ফুটবল উৎসব

শুক্রবার, ১৫ জুন ২০১৮

আর মাত্র কয়েক দিন পরই দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থের পর্দা ওঠবে। ১৪ জুন বিশ^কাপের কিক অফের বাঁশি বাজার আগেই ফুটবলপ্রেমীদের স্নায়ুর উত্তেজনা বেড়ে চলছে। বেড়ে উঠছে পালস রেটও। যোজন যোজন দূরে রাশিয়ায় শুরু হতে যাচ্ছে বিশ^কাপ ফুটবল। আর এত দূরের বাংলাদেশে বসেই চলছে বিশ^কাপ উদযাপনের জোর প্রস্তুতি। লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা বিশ^কাপে না থাকলেও এ দেশের হাটে-মাঠে-ঘাটে, বাড়ির ছাদে, উঠানে পত পত করে উড়ছে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, স্পেন, জার্মানি, ইংল্যান্ড, ফ্রান্সসহ অনেক দেশের পতাকা। জার্সি কেনার ধুম চলছে। তরুণ-তরুণী তো বটেই শিশু কিংবা মধ্যবয়সীরাও বাদ থাকতে নারাজ বিশ^কাপ উন্মাদনার এই রঙিন ছোঁয়া থেকে। ঘরে-বাইরে চলছে কোন দল সেরা এই নিয়ে তর্কযুদ্ধ। অফিস কি ক্যাম্পাস, বন্ধুদের আড্ডা বা চায়ের দোকান সবখানেই চলছে বিশ^কাপ ফুটবল নিয়ে আলোচনা।

এবার রাশিয়ার ১২টি স্টেডিয়ামে টেলস্টার-১৮ নামক বল দিয়ে বিশ^কাপের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে। এ বলটি তৈরি করেছে অ্যাডিডাস। উদ্বোধনী এবং ফাইনাল ম্যাচের ভেন্যু মস্কোর লুজনিয়াকি স্টেডিয়াম। ১৯৩০ সালে শুরু হওয়া বিশ^কাপ ফুটবলের এটি হবে ২১তম আসর। দ্বিতীয় বিশ^যুদ্ধের কারণে দুটি বিশ^কাপ (১৯৪২ ও ১৯৪৬) অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। রাশিয়া বিশ^কাপে খেলার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে ক্ষুদ্র রাষ্ট্র আইসল্যান্ড ও পানামার। ফুটবল মহাযজ্ঞে এবারই প্রথম খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে দল দুটো। অবিশ^াস্য শোনালেও সত্যি যে, ইউরোপের দেশ আইসল্যান্ডের জনসংখ্যা মাত্র ৩ লাখ ৩৫ হাজার! জনসংখ্যার হিসাবে বিশ^কাপের সবচেয়ে ছোট দল আইসল্যান্ড। ওদিকে কনকাকাফ অঞ্চল থেকে উঠে আসা মধ্য আমেরিকার দেশ পানামার আয়তন প্রায় ৭৫ হাজার বর্গ কিলোমিটার এবং জনসংখ্যা প্রায় ৪০ লাখ।

লড়াইটা মাঠের ২২ জনের। তবে মাঠের বাইরে বিশ^কাপ দখলের এই মহারণের প্রস্তুতি থেকে শুরু করে পরিকল্পনা সবই করেন দলের প্রশিক্ষকরা। এমনকি মাঠের নব্বই মিনিটের লড়াইয়েও থাকে তাদের মস্তিষ্ক উৎসরিত নানা পরিকল্পনা ও দ্রুত কৌশল পাল্টানোর খেলা। জার্মানির কোচ জোয়াকিম লো, ব্রাজিলের তিতে, পর্তুগালের ফার্নান্দো সান্তোস, আর্জেন্টিনার জর্জ সাম্পাওলি, বেলজিয়ামের রবার্তো মার্টিনেজ, ফ্রান্সের দিদিয়ের দেশ্যামরা এবারো মাঠের বাইরে থেকে কলকাঠি নাড়বেন। ব্রাজিলের ষষ্ঠ বিশ^কাপ জয়ের স্বপ্নযাত্রায় মূল ভূমিকাটা পালন করতে হবে নেইমারকে। নিজেকে কিংবদন্তিদের কাতারে নিয়ে যেতে আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ^কাপ জিততে হবে মেসিকে। রাশিয়া বিশ^কাপে স্পেন, জার্মানি এবং ফ্রান্সকে ফেবারিটের তালিকা থেকে বাদ দেয়ার অবকাশ নেই। তারুণ্যনির্ভর ইংল্যান্ড কি ১৯৬৬ সালের পনুরাবৃত্তি ঘটাতে পারবে? নাকি অন্য কেউ শিরোপা জিতবে তাই দেখার বিষয়।

এবার বিশ^কাপের অধিকাংশ ম্যাচ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১২টার মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে। যা ফুটবল অনুরাগীরা উপভোগ করতে পারবে। বিশ^কাপের উন্মাদনায় মাতোয়ারা হয়ে প্রিয় দলের জয়ে আনন্দ উৎসব করতে গিয়ে যেন কারো প্রাণ-প্রদীপ নিভে না যায়, আনন্দের মাত্রা যেন নিদিষ্ট গণ্ডির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে।

আরও সংবাদ...'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj