শম্পা বণিক-এর কবিতা

শুক্রবার, ১৩ জুলাই ২০১৮

** একটু যদি ছুঁয়ে দিতে **

একটু যদি আলতো করে ছুঁয়ে দিতে তুমি

লাটিমের মতো মাতাল হয়ে,

ভোঁ ভোঁ করে ঘুরতাম

পৃথিবীর ধ্বংসের আগ পর্যন্ত এই আমি।

একটু যদি ফুঁ দিয়ে উড়িয়ে দিতে আমার চুল

তাহলে মাধ্যাকর্ষণ শক্তি হয়ে

ছো মেরে আঁচলে তুলে নিয়ে আসতাম

তোমার অর্ঘের জন্য স্বর্গরাজ্যের সমস্ত ফুল।

একটু যদি আলতো করে আমার রেশমি চুরিতে দোলা দাও

আমি তখন সূর্য ও পৃথিবীর মাঝখানে,

চাঁদ হয়ে ঘাঁটি বসিয়ে

সূর্য আর তোমাকে নিয়ে বৃষ্টিতে রৌদ্র স্নান করতাম।

একদিন যদি কষ্টের দীঘল দীর্ঘ রাতে

এক টুকরা সু-স্বপ্নে জোছনার ফুল হতে,

তবে প্রাচীন শিলালিপি থেকে মুছে দিতাম

মরতে মরতে বাঁচতে শেখা কষ্টের বর্ণিল বর্ণ নিজ হাতে।

একটু যদি আমায় বিশ্বাসের অবিশ্বাস্য আশ্বাস দিতে

তবে আরেক বার সমুদ্র মন্থনে যেতাম,

তুলে নিতাম যাবৎকালের সমস্ত বিশ্বাস ভঙ্গের বিষ

জটাধারী শিব থেকে ভিক্ষা নিয়ে এই বক্ষে ঠাঁই দিতাম।

** শব্দের ব্যারিকেড **

আমার শব্দরা সারিবদ্ধভাবে

হাতে হাত ধরে মাথা নত করে থাকে,

শুধু কবে তুমি আমার শব্দদের

স্পর্শ করে রাঙিয়ে দেবে সেই আশায়।

আমার শব্দরা সারিবদ্ধভাবে

শুধু তোমাতেই ডুবে থাকে কখন তুমি,

নীল দরিয়ার বুনো হাঁসের মতো

প্লাঞ্জল ডুব সাঁতারে প্রেমের খেলায় মাতবে।

আমার শব্দরা সারিবদ্ধভাবে

নতজানু হয়ে তোমাতেই আত্মসমর্পণ করে,

কখন তুমি বসন্তের বারিধারায় প্লাবিত করবে

আমার খরা মরু হৃদয়ের পুষ্প কানন।

আমার শব্দরা সারিবদ্ধভাবে

রিনিঝিনি শব্দে বেজে উঠতে চায়,

যখন তোমার প্রতিটি নিঃশ্বাসের শব্দে রাজত্ব

করবো এই হতদরিদ্র মহা রানী।

আমার শব্দরা সারিবদ্ধভাবে অপেক্ষায় থাকে

কখন কৃষ্ণবর্ণ অন্ধকারকে ধূলিসাৎ করে,

তুমি আসবে প্রেমের পদ্যের ব্যারিকেড তুলে

বিদ্রোহ আর ভালোবাসার দিব্যিতে একটি অনবদ্য কবিতা হয়ে।

সাময়িকী'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj