উল্টো পথে হাঁটছে রিয়াল-বার্সা

মঙ্গলবার, ৭ আগস্ট ২০১৮

এক দলে বাজছে ভাঙনের সুর, অন্য দল ব্যস্ত শক্তিশালী দল গড়ায়। বলছি ক্লাব ফুটবলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা দুই ক্লাব বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের কথা। স্প্যানিশ লিগ মানেই যেন এই দুদলের আধিপত্য। দুদলের মধ্যে রয়েছে আলাদা এক দ্বৈরথ। রিয়াল-বার্সার সে দ্বৈরথ দেখার জন্য মুখিয়ে থাকে সারা বিশে^র ফুটবলপ্রেমীরা। স্প্যানিশ লিগের শিরোপা জয়ের লড়াই তো রয়েছেই, সেই সঙ্গে দুদলের মধ্যকার ম্যাচেরও রয়েছে আলাদা নাম। রিয়াল-বার্সার লড়াইকে বলা হয় এল-ক্লাসিকো। ২০১৮ সালের প্রথম এল-ক্লাসিকো মাঠে গড়াবে ২৮ অক্টোবর। এ ছাড়া চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে শুরু হচ্ছে স্প্যানিশ লা লিগার লড়াই। লা লিগার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা। তাই এবার তাদের পেছনে ফেলে শিরোপা জিততে চাইবে রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি বলছে ২০১৮-১৯ মৌসুমে খুব একটা জমবে না বার্সা-রিয়াল দ্বৈরথ। এর কারণ একদিকে বার্সেলোনা যখন শক্তিশালী দল গঠনে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে অন্যদিকে তখন নতুন ফুটবলার কেনা তো দূরের কথা, বরং দলের অনেক সিনিয়র ফুটবলারই রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে অন্য ক্লাবে যোগ দিচ্ছেন।

ফুটবলের চলতি মৌসুমে সবচেয়ে বেশি ফুটবলার কেনা ক্লাবগুলোর তালিকায় সন্দেহাতীতভাবেই উপরের দিকে রয়েছে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার নাম। কাতালান ক্লাবটির ফুটবলার কেনার এই মিশন শুরু হয় গত বছর বার্সা ছেড়ে নেইমারের পিএসজিতে যোগ দেয়ার পর থেকেই। নেইমারের বিকল্প হিসেবে পলিনহো, কুতিনহো এবং ওসমান ডেম্বেলেকে দলে ভিড়িয়েছে তারা। এরপর মৌসুম শেষে অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার আন্দ্র্রেস ইনিয়েস্তা ও এক মৌসুম খেলেই দারুণ চমক দেখানো ব্রাজিলিয়ান তারকা পলিনহোর চলে যাওয়ার পর আবারো নতুন ফুটবলার কেনার মিশনে নামে বার্সেলোনা। ইনিয়েস্তা ও পলিনহোর শূন্যস্থান পূরণ করতে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন ফুটবলারকে দলে নিয়েছে তারা। প্রথমেই তারা দলে ভিড়িয়েছে ব্রাজিলিয়ান তরুণ আর্থার মেলোকে। নিজ দেশের ক্লাব গ্রিমিওর হয়ে গত কয়েক মৌসুমে দারুণ পারফর্ম করা বর্তমানে ২১ বছর বয়সী এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের প্রতি অবশ্য আগে থেকেই নজর ছিল বার্সার। এরপর তারা দলে নিয়েছে ফরাসি ডিফেন্ডার ক্লেমেন্ট লেঙ্গলেটকে। ফরাসি এই ডিফেন্ডারের পর ফ্রান্সের ক্লাব বুর্দো থেকে ৪১ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে কিনেছে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ম্যালকমকে। এতেই থেমে থাকেনি বার্সেলোনা। চিলিয়ান মিডফিল্ডার আর্তুরো ভিদালকেও দলের নেয়ার জোর প্রচেষ্টা শুরু করে তারা। অভিজ্ঞ এই মিডফিল্ডারকে কেনার ব্যাপারে ইতোমধ্যে তার বর্তমান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের সঙ্গে চুক্তির সমস্ত কার্যক্রমও শেষের দিকে বলে জানানো হয়েছে কাতালান ক্লাবটির পক্ষ থেকে। বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভালভের্দে জানিয়েছেন, তারা আরো বেশ কয়েকজন মিডফিল্ডার ও ডিফেন্ডার আনার চেষ্টা করছে। বার্সা যখন একের পর এক ফুটবলার কেনা ও দলের শক্তিমত্তা বাড়াতে মনোযোগী তখন উল্টো চিত্র দেখা যাচ্ছে তাদের চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী রিয়াল মাদ্রিদে।

কয়েক সপ্তাহ আগে রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে দীর্ঘ ৯ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসে যোগ দিয়েছেন পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এ ছাড়া অভিজ্ঞ লুকা মড্রিচও রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন। সবচেয়ে বড় ব্যাপার, যে কোচের অধীনে ফুটবলের শেষ কয়েকটি মৌসুমে দারুণ সাফল্য পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ সেই জিনেদিন জিদানও ইতোমধ্যে রিয়ালের দায়িত্ব ছেড়েছেন। এ ছাড়া এখনো পর্যন্ত ফুটবলের চলতি মৌসুমে কেবল একজন ফুটবলার কিনেছে রিয়াল। তিনি হলেন ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার ভিনিসিয়াস জুনিয়র। বর্তমানে ১৮ বছর বয়সী এই ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের সঙ্গে অবশ্য রিয়াল দুই বছর আগেই মৌখিক চুক্তি সম্পন্ন করে রেখেছিল। এ ছাড়া দলবদলের শুরুতে নেইমার, এমবাপ্পে, এডেন হ্যাজার্ডসহ আরো বেশ কয়েকজন ফুটবলারকে আনার ইঙ্গিত দিলেও এখনো পর্যন্ত এর বাস্তবায়ন দেখা যায়নি। সব মিলিয়ে তাই বলা যায়, উল্টোপথেই হাঁটছে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা। ফুটবলবোদ্ধাদের ধারণা, রিয়াল মাদ্রিদ যদি খুব শিগগিরই মানসম্মত কোনো নতুন ফুটবলারকে দলে নিতে না পারে তবে আগামী মৌসুমে তাদের পারফরমেন্সে এর বাজে প্রভাব পড়বে। এমনকি রিয়াল-বার্সা দ্বৈরথের অবসানও দেখছেন অনেকে।

:: এস এম সায়েম

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj