক্রবার, ৩১ আগস্ট ২০১৮

নবজাতক শিশুর সঠিকভাবে বেড়ে ওঠার জন্য চাই সর্বোৎকৃষ্ট খাবার। এ ক্ষেত্রে মায়ের বুকের দুধের কোনো বিকল্প হতে পারে না। ছয় মাস বয়স পর্যন্ত শুধুমাত্র বুকের দুধই শিশুর একমাত্র উপযুক্ত খাবার। পরবর্তী সময়ে পরিবারের অন্যান্য স্বাভাবিক খাবারের সঙ্গে অন্তত দুই বছর পর্যন্ত শিশুকে মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে হবে। মায়ের বুকের দুধ শিশুর সঠিক বৃদ্ধি নিশ্চিত করে। মস্তিষ্ক ও দৃষ্টিশক্তির বিকাশ এবং রোগ প্রতিরোধে এ দুধ অতুলনীয়। মায়ের দুধ হজমে সহায়ক এবং মায়ের সঙ্গে সন্তানের স্নেহ-মমতার বন্ধন তৈরি করে।

অনেক মা-বাবা তাদের শিশুকে গরুর দুধ খাওয়ানোর ব্যাপারে আগ্রহী। এ ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে গরুর দুধ শিশুর জন্য ক্ষতিকর। গরুর দুধে অধিক পরিমাণে প্রোটিন ও সোডিয়াম থাকে যা শিশুর কিডনির ওপর চাপ সৃষ্টি করে। গরুর দুধে অনেক বাচ্চার এলার্জিও হয়ে থাকে। এ দুধ শিশুরা সহজে হজম করতে পারে না। এ দুধে আয়রন না থাকায় গরুর দুধ পানকারী শিশু রক্তস্বল্পতায় ভুগতে পারে।

সর্বোপরি গরুর দুধ শিশুর মস্তিষ্ক ও দৃষ্টিশক্তির পরিপূর্ণ বিকাশ সাধন করতে পারে না। যদি কোনো শিশু মাতৃমৃত্যু কিংবা অসুস্থতাজনিত কারণে মায়ের বুকের দুধ থেকে বঞ্চিত হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শমতো সে শিশুর সঠিক খাবারের ব্যবস্থা করতে হবে। সে ক্ষেত্রে শিশুকে নির্দিষ্ট মাত্রায় পানি দ্বারা পাতলা করার পর গরুর দুধ দেয়া যেতে পারে, তবে তা অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী।

ডা. মুহাম্মদ কামরুজ্জামান খান

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও প্রভাষক, কমিউনিটি মেডিসিন

সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ

পরামর্শ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj