জাদুঘর হচ্ছে থাম লুয়াং গুহা

শুক্রবার, ১৩ জুলাই ২০১৮

কাগজ ডেস্ক : কিশোর ফুটবল দলের অবিশ্বাস্য উদ্ধার ঘটনার সুবাদে থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহা এখন বিশ্বখ্যাত। গত ২৩ জুন ওই গুহায় বেড়াতে গিয়ে আটকা পড়ে ফুটবল দলটি। ১০ দিন অনুসন্ধানের তাদের খুঁজে পাওয়া এবং আরো প্রায় ১০ দিন ধরে মহাকর্মযজ্ঞের পর তাদের সফলভাবে উদ্ধারের ঘটনাটি ঠাঁই করে নেয় বিশ্বের প্রতিটি শীর্ষ পত্রিকার প্রথম পাতায়। উদ্ধার পাওয়া কিশোর ফুটবলাররা সবাই বর্তমানে সুস্থ এবং হাসপাতালে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছে। অন্যদিকে, থাইল্যান্ডের স্মরণকালের ইতিহাসের সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর ও সফল এ উদ্ধার অভিযানের পর থাম লুয়াং গুহাটিকে আগামী দিনের পর্যটকদের জন্য একটি জাদুঘরে রূপদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে থাই কর্তৃপক্ষ। বিবিসি।

উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা জানান, উদ্ধার অভিযান কীভাবে চালানো হয়েছে তা ওই গুহা জাদুঘরে প্রদর্শনীর আয়োজন থাকবে। এটি থাই পর্যটনের একটি ‘বড় আকর্ষণে’ পরিণত হবে। দুটি কোম্পানি ইতোমধ্যে ঘোষণাও দিয়েছে, উদ্ধার অভিযানের গল্প নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণেরও পরিকল্পনা করছে তারা।

হাসপাতালে থাকা থাই কিশোর দল দ্রুতই তাদের শারীরিক শক্তি ও মানসিক উদ্দীপনা ফিরে পাচ্ছে। পাহাড়ের নিচে অন্ধকার গুহায় ১৭ দিন আটকা থাকা অবস্থায় কোচসহ তারা সবাই গড়ে দুই কেজি করে ওজন হারিয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সর্বশেষ প্রকাশিত একটি ভিডিওতে হাসপতালের বেডে তাদের বসা ও শোয়া অবস্থায় দেখা গেছে। ভিডিওতে তাদের উৎফুল্ল দেখা গেছে। অনেকেই এ সময় আঙুলে বিজয়সূচক ‘ভি’ চিহ্ন প্রদর্শন করছিল। তবে এ অবস্থায় আরো অন্তত এক সপ্তাহ তাদের হাসপাতালেই কাটাতে হবে। এদিকে উদ্ধার অভিযানের ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেছে থাই নেভি সিল। এতে বিশেষজ্ঞ ডুবুরিরা কীভাবে ‘ওয়াইল্ড বোর’ ফুটবল দলের সদস্যদের গুহা থেকে বের করে আনল, তা তুলে ধরা হয়েছে।

থাম লুয়াং গুহাটি থাইল্যান্ডের দীর্ঘতম গুহার অন্যতম। এটি মিয়ানমার সীমান্তবর্তী থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ চিয়াং রাইয়ে অবস্থিত। ছোট্ট শহর মাইসাই ঘিরে থাকা পর্বতের নিচে গুহাটির অবস্থান। পর্যটনের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকলেও আর্থ-সামাজিক দিক থেকে এলাকাটি বেশ অনুন্নত।

এক সংবাদ সম্মেলনে সাবেক গভর্নর ও উদ্ধার অভিযানের মিশন প্রধান নারোংসাক ওসোত্তানাকর্ন বলেন, অভিযান কীভাবে করা হয়েছে তা দেখানোর জন্য এলাকাটিকে প্রাকৃতিক জাদুঘরে পরিণত করা হবে। এটি থাইল্যান্ডের অন্যতম আকর্ষণ হয়ে উঠবে। পর্যটকদের সুরক্ষার জন্য গুহার ভেতরে ও বাইরে সতর্কতামূলক বিভিন্ন ব্যবস্থাও নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী প্রাউথ চান ওচা।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj