ঈদের নাটকে সরগরম শুটিং পাড়া

শনিবার, ১০ জুন ২০১৭

হেমন্ত প্রাচ্য : তি বছরের মতো এবারো নানা আয়োজনে অনুষ্ঠান সাজানোর চেষ্টা করছে দেশের প্রায় সব কটি টেলিভিশন চ্যানেল। ঈদের অনুষ্ঠানমালার উল্লেখযোগ্য অংশ জুড়ে রয়েছে নাটক ও টেলিছবি। প্রায় তিন শতাধিক নাটক ও টেলিছবি এবারের ঈদে বিভিন্ন টিভি চ্যানেল ও অনলাইন মাধ্যমে প্রচার হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঈদের অনুষ্ঠানমালায় এবার নতুন সংযোজন ইউটিউবে নাটক সম্প্রচার। সাধারণত টেলিভিশনে প্রচার হওয়ার পর নাটক ও টেলিছবি প্রচার হয় ইউটিউব এবং অনলাইনের অন্যান্য মাধ্যমে। এ বছর ইউটিউবে প্রচারের উদ্দেশ্যেই নির্মিত হচ্ছে বেশ কিছু নাটক ও টেলিছবি। অনলাইনের জন্য ‘ওয়েব সিরিজ’ নির্মাণ করছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সিএমভি। প্রতিষ্ঠানটির নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে দর্শকরা উপভোগ করতে পারবেন ওয়েব সিরিজ। প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার এসকে সাহেদ আলী জানান, ঈদের ৭ দিন সিএমভির ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পাবে ওয়েব সিরিজ ‘আমি ক্রিকেটার হতে চাই’। এটি নির্মাণ করছেন মাবরুর রশীদ বান্নাহ। তারই চিত্রনাট্যে প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করছেন আফরান নিশো এবং ঈশিকা খান। বিশেষ চমক হিসেবে থাকছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক ক্রিকেটার মেহরাব হোসেন অপি।

গেলো কয়েক বছর ধরে ঈদের অনুষ্ঠানে আলোচনা তৈরি করেছে ৭ পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘সিকান্দার বক্স’, ‘অ্যাভারেজ আসলাম’, ‘আরমান ভাই’। এই সাফল্যের পথ ধরে বিগত বছরে নাটকগুলোর সিক্যুয়ালও তৈরি হতে দেখা গেছে। এ বছরও কয়েকটি ধারাবাহিক নাটকের সিক্যুয়াল প্রচার হতে দেখা যাবে। ঈদের ধারাবাহিক নাটকগুলোতে বিগত কয়েক বছরের মতো এবারো দেখা যাবে মোশাররফ করিমের আধিপত্য। সাগর জাহানের ‘মাহিনের নীল তোয়ালে’, ‘অ্যাভারেজ আসলাম ইজ নট ব্যাচেলর’ ও ‘লাইফ ইজ কালারফুল’, আজাদ কালামের ‘জমজ ৭’, শামীম জামানের ‘মেজাজ ফোরটি নাইন টু’ ও ‘বডিগার্ড হোসেন’ ধারাবাহিক নাটকগুলোতে দেখা যাবে মোশাররফ করিমকে। এছাড়া ‘মধবিত্তনামা’ নামের একটি নতুন ধারাবাহিক নাটকে দেখা যাবে মোশাররফ করিমকে। বিভিন্ন খণ্ড নাটক ও টেলিছবি মিলিয়ে এবারের ঈদে ৪০টির মতো নাটকে দেখা যাবে দেশের জনপ্রিয় এই অভিনেতাকে।

ঈদের নাটকে সংখ্যার বিচারে বিগত কয়েক বছর ধরেই আলোচনায় রয়েছেন অভিনেতা সজল ও অপূর্ব। এবারের ঈদের নাটকেও রয়েছে তাদের আধিক্য। নির্মাতা হিসেবে বেশি নাটক নির্মাণের সংখ্যাটা এ বছরও কি চয়নিকা চৌধুরীর হাতে থাকবে? সেটাই দেখার বিষয়। ঈদের নাটকের অভিনেত্রীদের মধ্যে বেশি সংখ্যক নাটকে দেখা যাবে সাদিয়া জাহান প্রভা, আনিকা কবির শখ, জাকিয়া বারী মম, ঊর্মিলা শ্রাবন্তি কর, সুমাইয়া শিমুকে।

অমিতাভ রেজা পরিচালিত ‘আয়নাবাজি’ চলচ্চিত্রের সাফল্যের পর এবার টিভি পর্দায় ‘আয়নাবাজি অরিজিনাল সিরিজ’ নামে সাতটি নাটক নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পুরো প্রজেক্টের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন আয়নাবাজি চলচ্চিত্রের নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী। তিনি নির্মাণ করবেন ‘মার্চ মাসে শুটিং’। ‘রাতুল বনাম রাতুল’ নির্মাণ করবেন সুমন আনোয়ার, ‘দ্ব›দ্ব সমাস’ নির্মাণ করবেন আসফাক নিপুণ, রবিউল আলম নির্মাণ করবেন ‘মুখোমুখি’, গৌতম কৈরি নির্মাণ করবেন ‘শেষটা একটু অন্য রকম’, তানিম রহমান নির্মাণ করবেন ‘কে? কেন? কিভাবে?’, কৃষ্ণেন্দু নির্মাণ করবেন ‘ফুল ফোটানোর গল্প’। সিরিজটি একই সময়ে তিনটি টিভি চ্যানেল মাছরাঙা, গাজী টিভি ও আরটিভিতে প্রচার হবে।

‘ছবিয়াল ঈদ রি-ইউনিয়ন’ নামে ছবিয়াল থেকে উঠে আসা ১২ জন পরিচালক নাটক নির্মাণ করছেন। এটি তত্ত্বাবধান করছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। দেশের বিভিন্ন লোকেশনে নাটকগুলোর শুটিংয়ে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা ও কলাকুশলীরা। কিছু নাটকের দৃশ্যধারণ হয়েছে দেশের বাইরের লোকেশনে। একাধিক নির্মাতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তারা হাস্যরসাত্মক ঘরানার নাটককেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।দর্শক যেন নিখাদ বিনোদন পেতে পারেন সেদিকে

নজর রাখছেন।

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj