শীতার্ত বুনো রাত

শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

** আল-মাসুদ হক মিঠুল **

জানালার সিঁদ কাটে শীতার্ত বুনো রাত,

হাওয়ার গর্জনে বেড়ে যায় বুকের জমানো ব্যথা।

কুয়াশা মাখা মেঘের কোলে উঁকি দেয় চাঁদ

অবিরত পাহারায় থাকে জোনাকির দল;

অপ্রত্যাশিত বেড়ে যায় বুকের কাঁপন।

শূন্যতায় ঘোর লাগে,

বিস্ময় জাগে রাতের পোড়া চোখে,

চেয়ে থাকে ডেকে চলে

এক পাল শীতে কাঁপা কুকুর আর ঝিঁঝি পোকার দল।

বাহিরে বাদুড় ডানা ঝাপটায়,

কলা পাতায় খায় দোল রেখে যায় পায়ের ছাপ-

তবু থামে না রাতের আঁধারে শিশিরের দাপট,

দীর্ঘ থেকে দীর্ঘ হতে থাকে অপেক্ষার প্রহর,

অনবরত ঝরে পড়ে চোখের নোনা জল।

বেদনাকে বলি কেঁদো না,

শুকিয়ে যাক শোকের সাগরে

বিলীন হয়ে যাক সাজানো সুখের ঘর।

শীতার্ত বুনো রাতের শেষে

আসুক আর একটি নতুন ভোর,

ঝলমলিয়ে উঠুক সোনা ঝরা রোদ্দুর।

:: চাপার হাট, লালমনিরহাট

পাঠক ফোরাম'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj