বাসচাপায় ২ শিক্ষার্থী হত্যার প্রতিবাদ : নিরাপদ সড়কের দাবিতে সারা দেশে আন্দোলন

বৃহস্পতিবার, ২ আগস্ট ২০১৮

কাগজ ডেস্ক : ঢাকায় বাসচাপা দিয়ে দুই শিক্ষার্থী হত্যার প্রতিবাদে ও নিরাপদ সড়কের দাবির আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে। গতকাল বুধবার স্কুল-কলেজের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ, মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন। সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, শুধু ঢাকায় নয়, চট্টগ্রামসহ দেশের সব এলাকায় পরিবহনে নৈরাজ্য বেড়েই চলেছে। এ নৈরাজ্য থামানো না গেলে বাসচালকরা ‘দানব’ হয়ে উঠবেন। আর সড়কে অকালেই ঝরবে তাজা প্রাণ। এ কারণে পরিবহন নৈরাজ্য থামানো জরুরি। এ সম্পর্কে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্ট-

চট্টগ্রাম অফিস : ঢাকায় বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী হত্যার প্রতিবাদে ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে চট্টগ্রামে বিক্ষোভ করেছেন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। গতকাল বুধবার সকালে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্ররা নগরীর কাজির দেউড়ি, জামালখান মোড়, গণি বেকারি মোড়, গুলজার মোড় হয়ে বিক্ষোভ শেষে প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ

করেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ‘একটি কথা বলতে চাই, নিরাপদ সড়ক চাই’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘আমার ভাই কবরে, খুনি কেন বাইরে’, ‘জেগেছে জেগেছে, ছাত্র জনতা জেগেছে’ ¯েøøাগানে মুখরিত করে তোলেন রাজপথ। পরে জামালখান প্রেসক্লাবের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করেন তারা। সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে আয়োজিত এ বিক্ষোভে নগরের বিএএফ শাহীন কলেজ, মহসিন কলেজসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

সমাবেশে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বলেন, শুধু ঢাকায় নয়, চট্টগ্রামসহ দেশের সব এলাকায় পরিবহনে নৈরাজ্য বেড়েই চলেছে। এ নৈরাজ্য থামানো না গেলে বাসচালকরা ‘দানব’ হয়ে উঠবেন। সড়কে অকালেই ঝরবে তাজা প্রাণ। এ কারণে পরিবহন নৈরাজ্য থামানো জরুরি। এ সময় ছাত্ররা সড়ক দুর্ঘটনার জন্য নৌপরিবহনমন্ত্রীকে দায়ী করে তার পদত্যাগের দাবিতে ¯েøøাগান দেন। এক সময় তারা রাস্তা অবরোধ করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে পুলিশের অনুরোধে শিক্ষার্থীরা রাস্তা অবরোধ না করে ফুটপাতে দাঁড়িয়ে বিক্ষোভ করেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মহসীন বলেন, দুপুরের দিকে কিছু শিক্ষার্থী মিছিল করে জামালখান এলাকায় মিলিত হয়। ছাত্ররা শান্তিপূর্ণভাবে মিছিল ও মানববন্ধন করেছে। আমরাও তাদের বুঝিয়ে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা না করার জন্য অনুরোধ করেছি। এ সময় রাস্তা অবরোধ করে সমাবেশ করতে চাইলে পুলিশের অনুরোধে তারা ফুটপাতে সমাবেশ করে চলে যায়। সেখানে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

জাবি : আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক (ডেইরি গেট) সংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে এ মানববন্ধন করা হয়। শতাধিক শিক্ষার্থীর সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক খন্দকার হাসান মাহমুদ, সহকারী অধ্যাপক আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুমনা গুপ্তা প্রমুখ।

মানববন্ধনে স্কুল-কলেজের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ঘোষিত ৯ দফা দাবির প্রতি সমর্থন জানান জাবি শিক্ষার্থীরা। মহাসড়কে লাশের মিছিল থামাতে সরকারের কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের কথা উল্লেখ করে প্রতিবাদ জানানো হয়। এ সময় ‘আমরা মরি বাস চাপায়, শাজাহান তার দাঁত দেখায়’, ‘সড়ক-মহাসড়কে মানুষ মরে ওবায়দুল কাদের কি করে’, ‘স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চাই’, ‘ফিটনেসহীন গাড়ির চলাচল বন্ধ কর’, ‘নৌপরিবহন মন্ত্রীর অপসারণ চাই’ ইত্যাদি দাবিতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ জানান। একই সঙ্গে পুলিশি হামলার প্রতিবাদ করেন মানববন্ধনে উপস্থিত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুমনা গুপ্তা বলেন, ‘মানুষের মৌলিক দাবিগুলোর মধ্যে নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা একটি। সরকার এটি পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে যখন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নামে তখন তাদের ওপর পুলিশি হামলা কতটা যৌক্তিক তা রাষ্ট্রের ভাবা উচিত।’ শিক্ষার্থীদের পক্ষে নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মো. দিদার বলেন, ‘আমরা নিরাপদ সড়কের দাবিতে সব সময়ই সোচ্চার কিন্তু সরকারের গাফিলাতির কারণে মহাসড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না। পুলিশ কর্তৃক আন্দোলনরতদের ওপর নির্মম নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj