আনন্দ-বেদনার বিশ^কাপ

মঙ্গলবার, ৩ জুলাই ২০১৮

শুধু বিশ্বকাপে নয়, বছরের বিভিন্ন সময়ে অনুষ্ঠিত রোনালদো-মেসিদের খেলা দেখেন সারা পৃথিবীর মানুষ। এই দুই ফুটবলারের ক্রীড়া নৈপুণ্যে মানসিক তৃপ্তি পান ভক্ত সমর্থকরা। কিন্তু গত শনিবার রাশিয়া বিশ্বকাপে ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন চিত্র। এ দিন ছিল নক্ষত্রের পতনের রাত। প্রথমে ফ্রান্সের কাছে হেরে বিদায় নেয় মেসিদের আর্জেন্টিনা। কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে উরুগুয়ের বিপক্ষে বিদায় ঘটে রোনালদোর পর্তুগালের। এই দুই তারকার বিদায়ের ছায়া পড়ে কাজান এবং ফিস্তের গ্যালারিতে। দুটো স্টেডিয়ামেই ক্যামেরায় ধরা পড়ে বিষণœ সব সমর্থকদের মুখ।

তাদের বিশ্বকাপ ইতিহাস সম্ভবত রাশিয়াতেই থেমে যাচ্ছে। মেসির বয়স এখন ৩১ বছর। অন্যদিকে রোনালদোর বয়স ৩৩ বছর। তারা তাদের ক্লাবের হয়ে সর্বোচ্চ দিয়েছেন। কিন্তু না, নিজের দলের হয়ে, নিজের দেশকে সর্বোচ্চ ফল এনে দিতে পারেননি। উল্টো রেফারি যখন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে হলুদ কার্ড দেখান তখন তিনি তার মুখের দিকে তাকিয়ে ছিলেন খিটমিটে মেজাজে। তার এখনো ফুটবল মাঠে স্কোর করার সামর্থ্য আছে। তবু আরেকটি বিশ্বকাপ পর্যন্ত তাদের যে বয়স দাঁড়াবে তাতে তারা থাকবেন না বলেই মনে করা হচ্ছে।

তবে সিআর সেভেন এবং এলএম টেনকে যে শুধু মস্কোর গ্যালারি মিস করবে এমনটা তো নয়। এই দুই কিংবদন্তি ফুটবলারকে পুরো বিশ্বকাপজুড়ে মিস করবেন বিশ্বের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা ফুটবলপ্রেমীরা। এর আগে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছে জার্মানি। জার্মানদের দুর্গ ভেঙে দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। জয়-পরাজয়ের খেলায় সমর্থকদের কারও হৃদয় ভেঙেছে তো কেউ উৎসব করে বাড়ি ফিরেছে।

কে জানতো বিশ্বসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসির কয়েক ঘণ্টা পরেই তারই মতো কাঁদতে কাঁদতে বিশ্বকাপের আসর থেকে বিদায় নেবেন সাম্প্রতিক সময়ের আরেক কিংবদন্তিতুল্য ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এক দুঃস্বপ্ন গ্রাস করেছে আর্জেন্টিনা, পর্তুগাল ও বিশ্বজুড়ে তাদের কোটি কোটি ভক্তকে। তারা স্বপ্ন দেখেছিলেন এবার বিশ্বকাপটা হয়তো হাতে উঠবে লিওনেল মেসি অথবা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। কিন্তু হায়! সবই দুরাশায় পরিণত করে একইভাবে নিজে কাঁদলেন তারা। কাঁদালেন কোটি কোটি ভক্তকে। বিশ্বে অনেক গ্রেট ফুটবল খেলোয়াড় আছেন যারা কখনোই বিশ্বকাপ জিততে পারেননি। সম্ভবত সেই তালিকায় যুক্ত হতে যাচ্ছেন মেসি ও রোনালদো। কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হবে ফ্রান্স ও উরুগুয়ে। ততক্ষণে ফুটবলপ্রেমীরা মেসি ও রোনালদোর অবসরের সিদ্ধান্ত জেনে যাবেন। তারা দুজনেই সমান পাঁচবার করে ব্যালন ডি’অর পুরস্কার জিতেছেন। এ ছাড়া তারা ফুটবলের আরো বড় বড় পদক, পুরস্কার জিতেছেন। কিন্তু ফুটবলের সবচেয়ে বড় পুরস্কারটি থেকে গেল তাদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। ওই বিশ্বকাপটি এখন অন্য কারো হাতে শোভা পাবে। আর তা তাকিয়ে তাকিয়ে দেখতে হবে লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে।

:: আ ত ম মাসুদুল বারী

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj