খেলোয়ার পরিচিতি

শুক্রবার, ১৫ জুন ২০১৮

মোহাম্মদ সালাহ

মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহ বর্তমান সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় একজন ফুটবলার। ২০১৭-২০১৮ মৌসুমে দুর্দান্ত পারফরমেন্সে ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে নিয়ে যান তিনি। কিন্তু ফাইনালে রিয়াল ডিফেন্ডার সার্জিও রামোসের ফাউলে ইনজুরিতে পড়ে যান এ মিসরীয় কিংবদন্তি। তাই বিশ্বকাপ অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছেন! প্রিমিয়ার লিগ এবং উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মিলিয়ে ৪২ গোল করা মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহকে আসন্ন রাশিয়া বিশ^কাপে মিস করতে চান না ফুটবলপ্রেমীরা। তবে সালাহ ভক্তদের জন্য সুখবরই শোনা যাচ্ছে। খুব শিগগিরই মাঠে ফিরবেন সালাহ। তবে দলের হয়ে প্রথম দুই ম্যাচে মাঠে নামতে না পারলেও পরবর্তী ম্যাচগুলো খেলতে পারবেন বলে আশা করা যায়। রাশিয়া বিশ্বকাপে ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে সালাহর মিসর। ‘এ’ গ্রুপে তাদের সঙ্গে রয়েছে স্বাগতিক রাশিয়া, উরুগুয়ে এবং সৌদি আরব।

এক নজরে

পুরো নাম : মোহাম্মদ সালাহ ঘালি

ডাক নাম : সালাহ

জন্ম : ১৫ জুন, ১৯৯২ সাল

পিতা : সালাহ ঘালি

স্ত্রী : ম্যাগি সালাহ

সন্তান : মাক্কা মোহাম্মদ (কন্যা)

বয়স : ২৬ বছর

উচ্চতা : ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি

ওজন : ৭১ কেজি

জার্সি : ১১

পজিশন : স্ট্রাইকার

ক্লাব : লিভারপুল

ধর্ম : ইসলাম

জাতীয়তা : মিসরীয়

সুয়ারেজ

বিশ^কাপ পথযাত্রায় সুয়ারেজের শুরুটা হয় দক্ষিণ আফ্রিকা মিশন দিয়ে। প্রথম বারের মতো বিশ^কাপ খেলতে এসেই বিতর্কিত হন বর্তমান বার্সেলোনার অন্যতম এ উইঙ্গার। ঘানা-উরুগুয়ের মধ্যকার কোয়ার্টার ফাইনালে নিশ্চিত হেরে যাওয়া ম্যাচ বাঁচান তিনি। জেনে-শুনে হাত দিয়ে বল ঠেকিয়ে ঘানাকে সেমিতে উঠার পথে বাধা সৃষ্টি করেন সুয়ারেজ। পরে পেনাল্টিতে জিতে ঘানাকে ফেলে সেমির টিকেট কাটে অস্কার তাবারেজের শিষ্যরা। এর চার বছরের পরের ইতিহাসটা তো আরো খারাপ। ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ^কাপে গ্রুপ পর্বের খেলায় ইতালির জর্জিও চিয়েল্লিনিকে কামর দিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। তবে সে সবে আর মনযোগ নেই সুয়ারেজের। এখন তিনি অনেকটা পরিণত।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

ছোটবেলা থেকেই ফুটবলের প্রতি টান ছিল রোনালদোর। সেই থেকেই তিনি বিশ^াস করতেন যে, তার দ্বারা ফুটবলে ভালো কিছু করা সম্ভব। তাই ধীরে ধীরে পড়ালেখার চেয়ে খেলার দিকেই বেশি মনোযোগ দিতে থাকেন। যার ফলটা ধীরে ধীরে বিশ^বাসী দেখতে শুরু করে। মাত্র ১৬ বছর বয়সে তিনি ড্রিবলিংয়ে দারুণ পারদর্শী হয়ে উঠেন। লিসবনের ম্যানেজার তার ড্রিবলিং গুণে মুগ্ধ হলে অচিরেই স্পোর্টিং লিসবন যুব ক্লাবে স্থান পান তিনি। তবে তার পূর্ণ বিকাশটা হয় ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। ১২.২৪ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে স্পোর্টিং থেকে ওল্ড ট্রাফোর্ডে যোগ দেন এই পর্তুগিজ। অল্প বয়সে নৈপুণ্যে ভরপুর খেলার মাধ্যমে বিশাল খ্যাতি অর্জন করেন তিনি। ওল্ড ট্রাফোর্ডে পাঁচ-ছয়টা মৌসুম খেলে তিনি যোগ দেন স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে।

ইস্কো

স্পেনের আক্রমণ ভাগের চোখের মণি হিসেবে দেখা হয় ইস্কোকে। তারকা ভর্তি টাইটানিকখ্যাত স্পেন দলটিতে দারুণ ফর্মে রয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের এ তারকা। বিশ্বকাপের ডাবল শিরোপা জয়ের আশায় রাশিয়ায় যাচ্ছে বর্তমান সময়ের অন্যতম শক্তিশালী স্প্যানিশ ফুটবল দল। এবারের আসরে বিশ্বকাপের মুকুট জেতার জন্য তারা হট ফেবারিট। আর স্প্যানিয়ার্ডদের রাশিয়া জয়ে ইস্কোর ভূমিকাটাও হতে পারে উজ্জ্বল। তিনি যে একুশতম বিশ্বকাপে ভালো কিছু করবেন তা বুঝা গেছে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচেই। মাস-তিনেক আগে দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করে দক্ষিণ আমেরিকার শক্তিশালী দলটির বিপক্ষে বড় ব্যবধানে জিততে সহায়তা করেন তিনি।

এক নজরে :

নাম : ফ্রান্সিসকো রোমান আলারকন স্যুয়ারেজ।

ডাক নাম : ইস্কো।

জন্ম : ২১ এপ্রিল ১৯৯২

জন্ম স্থান : বেনালমাদেনা, স্পেন।

উচ্চতা : ৫.৯ ফিট।

অবস্থান : অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার।

সন্তান : ফ্রান্সিসকো আলারকো কালডেরন।

জাতীয় দলের হয়ে গোল : ১০টি।

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে গোল : ৩২টি।

এন্তোনি গ্রিজম্যান

আসন্ন রাশিয়া বিশ^কাপে নিঃসন্দেহে ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশ্যামের সবচেয়ে বড় ভরসার নাম গ্রিজম্যান। বিশ^সেরার মূল মঞ্চে নামার আগে নিজ ক্লাব অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদকে চমৎকার এক ম্যাচ উপহার দেন ২৭ বছর বয়সী এই তারকা। ফাইনালে তার অসাধারণ পারফরমেন্সেই উয়েফা ইউরোপা লিগের শিরোপা নিজেদের করে নেয় দিয়েগো সিমেওনের শিষ্যরা। গত ১৬ মে ইউরোপা লিগের ৪৭তম আসরের ফাইনালে জোড়া গোল করেন গ্রিজম্যান। সব মিলিয়ে ক্লাব ফুটবলের ২০১৭-১৮ মৌসুমে এটি ছিল গ্রিজম্যানের ২৯তম গোল। গ্রিজম্যান কতটা দ্যুতি ছড়াচ্ছে তা বোঝা যায় স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার তাকে দলে নেয়ার আগ্রহ দেখে। ইউরোপিয়ান গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী স্বয়ং বার্সা তারকা লিওনেল মেসিই নাকি গ্রিজম্যানকে কাতালান শিবিরে আনার কথা বলেছেন।

এক নজরে :

পূর্ণ নাম : এন্তোনি গ্রিজম্যান

জন্ম তারিখ : ২১ মার্চ, ১৯৯১

জন্মস্থান : ম্যাকন, ফ্রান্স

উচ্চতা : ১.৭৫ মিটার (৫ ফুট ৯ ইঞ্চি)

স্ত্রী : এরিকা সোফেরানা

সন্তান : মিয়া গ্রিজম্যান (জন্ম ২০১৬),

ভাই : থিয়ো গ্রিজম্যান,

বোন : মাউদ গ্রিজম্যান

পজিশন : ফরোয়ার্ড

বর্তমান দল : অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ, স্পেন।

জাতীয় দল : ফ্রান্স (৭ নম্বর জার্সি)।

লিওনেল মেসি

সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি।

৩০ বছর বয়সী এ আর্জেন্টাইনের পায়ের জাদুতে মুগ্ধ হয়ে আছে ফুটবল বিশ^। খেলছেন বিশে^র অন্যতম নামি ক্লাব বার্সেলোনায়। এ পর্যন্ত ৩টি বিশ^কাপে অংশ নেয়া মেসি রাশিয়া বিশ^কাপে চতুর্থবারের মতো অংশ নিচ্ছেন। সম্ভবত

শেষবারের মতোও।

এক পলকে মেসি

পুরো নাম : লিওনেল আন্দ্রেস মেসি কুচ্চিত্তিনি

জন্ম : ২৪ জুন, ১৯৮৭

স্ত্রী : আন্তনেলা রোকুজ্জো

তিন পুত্র : থিয়াগো, মাতেও এবং সিরো

জন্মস্থান : রোজারিও, সান্তা ফে, আর্জেন্টিনা

উচ্চতা : ১.৭০ মি (৫ ফুট ৭ ইঞ্চি)

মাঠে অবস্থান : আক্রমণভাগের খেলোয়াড়

বাবা : হোর্হে হোরাসিও মেসি

মা : সেলিয়া মারিয়া কুচ্চিত্তিনি

মেসির বড় দুই ভাই এবং একটি মাত্র ছোট বোন রয়েছে।

লুকা মড্রিচ

তৎকালীন যুগো¯øাভিয়ায় ১৯৮৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর লুকা মড্রিচ জন্মগ্রহণ করেন। তার জন্মের পাঁচ ছয় বছর পরই শুরু হয় ক্রোয়েশিয়ার স্বাধীনতা যুদ্ধ। যুদ্ধের বিস্তৃতি ঘটলে মড্রিচকে নিয়ে তার পরিবার সীমান্তবর্তী এলাকায় আশ্রয় নেয়। পরে হোটেল কোলোভারে উদ্বাস্তু হিসেবে তার পরিবারের সঙ্গে প্রায় সাত বছর অতিবাহিত করেন তিনি। এর কিছুদিন পর থেকে ফুটবল খেলা শুরু করেন মড্রিচ। তবে ফুটবলে তার হাতেখড়ি হয় এনকে জাদার নামক একটি ক্লাবে। সেখান থেকে ২০০৫-০৬ মৌসুমে তিনি ডিনামো জাগরেবের সঙ্গে দশ বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন।

এক নজরে :

নাম : লুকা মড্রিচ।

বয়স : ৩২ বছর।

উচ্চতা : ৫.৮ ফিট।

স্ত্রী : ভানজা বসনিক।

অবস্থান : মিডফিল্ড।

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ম্যাচ খেলেছেন : ১৬৬টি।

টটেনহ্যামের হয়ে ম্যাচ খেলেছেন : ১২৭টি।

জাগরেবের হয়ে ম্যাচ খেলেছেন : ৯৪টি।

নেইমার

২০১০ সালে ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হয় বর্তমান বিশে^র সবচেয়ে দামি ফুটবলার নেইমারের। ইতোমধ্যে ব্রাজিলের হয়ে ৮৩টি ম্যাচ খেলে ৫৩টি গোল করেছেন এ ফরোয়ার্ড। ২০১৭ সালে ফরাসি ক্লাব পিএসজিতে যোগ দেয়া নেইমার আগের চার মৌসুম খেলেছেন স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে। কাতালান ক্লাবটির হয়ে নেইমারের পারফরমেন্স ছিল দুর্দান্ত। ১২৩ ম্যাচে করেছেন ৬৮টি গোল। এ ছাড়া পিএসজির হয়েও নেইমারের পারফরমেন্স নজর কেড়েছে সবার। এখন পর্যন্ত পিএসজির হয়ে ২০ ম্যাচে করেছেন ১৯ গোল। গোল করার মতো গোল অ্যাসিস্ট করার ক্ষেত্রেও সমান দক্ষ নেইমার। মাঠে তার উপস্থিতিই দলকে বাড়তি আত্মবিশ^াস জোগায়। ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ^কাপে ব্রাজিল কোচ তিতের মূল ভরসাও নেইমার। তাকে ঘিরেই ষষ্ঠবারের মতো বিশ^কাপ জেতার স্বপ্ন দেখছে ব্রাজিলিয়ানরা। পলিনহো, কুতিনহো, মার্সেলোদের মতো সতীর্থদের যথাযথ সঙ্গ ফেলে এবারের বিশ^কাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার বেশ ভালো সম্ভাবনা রয়েছে নেইমারের।

টমাস মুলার

রাশিয়া বিশ^কাপে জোয়াকিম লোর দলে তারকা খেলোয়াড়ের অভাব নেই। তবে সবাইকে পেছনে ফেলে বিশেষ করে নজর কাড়বেন যিনি তিনি হলেন স্ট্রাইকার টমাস মুলার। রাশিয়া বিশ^কাপে জোয়াকিম লোর মূল ভরসাও যে টমাস মুলার তাতে কোন সন্দেহ নেই।

টমাস মুলার রাশিয়া বিশ^কাপে খেলতে যাবেন একটি রেকর্ডকে সামনে রেখে। এখন পর্যন্ত মোট ২টি বিশ^কাপ খেলেছেন টমাস মুলার। বিশ^কাপের ১৩টি ম্যাচে খেলেছেন তিনি। যেখানে এ জার্মান স্ট্রাইকার গোল করেছেন মোট ১০টি। অন্যদিকে এখন পর্যন্ত বিশ^কাপের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডটি দখলে রেখেছেন সাবেক জার্মান স্ট্রাইকার মিরো¯øাভ ক্লোসা। ক্লোসার গোলসংখ্যা ১৬টি। সে হিসেবে রাশিয়া বিশ^কাপে ৭টি গোল করতে পারলেই স্বদেশি মিরো¯øাভ ক্লোসাকে পেছনে ফেলে বিশ^কাপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় শীর্ষে চলে আসবেন টমাস মুলার।

হ্যারি কেন

ইংল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দলের ফরোয়ার্ড হ্যারি কেন ১৯৯৩ সালের ২৮ জুলাই ইংল্যান্ডের ওয়ালামস্টো শহরে জন্মগ্রহণ করেন। সদ্য শেষ হওয়া ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০টি গোল করে সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার হওয়ার যোগ্যতা রাখেন তিনি। ২০০৯ সালে ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যামে যুক্ত হওয়ার পর এখন পর্যন্ত ১৫০টি ম্যাচ খেলেছেন হ্যারি কেন। গোল করেছেন ১০৮টি। ইংল্যান্ডের বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দলে খেলার পর ২০১৫ সালে জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পান তিনি। ২৪টি ম্যাচ খেলে করেছেন ১৩টি গোল। দুর্দান্ত ফর্মে থাকায় ইংলিশ কোচ গ্যারেথ সাউদগেট হ্যারি কেনকে রাশিয়া বিশ^কাপে অধিনায়কের দায়িত্ব দিয়েছেন।

এক নজরে

পুরো নাম : হ্যারি এডওয়ার্ড কেন

ডাক নাম : হ্যারি কেন

জন্ম তারিখ : ১৯৯৩ সালের ২৮ জুলাই

জন্ম স্থান : ওয়ালামস্টো, ইংল্যান্ড।

উচ্চতা : ৬ ফুট ২ ইঞ্চি

বান্ধবী : ক্যাটি গোডল্যান্ড

সন্তান : এভি জেনি কেন

ক্লাবের হয়ে খেলেন : টটেনহ্যাম

জার্সি নম্বর : ১০

ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোল : ১৫০টি ও ১০৮টি।

দলের হয়ে ম্যাচ ও গোল : ২৪টি ও ১৩টি।

রদ্রিগেজ

২০১৪ সালে বিশ^কাপের আসর বসেছিল ফুটবলের দেশ ব্রাজিলে। সে বছর পঞ্চমবারের মতো বিশ^কাপে অংশ নেয় দক্ষিণ আমেরিকার দেশ কলম্বিয়া। কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে ২-১ গোলে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল কলম্বিয়াকে। এখন পর্যন্ত এটিই বিশ^কাপে কলম্বিয়ানদের সর্বোচ্চ সফলতা। কেননা ২০১৪ সালের আগে আরো ৪টি বিশ^কাপে অংশ নিলেও একবারও কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত যেতে পারেনি দক্ষিণ আমেরিকার দেশটি। ২০তম বিশ^কাপে কলম্বিয়ানদের কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার নেপথ্যে যার ভূমিকা সবচেয়ে বেশি তিনি হলেন ফরোয়ার্ড হামেস রদ্রিগেজ। ব্রাজিল বিশ^কাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন তিনি। ৫ ম্যাচে করেছেন ৬ গোল। চার বছর পর রাশিয়ায় বসতে যাচ্ছে বিশ^কাপের ২১তম আসর। রাশিয়া বিশ^কাপে কলম্বিয়ানদের প্রত্যাশা নিংসন্দেহে আগের চেয়ে বেশি। তবে গত বিশ^কাপের মতো আসন্ন রাশিয়া বিশ^কাপেও কলম্বিয়ানদের মূল ভরসা হামেস রদ্রিগেজ।

সাদিও মানে

রাশিয়া বিশ্বকাপে এবার সেনেগালের সেরা ফরোয়ার্ড সাদিও মানেকে ঘিরে ভালো কিছুর স্বপ্ন দেখছে দেশটির জনগণ। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের গোলকিপারকে একাই ব্যস্ত রাখেন এ লিভারপুল তারকা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ২০১৭-১৮ সেশনে ১০টি গোল করতে সক্ষম হন লিভারপুলের এ ফুটবলার। ২০১৬ সালে ইংলিশ ক্লাব সাউদাম্পটন থেকে লিভারপুলে যোগদান করেন মানে। এরপর লিভারপুলের জার্সি গায়ে মাঠে প্রতিনিধিত্ব করে আসছেন তিনি। দলের হয়ে এ পর্যন্ত ৫৬ ম্যাচে ২৩টি গোল করতে সক্ষম হন সাদিও মানে।

এক নজরে :

পুরো নাম : সাদিও মানে

ডাক নাম : মানে

জন্ম তারিখ : ১০ এপ্রিল , ১৯৯২ সাল

জন্মস্থান : সধিউ, সেনেগাল

বয়স : ২৬

উচ্চতা : ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি

ওজন : ৬৯ কেজি

ভাইবোন : নেই

স্ত্রী : (অবিবাহিত)

জার্সি নম্বর : ১০/১৯

পজিশন : স্ট্রাইকার

ধর্ম : ইসলাম

বেস্ট ফ্রেন্ড : ফিলিপে কুতিনহো (ব্রাজিল)

প্রিয় শখ : মুভি দেখা, গেইম খেলা এবং সাঁতার কাটা

প্রিয় খেলোয়াড় : রোনালদিনহো, ম্যারাডোনা

প্রিয় অভিনেতা : লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও

প্রিয় পলিটিশিয়ান : বারাক ওবামা

প্রিয় শিল্পী : জাস্টিন বিবার ।

আরও সংবাদ...'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj