চেক বা স্ট্রাইপের যত কথা

রবিবার, ১১ মার্চ ২০১৮

** মাহাবুবা মিতু **

নতুন ট্রেন্ড আসে, তা চলে গিয়ে আরেক নতুন ফ্যাশন আসে। ট্রেন্ডের এই আসা-যাওয়া সবই ঘটে একটা ফ্যাশন বৃত্তের মাধ্যমে। আর এ ফ্যাশন বৃত্তের মধ্যে যুগে যুগে বদলে চলে ট্রেন্ড। তারই বাস্তবতায় ব্র্যান্ড শোরুম থেকে শুরু করে বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসের ডিজাইনারদের চিন্তা করতে হয় নতুন কিছু নিয়ে। ফ্যাশন সচেতনদের চাহিদা অনুযায়ী প্রত্যেক সিজনেই বের করে আনতে হয় নতুনত্ব। তবে রঙিন সব পোশাকের ক্যানভাসের ভিড়েও দীর্ঘ সময় ধরে জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছে চেক আর স্ট্রাইপ।

স্ট্রাইপ ডিজাইনগুলোর রয়েছে বিভিন্ন ধরনের নাম। যেমন : পিনস্ট্রাইপ, রোমানস্ট্রাইপ, পেন্সিলস্ট্রাইপ, ক্যান্ডি স্ট্রাইপ, বেঙ্গলস্ট্রাইপ ইত্যাদি। তবে এদেশে চেক এর ডিজাইন গ্রামীন চেকের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা পায়। পোশাকের পাশাপাশি গামছা বা লুঙ্গিতেও চেক ফ্যাশন বেশ জনপ্রিয়। অন্যদিকে জিংহ্যাম চেক হচ্ছে সুতির কাপড়ে বোনা চেক প্যাটার্ন। যদিও আগে এটি ছিল স্ট্রাইপ আকারে। তবে আঠারো শতক থেকে ম্যানচেস্টারের মিলগুলোতে জিংহ্যাম চেক প্যাটার্নেই তৈরি হতো। আর এখন ফ্যাশন জিংহ্যামকে এক বিশেষ চেক স্টাইলকেই বোঝায়। সেটা হল সাদার মধ্যে যে কোন একটা রঙের মিশেলের চেক।

ফ্যাশন ট্রেন্ডগুলো সাধারনত বিভিন্ন ধরনের সেলিব্রের্টিদের মাধ্যমেই জনপ্রিয়তা লাভ করে। তেমনিভাবে বলা যায় যে, ২০১৮ সালে চেক- স্ট্রাইপের নতুনত্ব এনেছে বলিউড অভিনেত্রী হুমা কুরারেশী এর ল্যাকমী ফ্যাশন উইকের(২০১৮) পোশাকের মাধ্যমে।

মেয়েদের ফ্যাশনে বছর কয়েক আগেও চেক বা স্ট্রাইপ মানেই ফরমাল অফিস পোশাকেই বোঝানো হতো। অবশ্য সে ভাবনা এখন সেকেলে। অফিস কিংবা পার্টি সব কিছুতেই সমান মানানসই চেক বা স্ট্রাইপ। তাই পশ্চিমা সাজেই হোক বা খাঁটি দেশি পোশাক হোক-সবার পছন্দ এধরণের পোশাকী ক্যানভাস। মেয়েদের স্কার্ট, ব্লুাউজ, টপ, কুর্তি, স্কার্ফ, কামিজ, পায়জামা-প্রায় সব পোশাকেই থাকছে চেক বা স্ট্রাইপের ছোঁয়া। সরু কিংবা মোটা, লম্বা কিংবা চওড়া, সাদা-কালো, লাল-নীল নানা রকমের স্ট্রাইপ শোভা পাচ্ছে এখনকার পোশাকে।

ফ্যাশন দুনিয়ায় সবাই ঝুঁকছে নতুন ট্রেন্ড বা প্যাটার্নের দিকে। পোশাক-আশাক নিয়ে চিন্তাভাবনা, যথাযথ মাপ ও ডিজাইনের পোশাকের আপডেট পেতে ভরসা ব্র্যান্ড স্টোরগুলোর সোশ্যাল মিডিয়া পেইজগুলো।

ফ্যাশন জগতে এখন চলছে প্রথা ভাঙার চল। চেক বা স্ট্রাইপের জগতে এসেছে নতুন মিসম্যাচড প্যাটার্ন। মোটা বা চিকন ধাঁচের স্ট্রাইপে মার্জিত রংয়ের ব্যবহার পোশাকগুলোকে করেছে ট্রেন্ডি। তুলনামূলক চিকন স্ট্রাইপ ব্যবহার করা হয়েছে লম্বা গাউন কামিজ, কুর্তি কিংবা পায়জামায়। এতেই পোশাকে চলে এসেছে গর্জিয়াস লুক।

রাতের জমকালো অনুষ্ঠানের জন্য উজ্জ্বল রঙের সঙ্গে গাঢ় রঙের ট্রিমিংস, পোশাকের উপরের অংশে উজ্জ্বল আর নিচের অংশে গাঢ় হেভি ভলিউম ড্রেস বা স্কার্ট এদের লুকে নিয়ে আসে আভিজাত্য। গারারা, লেহেঙ্গা, সারারা, ভলুমনাস লং ইভনিং ড্রেস- এসব পোশাকে জমকালো ভারী কাজের এম্ব্রয়ডারি ব্যবহার করা যেতে পারে। চেক বা স্ট্রাইপের এপ্লিকের সাথে সারফেস অর্নামেন্টেশনে ভারী জারদৌসি, গোল্ড ওয়ার্ক, থ্রি ডাইমেনশন এম্ব্রয়ডারি, স্ট্যাম্প ওয়ার্ক বা একরঙা কাপড়ের ব্যবহার পোশাকের জৌলুশ বাড়ানো যেতে পারে।

ভিন্নতা এসেছে উপস্থাপনায়, সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে কাপড়ের মধ্যে চেক একং স্ট্রাইপ এর ভ্যালু এডিশনে। গরমের এ সময়েও লং পোশাকের ট্রেন্ড চলছে। তাই পোশাকগুলোতে বিভিন্নভাবে চেক এবং স্ট্রাইপ ডিজাইনের কাপড়গুলোর ছোঁয়া রাখা হয়েছে। আবার কখনো পুরো চেক অথবা স্ট্রাইপ ডিজাইনের পোশাকের মধ্যে হালকা এম্বব্ররডারির ব্যবহার থাকছে। বিভিন্ন ডিজাইনের বোতাম, পকেট,কলার, ¯িøভ সংযুক্ত করা হয়েছে পোশাকগুলোকে আরো বেশি আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য। চেক এবং স্ট্রাইপ ডিজাইনের কাপড়গুলো পোশাকে আড়াআড়ি, পাশাপাশি এবং সোজাভাবে বিভিন্ন বৈচিত্র্যের সাথে সাজানো হয়েছে। যার মাধ্যমে ফুটে উঠেছে নতুনত্ব এবং আকর্ষণীয় মনকারা ডিজাইনারদের পুষ্পিত চিন্তাধারা।

চেক এবং স্ট্রাইপ ডিজাইনগুলো তৈরি হচ্ছে লিলেন, পলিস্টার, তাঁত ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের কাপড়ে। নির্দিষ্ট ডিজাইনের প্যাটার্নে সুতাগুলো সাঁজিয়ে টেক্সটাইলগুলোতে তৈরি হচ্ছে এই অভিনব ডিজাইনের কাপড়গুলো।

বাজার ঘুরে দেখা গেল, পুরো ক্যানভাসেই চেক বা স্ট্রাইপের নকশা করা-এমন পোশাক যেমন আছে, তেমনি একটা পোশাকের বিভিন্ন অংশে চেক বা স্ট্রাইপের নকশা করা-এমন পোশাকও মিলছে। একরঙা কিছু কুর্তি বা গাউন স্টাইল শার্ট কলারের কামিজ আছে, যেগুলোর সামনের অংশে দুই পাশে কাঁধের ঠিক নিচে ভিন্ন রংয়ের স্ট্রাইপ নকশার কাপড় জুড়ে দেওয়া। বডি একরঙা আর বটমলাইনে ভিন্ন রংয়ের স্ট্রাইপের নকশা-এমন কামিজও মিলবে। কিছু কুর্তি বা কামিজের কোমর থেকে নিচের দিকে মোটা ধাঁচের সমান্তরাল স্ট্রাইপ আর একেবারে নিচের দিকটায় আবার লম্বালম্বি স্ট্রাইপের নকশা ব্যবহার করা হয়েছে। কিছু টপসের বডির দুই পাশে স্ট্রাইপের নকশা। আবার কিছু ফুল¯িøভ টপের বডি স্ট্রাইপের, আর হাতা ভিন্ন রংয়ের কাপড়ে করা। একরঙা কিছু কুর্তি আছে, যেগুলোর সামনের অংশে দুই পাশে কাঁধের ঠিক নিচে ভিন্ন রংয়ের স্ট্রাইপ নকশার কাপড় জুড়ে দেওয়া। আবার স্ট্রাইপের ফাঁকে ফাঁকে একরঙা কাপড় বা ছোট ছোট প্রিন্ট কিংবা পলকা ডট ব্যবহার করা টপও আছে।

সোজা স্ট্রাইপ ডিজাইনের কাপড়গুলো হিউম্যান ফিগারকে লম্বা এবং চিকন দেখাতে সাহায্য করে। পাশাপাশি স্ট্রাইপ ডিজাইনের কাপড়গুলোতে হিউম্যান ফিগারকে একটু মোটা দেখায়, এটা স্ট্রাইপ ডিজাইনের ফেব্রিকগুলোর একটি বিশেষত্ব। স্ট্রাইপ ডিজাইনগুলোর রয়েছে বিভিন্ন ধরনের নাম। যেমন : পিনস্ট্রাইপ, রোমানস্ট্রাইপ, পেন্সিলস্ট্রাইপ, ক্যান্ডি স্ট্রাইপ, বেঙ্গলস্ট্রাইপ ইত্যাদি। তবে এদেশে চেক এর ডিজাইন গ্রামীন চেকের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা পায়। পোশাকের পাশাপাশি গামছা বা লুঙ্গিতেও চেক ফ্যাশন বেশ জনপ্রিয়। অন্যদিকে জিংহ্যাম চেক হচ্ছে সুতির কাপড়ে বোনা চেক প্যাটার্ন। যদিও আগে এটি ছিল স্ট্রাইপ আকারে। তবে আঠারো শতক থেকে ম্যানচেস্টারের মিলগুলোতে জিংহ্যাম চেক প্যাটার্নেই তৈরি হতো। আর এখন ফ্যাশন জিংহ্যামকে এক বিশেষ চেক স্টাইলকেই বোঝায়। সেটা হল সাদার মধ্যে যে কোন একটা রঙের মিশেলের চেক।

ফ্যাশন ট্রেন্ডগুলো সাধারনত বিভিন্ন ধরনের সেলিব্রের্টিদের মাধ্যমেই জনপ্রিয়তা লাভ করে। তেমনিভাবে বলা যায় যে, ২০১৮ সালে চেক- স্ট্রাইপের নতুনত্ব এনেছে বলিউড অভিনেত্রী হুমা কুরারেশী এর ল্যাকমী ফ্যাশন উইকের(২০১৮) পোশাকের মাধ্যমে। এভাবেই বিভিন্ন স্বনামধন্য ডিজাইনারদের তৈরি করা পোশাকগুলো বিভিন্ন সেলিব্রের্টিরা পরছেন তারপর ব্রান্ডগুলো আরো অভিনব স্টাইলে ডিজাইনগুলোকে প্রকাশ করে চলেছে। আর এভাবেই ২০১৮ সালটা সেজেছে স্ট্রাইপ এবং চেক এর অভিনব ডিজাইনে।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj