ধুনটে সালিশি বৈঠকে মারধরে ভিক্ষুকের মৃত্যু

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি : ধুনট উপজেলায় সালিশি বৈঠকে ভাতিজার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগের প্রতিবাদ করায় মারধরে আব্দুর রশিদ (৬০) নামে এক ভিক্ষুক নিহত হয়। গত রোববার রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ভিক্ষুক আব্দুর রশিদ উপজেলার বড়বিলা গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত আব্দুর রশিদ ভিক্ষাবৃত্তি করে চার সদস্যের পরিবার পরিজন নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। ঘটনার দিন রাতে ব্যাটারি চুরির অভিযোগে আব্দুর রশিদের ভাতিজা নুরুল ইসলামকে আটক করে প্রতিবেশী চান্দু মিয়ার বাড়িতে সালিশি বৈঠক করতে বসে ভাণ্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য রফিকুল ইসলাম ও তার লোকজন।

ইউপি সদস্য রফিকুল ও তার লোকজন আটককৃত নুরুল ইসলামকে চুরির অভিযোগ শিকার করার জন্য মারধর করেন। ভাতিজা চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিলেন না বলে দাবি করে আব্দুর রশিদ। এক পর্যায়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ওই সালিশি বৈঠকের লোকজন আব্দুর রশিদকে মারধর করে। ঘটনাস্থলেই নিহত হন আব্দুর রশিদ। পরে তারা রাতেই আব্দুর রশিদের লাশ বাড়ির পাশে রাস্তার ওপর ফেলে রেখে যায় ইউপি সদস্যসহ সালিশি বৈঠকের লোকজন। ঘটনার পর থেকে সালিশি বৈঠকের লোকজন পলাতক রয়েছেন।

নিহতের ছেলে আব্দুল মেজের বলেন, সালিশি বৈঠকের লোকজনের মারপিটে আমার বাবার মৃত্যু হয়। পরে তারা আমার বাবার লাশ বাড়ির পাশের রাস্তার ওপর ফেলে রেখে যায়। থানা অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, রোববার রাতেই নিহত আব্দুর রশিদের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj