ভারপ্রাপ্তদের ভারে ভারাক্রান্ত পোরশা উপজেলা প্রশাসন

শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭

পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি : পোরশা উপজেলা প্রশাসনে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের ভারে এখন ভারাক্রান্ত হয়ে পড়েছে। এতে প্রশাসনিক কার্যক্রম খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে। উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ পদ উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, সমাজসেবা কর্মকর্তা, বিআরডিবি কর্মকর্তা ও যুব উন্নয়ন কর্মকর্তাসহ ১০টি গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের দাপ্তরিক প্রধান কর্মকর্তার কাজ চলছে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে। এদের মধ্যে অনেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনও করে আসছেন। যে কারণে একের অধিক উপজেলার দপ্তরের প্রধান হয়ে কাজ করতে হিমশিম খাচ্ছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা। এ কারণে স্থানীয় জনসাধারণকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। সরেজমিন উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে গিয়ে জানা গেছে, পোরশা উপজেলায় দীর্ঘদিন ধরে অনেকগুলো পদ শূন্য। এসব শূন্য পদের বিপরীতে কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে অধীনস্তরা বা সমপদের অন্য পার্শ্ববর্তী উপজেলার কর্মকর্তারা অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। চলতি বছরের অক্টোবর মাসে উপজেরা নির্বাহী কর্মকর্তা ফিরোজ মাহমুদ বিভাগীয় প্রশিক্ষণে ঢাকায় যান। তার অবর্তমানে এ গুরুত্বপূর্ণ পদটি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন পার্শ্ববর্তী নিয়ামতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সালেহ মো. মাহফুজুল আলম। তবে তিনি প্রশিক্ষণ শেষ করে গত মঙ্গলবার থেকে নিয়মিত তার অফিস করছেন।

উপজেলার ভূমি কর্মকর্তা পদটি দীর্ঘ ৬ বছর ধরে শূন্য রয়েছে। ২০১২ সালের ১৯ এপ্রিল সহকারী ২কমিশনার (ভূমি) সাইদুজ্জামান অন্যত্র বদলি হয়ে যাওয়ার পর গুরুত্বপূর্ণ এ পদটি শূন্য হয়ে যায়। তবে বিভিন্ন সময়ে এ উপজেলায় যোগদানকৃত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা এ পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ভূমি কর্মকর্তা না থাকায় দীর্ঘদিন ধরে জমিজমার গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে পারছেন না এখানকার জনসাধারণ। প্রায় ১ বছর আগে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম অন্যত্র বদলি হয়ে যাওয়ার পর থেকে পদটি শূন্য হয়ে গেছে। এ পদে পতœীতলা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এখানে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার পদটি ৭ বছর ধরে শূন্য। ২০১০ সালের ১০ অক্টোবর যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বদলি হওয়ার পর থেকে অদ্যবধি আলম আলী এ পদে ভারপ্রাপ্ত যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করে আসছেন। প্রায় ২ বছর আগে পোরশা উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সাইদুর রহমান বদলি হওয়ার পর থেকে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন মহাদেবপুর উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা মোহতাসিম বিল্লাহ। উপজেলা মৎস্য দপ্তর প্রায় ২ বছরের অধিক সময় ধরে চলছে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে। ২০১৫ সালে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এলিজা খাতুন রাজশাহীর বাঘমারায় বদলি হওয়ার পর থেকে এ পদে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন আইয়ুব আলী। উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ৩ মাস আগে রাজশাহীর মোহনপুরে বদলি হয়ে যাওয়ার পর থেকে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন আলাউদ্দিন আলী। প্রায় ৭ বছর ধরে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে চলছে উপজেলা পরিসংখ্যান দপ্তর। উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম ২০১১ সালের ২৭ ডিসেম্বর পোরশা থেকে বদলি হন। তখন থেকে অদ্যাবধি উপজেলা ভারপ্রাপ্ত পরিসংখ্যান কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন অমূল্য চন্দ্র ও বিআরডিবি কর্মকর্তা বদলি হওয়ায় চলতি বছরের অক্টোবর মাস থেকে উপজেলা বিআরডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন শামীম হোসেন এবং প্রায় ২ বছর থেকে আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা। উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা ২০১৫ সালের নভেম্বর মাসে বদলি হওয়ার পর থেকে এ পদে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন শাহীনা আক্তার।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj