চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ধারা

বৃহস্পতিবার, ১ জুন ২০১৭

বর্ণনায় থাকছেন যারা

পহেলা জুন ওভালে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচের মধ্য দিয়ে পর্দা উন্মোচিত হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির। মাঠে খেলোয়াড়দের উত্তাপে গ্যালারির দর্শক যেমন হুমড়ি খেয়ে পড়বে, তেমনি খেলার খুঁটিনাটি বিষয়গুলো দর্শক-শ্রোতাদের কাছে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তুলে ধরবেন ধারাভাষ্যকাররা। ক্রিকেটের বিশ্বের সাবেক তারকাদের নিয়ে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট ধারাবর্ণনার একটি টিম ঘোষণা করেছে আইসিসি। এদের মধ্যে বাংলাদেশের আতাহার আলী খান, তিন জন অস্ট্রেলিয়ার এবং ভারত, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ডের রয়েছে দুজন করে ধারাভাষ্যকার রয়েছে। এছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার একজন করে ধারাভাষ্যে টিমে জায়গা পেয়েছেন। নতুন মুখ চার জন। অস্ট্রেলিয়ান রিকি পন্টিং, নিউজিল্যান্ডের ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, শ্রীলঙ্কার সাঙ্গাকারা ও দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রায়েম স্মিথ। এছাড়াও শেন ওয়ার্ন, মাইকেল সেøটার, রমিজ রাজা, সৌরভ গাঙ্গুলি, সঞ্জয় ম্যাঞ্জেকার, গ্রায়েম স্মিথ, শন পোলক, সিমন ডোউল ও আইয়ান বিশপ।

আতাহার আলী খান

বাংলাদেশের একমাত্র ধারাভাষ্যকার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ধারাভাষ্যে দায়িত্ব পালন করবেন জাতীয় দলের সাবেক তারকা ক্রিকেটার ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ধারাভাষ্যকার আতাহার আলী খান। জাতীয় দলের হয়ে ১৯টি একদিনের ম্যাচে ৫৩২ রান তুলেছেন। বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক ও বিপিএলে দুরন্ত রাজশাহীর প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করছেন। আতাহার আলী বাংলাদেশ দলের হয়ে তিনটি আইসিসি ট্রফিতে (ইংল্যান্ডে ১৯৮৬, কেনিয়া ১৯৯৪ এবং মালয়েশিয়া ১৯৯৭) অংশ নিয়েছেন।

ব্র্রেন্ডন ম্যাককালাম

নিউজিল্যান্ডের সাবেক ব্যাটসম্যান ও অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম যার নেতৃত্বে গত বিশ্বকাপে রানার্স আপ হয়েছিল কিউইরা। ধারাভাষ্য টিমে থাকার অনুভূতি প্রকাশের বেলায় তিনি বলেন, পন্টিং, গাঙ্গুলী এবং স্মিথের সঙ্গে কাজ করতে পারাটা আমার জন্য খুবই আনন্দের। আশা করছি আমরা দর্শকদের খেলার অনন্য অন্তর্দৃষ্টি সরবরাহ করতে পারব। ম্যাককালামকে বিশ্ব ক্রিকেটের একজন সফল অধিনায়ক বললে মোটেও ভুল হবে না। তিন ফর্মেটের ক্রিকেটেই দাপটের সঙ্গেই দলপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। টেস্ট ক্রিকেটে দলের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরি ও বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত টেস্ট সেঞ্চুরির মালিক তিনি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তার ঝড় ব্যাটিং ম্যাককালাম বৃষ্টি নামে দর্শকের নিকট অধিক পরিচিত। ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ সালে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

কুমার সাঙ্গাকারা

লঙ্কান ক্রিকেটে যে কয়জন ক্রিকেটার বিশ্ব ক্রিকেট থেকে দাপটের সঙ্গে বিদায় নিয়েছে তাদের একজন কুমার সাঙ্গাকারা। ধারাভাষ্যে দর্শক মাতাবেন তিনিও। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আইসিসির একটি বিশেষ টুর্নামেন্ট যেখানে খেলতে আমি পছন্দ করতাম। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ী লঙ্কান দলে থাকতে পেরে আমার সত্যিই গর্ব হয়। টুর্নামেন্টের অংশ হিসেবে কাজ করার এবং ক্রিকেট বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের মুখোমুখি লড়াই দেখার ইচ্ছা ছিল, ধারাভাষ্য টিমে থাকতে পেরে সেটা সম্ভব হবে। প্রত্যেক দলেরই জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। সবার জন্যই শুভকামনা। গত বিশ্বকাপে চার ম্যাচে টানা চার সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন যা ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ সংখ্যক টানা সেঞ্চুরি। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে ম্যাচ সেরা হন। ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে তিন ফর্মেটে ২৮০১৫ রান তুলেছেন। তিন ফর্মেটে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন।

রিকি পন্টিং

বিশ্ব ক্রিকেটের একজন সফল ক্রিকেটারের নাম রিকি পন্টিং। আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির অষ্টম আসরে ধারাভাষ্যের দায়িত্ব পাওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ান সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং বলেন, একজন খেলোয়াড় হিসেবে আমি সর্বদাই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দিকে তাকিয়ে থাকতাম। টানা দুইবার শিরোপা জেতা সত্যিই রোমাঞ্চকর। ধারাভাষ্য টিমে থাকার ইচ্ছা পোষণ করে আসছিলাম। আইসিসি সুযোগ করে দিয়েছে। আশা করছি, ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ফাইনালের মঞ্চে লড়াই করবে। নেতৃত্বে তার জুড়ি খুঁজে পাওয়া ভার। তার একক নেতৃত্বে দুবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে শিরোপা জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপে ২০০৩ ও ২০০৭ সালে তার পরিচালনায় ট্রফি দখল করে অজিরা। ২০১১ সালে অবসরের পূর্বে ১৬৮টি টেস্ট, ৩৭৫টি ওয়ানডে এবং ২৮৯টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন। টেস্ট ও ওয়ানডে দুই ফর্মেটে আলাদাভাবে ১৩ হাজারেরও বেশি রানের মালিক তিনি। টেস্ট ক্রিকেটে ৪১টি সেঞ্চুরি ও ৬২টি অর্ধশতক রয়েছে তার। ওয়ানডেতে ৩০টি শতক ও ৮২টি অর্ধশতক আদায় করেছেন অজি অধিনায়ক। গোটা ক্যারিয়ারে ৭৭টি টেস্ট, ২২৯টি ওয়ানডে এবং ১৭টি বিশ ওভারের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

সৌরভ গাঙ্গুলি

ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়ে পর পর দুবার ২০০০ ও ২০০২ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা নির্ধারণী মঞ্চে দাঁড় করিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি। প্রথমবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে রানার্স আপ হলেও পরেরবার শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বৃষ্টির কল্যাণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হলে ভারত প্রথমবারের মতো যৌথভাবে শিরোপা জয়ের স্বাদ উপভোগ করে। ব্যাটিংয়ে অসাধারণ নৈপুণ্যের জন্য তাকে গড অব দ্য অফ সাইড নামে পরিচিতি লাভ করেন। বর্তমানে বেঙ্গল ক্রিকেট এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন। তার নেতৃত্বে ৪৯টি টেস্টে ২১ জয় ১৫ ড্র করেছে ভারত। ওয়ানডে ক্রিকেটে ১৪৬টি ম্যাচে দলপতির ভূমিকা পালন করেছেন যার মধ্যে জয় ছিল ৭৬টি।

:: মাহাফুজুর রহমান

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি-২০১৭'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj