‘শিল্পের শহর ঢাকা’

শুক্রবার, ২৭ জুলাই ২০১৮

কাগজ প্রতিবেদক : দেশের তরুণ পারফরমেন্স আর্ট শিল্পীদের নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে ‘শিল্পের শহর ঢাকা’। বেলা ১১টায় শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে অংশগ্রহণকারী ১৫ জন শিল্পীর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন ‘শিল্পের শহর ঢাকা’ এর কিউরেটর শিল্পী মাহবুবুর রহমান।

সাধারণ মানুষের সঙ্গে শিল্পের সংযোগ ঘটাতে ২৬-২৮ জুলাই তিন দিনব্যাপী ঢাকা শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে যথাক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, পুরনো ঢাকা, কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ও সংসদ ভবন এলাকায় শিল্পকলা একাডেমির সহযোগিতায় শিল্পীদের বিভিন্ন পরিবেশনা উপস্থাপন করা হবে। প্রথমবারের মতো এশিয়ান আর্ট বিয়েনালের ১৮তম আসরে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্ত হতে যাচ্ছে এই শিল্প মাধ্যমটি। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে এশিয়ান আর্ট বিয়েনালের মূল আসরে বাংলাদেশি ১৫ জন শিল্পীর পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নির্বাচিত ১৪ জন শিল্পী তাদের পারফরমেন্স প্রদর্শন করবেন।

‘শিল্পের শহর ঢাকা’ আয়োজনে ১৬ জন বাংলাদেশি শিল্পী পারফর্ম করবেন। শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী আগের দুটি আসরেও পারফরমেন্স আর্টকে ইভেন্ট হিসেবে সংযুক্ত করেছিলেন। সেই ধারাবাহিকতায় এবারের আসরে শিল্পীরা মূল আয়োজনের সঙ্গে একীভূত হলেন। ২০১৭ সালে শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে ‘পারফরমেন্স আর্ট’ কর্মশালার মাধ্যমে অনেক তরুণ শিল্পী পারফরমেন্স আর্ট চর্চায় অনুপ্রেরণা পেয়েছেন। ‘শিল্পের শহর ঢাকা’ শীর্ষক কর্মসূচির অংশ হিসেবে শহরের বিভিন্ন স্থানে বাউল শিল্পীদের পরিবেশনা ও শিশুদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনাসহ নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

ঢাকা শহরের পরিচিতি আজ মেগাসিটি হলেও নাগরিক নানা সংকটে এ শহরের চারশ বছরের ঐতিহ্য ভুলতে বসেছে। যানজটের চাপে এ শহরে মানবিক আবেগগুলো অনেকখানিই উপেক্ষিত। শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর পরিকল্পনায় শহরবাসীকে ঢাকার পুরনো ঐতিহ্যের কথা স্মরণ করিয়ে দিতে এবং মানুষের মাঝে শিল্পের বোধ ছড়িয়ে দিতেই আয়োজন করা হয়েছে ‘শিল্পের শহর ঢাকা’।

বাউল সঙ্গীত উৎসব : বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রতিনিধিত্বশীল শতাধিক বাউল সাধক, শিল্পী ও গবেষকের অংশগ্রহণে গতকাল বৃহস্পতিবার শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী বাউল সঙ্গীত উৎসব-২০১৮। শিল্পকলা একাডেমি ও লালন বিশ্বসংঘের যৌথ উদ্যোগে এবং ইন্ডিয়া বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় তিন দিনব্যাপী উৎসবের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

মূলত, শিল্পী তার শারীরিক উপস্থাপনার ভিত্তিতে যে শিল্প নৈপুণ্য প্রদর্শন করে সেটিই পারফরমেন্স আর্ট। পশ্চিমা বিশ্বে এর আবির্ভাব ষাটের দশকে। বাংলাদেশে এর শুরু হয় আশির দশকে। সাংগঠনিকভাবে পরবর্তীতে পারফরমেন্স আর্টের চর্চা থাকলেও দেশের প্রধান আন্তর্জাতিক আসর হিসেবে এশিয়ান আর্ট বিয়েনালে এর তালিকাভুক্তিকরণ বাংলাদেশের শিল্পচর্চায় নতুন দিগন্তের সূচনা।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj