রাসিক নির্বাচন : পরস্পরের বিরুদ্ধে লিটন-বুলবুলের অভিযোগ

শুক্রবার, ১৩ জুলাই ২০১৮

কাগজ প্রতিবেদক, রাজশাহী : রাজশাহী সিটি করপোরেশনে (রাসিক) নির্বাচনের পরিবেশ নেই বলে অভিযোগ তুলেছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মহানগরের মালোপাড়ার কাবিল ম্যানশনে বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনও বিএনপির বিরুদ্ধে ভয়ভীতি দেখানোসহ বেশ কিছু অভিযোগ তুলেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বুলবুল বলেন, প্রতিদ্ব›দ্বী (আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান) লিটন নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার দুই দিনেই অবৈধভাবে চার কোটি টাকার পোস্টার, ব্যানার ছাপিয়েছেন। কে দিল এতো টাকা? নির্বাচন কমিশনের উচিত তা তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া। কিন্তু তল্পিবাহক নির্বাচন কমিশন কখনোই তা করবে না। তারা কেবল লিটনকে মেয়র ঘোষণা দেয়ার অপেক্ষা করছেন।

রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি বুলবুল তার কর্মী-সমর্থকদের ওপর ‘আওয়ামী লীগের নির্যাতন, হামলা ও মারধরের’ অভিযোগ করে বলেন, বুধবার (১১ জুলাই) রাতে বিএনপির এক কর্মীকে মারধর করা হয়েছে। তাকে পিটিয়ে যুবলীগের এক কর্মী পুলিশে দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের সঙ্গে পুলিশও ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে’ জড়াচ্ছেন। এজন্য আজ্ঞাবহ একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে রাজশাহী আনা হয়েছে। তার ইশারায় থানা পুলিশ বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। গত তিন মাসে কোনো বোমাবাজির ঘটনা না ঘটলেও নেতাকর্মীদের আটকের পর বোমা হামলার মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হচ্ছে।

এদিকে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, অভিযোগ করা বিএনপির পুরনো অভ্যাস। তারা এখন নালিশের দলে পরিণত হয়েছে। গতকাল দুপুরে নগরীর আরডিএ মার্কেট এলাকায় গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপির অভিযোগ বিষয়ে আওয়ামী লীগের এই মেয়র প্রার্থী বলেন, বিএনপির মেয়রপ্রার্থীর লোকজনই বিভিন্ন স্থানে আমার ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলছে। তারা আমার সমর্থকদের নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। কাজেই তাদের অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই। তিনি আরো বলেন, মাঠে খেলতে নামার শুরুতেই যদি কেউ ঝগড়া বাধানোর চেষ্টা করে তাহলে বুঝতে হবে পরাজয় নিশ্চিত জেনে তারা খেলতে চাচ্ছে না। বিএনপির অবস্থা হয়েছে তাই। তারা পরাজয় নিশ্চিত জেনে শুরুতেই নানা ধরনের অভিযোগ করা শুরু করেছে।

গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর আরডিএ-এর খাচা মার্কেট থেকে গণসংযোগ শুরু করেন লিটন। এরপর সাহেব বাজার কাপরপট্টি, স্বর্ণপট্টি, জুতা-সেন্ডেল মার্কেটে ও পুস্তক বিতানগুলোতে নির্বাচনী প্রচার চালান তিনি। বিকেলে নগরীর শহীদ কামারুজ্জামান চত্বর সংলগ্ন মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে নিয়ে গণসংযোগ করেন নৌকার এই মেয়রপ্রার্থী।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj