তুরুপের তাস যারা : মুকুল মুর্শেদ

শুক্রবার, ১৫ জুন ২০১৮

অনেক ধৈর্য আর প্রত্যাশার পর আজ শুরু হতে যাচ্ছে দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ নামে পরিচিত ফুটবল বিশে^র অন্যতম জনপ্রিয় আসর ফিফা বিশ^কাপ। বিশ^কাপের ২১তম আসর এবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পৃথিবীর বৃহত্তম দেশ রাশিয়াতে। তাই এ নিয়ে ব্যস্ত পুরো রাশিয়াবাসী। তবে শুধু যে রাশিয়ার জনগণই ব্যস্ততম সময় কাটাচ্ছে তা কিন্তু নয়। তাদের চেয়ে অধিক ব্যস্তময় সময় কাটাচ্ছেন বিশ্বের তারকা ফুটবলাররা। শেষ মুহূর্তে নিজেদের প্রস্তুত করে নিচ্ছেন বিভিন্ন দেশের অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার এবং ফরোয়ার্ডরা। দেশকে শিরোপা এনে দিতে শেষ মিনিট পর্যন্ত গোলের সন্ধানে থাকবেন তুরুপের তাসেরা খ্যাত আক্রমণভাগের এই ফুটবলাররা। বিশ্বকাপ নিয়ে এবারের আয়োজন রাশিয়া বিশ্বকাপের সম্ভাব্য তুরুপের তাসেরা-

ফুটবল বিশ্লেষকরা রাশিয়া বিশ্বকাপে হট ফেবারিট হিসেবে রাখছে ব্রাজিল জতীয় ফুটবল দলকে। এতে দোষের কিছু নেই। কেননা বিশ্বের নামিদামি ফুটবলাররা রয়েছেন পাঁচবারের বিশ্বকাপ জয়ী ব্রাজিল স্কোয়াডে। খেলার শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত প্রতিপক্ষের গোলকিপারকে ব্যস্ত রাখবেন বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা ফরোয়ার্ড নেইমার। এ ছাড়া ফিলিপ কুতিনহো গ্যাব্রিয়েল জেসুস, দিয়েগো কস্তা এবং উইলিয়ানরা ব্রাজিল দলের তুরুপের তাস হওয়ার যোগ্যতা রাখে।

ফুটবল বিশ্বে সবচেয়ে সমৃদ্ধশালী দেশ হলো জার্মানি। বিশ্বকাপ ফুটবলে চারবারের চ্যাম্পিয়নদের সব সময়ের ফেবারিট বলা হয়। বিশ্বকাপ এলেই যেন ফর্ম ফিরে আসে জার্মান ফুটবলারদের। চারটি ফিফা বিশ্বকাপ জেতার পাশাপাশি রানারআপ হয়েছে চারবার। ইউরো কাপে তিনবার করে চ্যাম্পিয়ন এবং রানারআপ হয়েছে। এ ছাড়া কনফেডারেশন কাপ জিতেছে একবার। টমাস মুলার এবং মিরা¯øাভ ক্লোসাদের ঘিরে বিশ্বকাপের গত আসরে চতুর্থ শিরোপা নিশ্চিত করে জার্মানি। রাশিয়া বিশ্বকাপ জিতে ব্রাজিলের সমপরিমাণ শিরোপা জয়ের রেকর্ড গড়তে দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ জোয়াকিম লো। ফিফা বিশ্বকাপের ২১তম আসরে টমাস মুলার, মেসুত অজিল, টিমো ওয়ের্নার, মারিও গোমেজ নিয়ে নতুন করে স্বপ্ন বুনছে অ্যাঞ্জোলা মার্কেলের দেশটি। মূলত এরাই এবার পঞ্চম শিরোপা জয়ের মিশনে তুরুপের তাস হবে। কোপা আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনা বিশ্ববাসীর কাছে অধিক গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। কেননা ফুটবলের পুত্র নামে পরিচিত দিয়েগো ম্যারাডোনা এ দেশেরই ফুটবলার ছিলেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো, ১৯৮৬ সালের পর দুবার ফাইনালে উঠলেও দুবারই জার্মানির বিপক্ষে হেরেছে আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপের গত আসরে মেসির আর্জেন্টিনা ১-০ গোলে হেরেছে। ফলে দলের তৃতীয় শিরোপা অধরাই রয়ে গেল। তবে এবার শিরোপা জয়ে আত্মবিশ্বাসী আর্জেন্টাইন কোচ জর্জ সাম্পাওলি। আশা করাটা হাস্যকর কিছু নয়! কেননা আর্জেন্টাইন দলে রয়েছেন বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি। ক্লাবের হয়ে এমন কোনো ট্রফি বাকি নেই, যা তিনি জেতেননি। শুধু বাকি রয়েছে বিশ্বকাপ। রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলের হয়ে মেসির সঙ্গে তুরুপের তাস হবেন সার্জিও অ্যাগুয়েরো, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, গঞ্জালো হিগুয়েন, পাউলো দিবালার মতো তারকারা।

রাশিয়া বিশ্বকাপে সবচেয়ে তারকাসমৃদ্ধ দল হলো ফ্রান্স। লুজনিয়াকি, সোচিসহ প্রভৃতি স্টেডিয়ামগুলো ফ্রান্সের হয়ে গোল করে দর্শক গ্যালারিকে আনন্দে মাতাবেন অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান, পল পগবা, কিলিয়ান এমবাপ্পে, উসমান ডেম্বেলে এবং ওলিবার জিরার্ডের মতো জনপ্রিয় ফুটবল তারকারা। এসব ফুটবলার নিঃসন্দেহে ফ্রান্সের তুরুপের তাস। বিশ্বের বিভিন্ন ক্লাবগুলোতে দুর্দান্ত ফুটবল খেলে যাচ্ছেন ফরাসিরা। সদ্য শেষ হওয়া উয়েফা ইউরোপা লিগে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে শিরোপার স্বাদ এনে দিয়েছেন গ্রিজম্যান। আর ম্যানইউর হয়ে ইংলিশ ক্লাব মাতিয়ে রাখছেন পগবা। এ দিকে ফ্রান্সের ১৯ বছর বয়সী উদীয়মান ফুটবলার কিলিয়ান এমবাপ্পে তো ফর্মে তুঙ্গে রয়েছেন। ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে করেই যাচ্ছেন একের পর এক গোল। সেই সুবাদে ২০১৭-১৮ মৌসুমে শিরোপা নিশ্চিত হয়েছে পিএসজির। ১৯৬৬ সালে ঘরের মাটিতে শিরোপা জেতার পর ফুটবলের বিশ্বমঞ্চে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি ইংল্যান্ড ফুটবল দলকে। তবে ফের একবার হুঙ্কার দিয়ে উঠেছে ইংলিশরা। ’৬৬-এর পদাঙ্ক ফের একবার অনুসরণ করতে চাই গ্যারেথ সাউটগেটের শিষ্যরা। রাশিয়া বিশ্বকাপে অন্যতম ফেবারিটের তালিকায় রয়েছে ইংল্যান্ড। বিশ্বমঞ্চে এবার প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগকে পরাস্ত করে দলকে একের পর এক গোল উপহার দেবে অধিনায়ক হ্যারি কেন, ড্যানি ওয়েলব্যাক, মার্কোস রাসফোর্ড, জেমি ভার্দি এবং জেসি লিনগার্দের মতো তারকারা। বর্তমান বিশ্বে ফুটবল মানেই স্পেন এমন একটা ধারণা চলে এসেছে। স্প্যানিশ লা-লিগাকে ঘিরে মেতে উঠেছে পুরো ফুটবল বিশ্ব। বিশ্ববাসীকে ফের একবার মাতাতে প্রস্তুত স্প্যানিশ ফুটবল তারকারা। রাশিয়া বিশ্বকাপে দ্বিতীয় শিরোপার স্বপ্ন দেখছে স্পেনবাসী। বিশ্বকাপের একুশতম আসরে স্পেনের তুরুপের তাস হবেন ডেভিড সিলভা, ইসকো, দিয়েগো কস্তা, মার্কো অ্যাসেনসিও, ল্যাগো অ্যাসপাস এবং আদ্রেস ইনিয়েস্তারা মতো অভিজ্ঞ ফুটবলাররা। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বরে থাকা বেলজিয়ামকে নিয়ে ইতোমধ্যেই অনেকে অনেক কথা বলা শুরু করে দিয়েছেন। কেউ আবার তাদের শিরোপা জয়ে এগিয়েও রাখছেন। ইতিহাসে কোনো শিরোপা অর্জন করতে না পারলেও সম্প্রতি দারুণ ফর্মে রয়েছেন এ দলের ফুটবলাররা। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষককে প্রতিহত করার জন্য বেলজিয়ামের দায়িত্বে থাকবেন ম্যানইউ তারকা রোমেলু লুকাকু, দলীয় অধিনায়ক এডেন হ্যাজার্ড, ম্যানসিটি তারকা কেভিন ডি ব্রুইন এবং দেরিস মার্টিন্সরা। পর্তুগাল জাতীয় দল এখনো কোনো শিরোপা জিততে না পারলেও হাজারো ভক্ত পর্তুগিজ ফুটবল সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকো সমর্থন করে যাচ্ছেন। সিআর সেভেন খ্যাত এ ফুটবলার নিঃসন্দেহে ইউরোপ মহাদেশের এ দেশটির তুরুপের তাস। তার নেতৃত্বেই ইউরো কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে পর্তুগিজরা।

বিশ্বকাপের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়ে ফুটবল দল রাশিয়া বিশ্বকাপে তাদের তৃতীয় শিরোপার স্বপ্ন দেখছে। আর এ যাত্রায় যারা উরুগুয়ের সারথি হবেন তারা হলেন- লুইস সুয়ারেজ, এডিনসন কাভানি, ম্যাক্সি গোমেজ এবং ক্রিশ্চিয়ান রদ্রিগেজ।

বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার কয়েকদিন আগে স্পেনকে পেছনে ফেলে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের আট নম্বরে উঠে এসেছে পোল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল। রাশিয়া বিশ্বকাপে ভালো কিছু করার স্বপ্ন দেখছে পোলিশরা। পোলিশ দলে তুরুপের তাস হওয়ার যোগ্যতা রাখেন অধিনায়ক রবার্ট লেভোনডস্কি, আর্কিদিউস মিলিক, কামিল ক্রোসিকির মতো আলোচিত তারকারা। সম্প্রতি আলোচিত আরেক ফুটবল দল হলো কলম্বিয়া। ২০১০ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ৬ গোল করে গোল্ডেন বুট জেতেন এ দেশের ফুটবল তারকা হামেস রদ্রিগেজ। চলতি বিশ্বকাপে তিনি হবেন কলম্বিয়ান তুরুপের তাস। এ ছাড়া রয়েছেন রাদামেল ফেলকাও এবং মিগুয়েল বোরজারা। ইন্টারনেট।

আরও সংবাদ...'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj