রাজ নিন্দায় হতে পারে ১৫০ বছরের কারাদণ্ড

শনিবার, ৬ মে ২০১৭

কাগজ ডেস্ক : থাইল্যান্ডের রাজপরিবারের মানহানির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে দেশটির একজন প্রখ্যাত মানবাধিকার আইনজীবীর সর্বোচ্চ ১৫০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। বৃহস্পতিবার এ কথা জানিয়েছে থাইল্যান্ডের আইন বিষয়ক পর্যবেক্ষক গোষ্ঠী ‘থাই ল’ইয়ার্স ফর হিউম্যান রাইটস’।

থাইল্যান্ডের কঠোর রাজ-অবমাননা আইনে আইনজীবী প্রাওয়েত প্রাপানুক‚লের (৫৭) বিরুদ্ধে ১০টি অভিযোগ আনা হয়েছে। এর সবগুলোতে দোষী সাব্যস্ত হলে তাকে ওই পরিমাণ কারাবাসের শাস্তি দেয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন অপর এক মানবাধিকার আইনজীবী।

প্রাওয়েত থাইল্যান্ডের বিরোধী রাজনৈতিক গোষ্ঠী ‘ইউনাইটেড ফ্রন্ট ফর ডেমোক্র্যাসি এগেইনস্ট ডিক্টেটরশিপ’-এর সদস্যদের আইনি সহায়তা দিতেন। পাশপাশি রাজ অবমাননার আলোচিত মামলাগুলোতে আইনি পরামর্শক হিসেবে কাজ করতেন তিনি।

রোববার পুলিশ ও সেনাসদ্যরা একযোগে অভিযান চালিয়ে প্রাওয়েতকে নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে নিয়ে যায়।

বুধবার তাকে রাজধানী ব্যাংককের একটি আদালতে হাজির করে তার বিরুদ্ধে রাজ-অবমাননার ১০টি অভিযোগ ও থাইল্যান্ডের ফৌজদারি অপরাধের ১১৬ ধারা ভঙ্গের তিনটি অভিযোগ আনা হয়। এসব অভিযোগ রাষ্ট্রদ্রোহের সমতুল্য। থাইল্যান্ডের মানবাধিকার আইনজীবী আনোন নামফা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, আর্টিকেল ১১২ ভঙ্গের ১০টি অভিযোগের মুখোমুখি প্রাওয়েত, এগুলোতে দোষী সাব্যস্ত হলে তার ১৫০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে আর্টিকেল ১১৬ ভঙ্গের আরো তিনটি অভিযোগ আনা হয়েছে, এগুলোর প্রত্যেকটিতে সর্বোচ্চ সাত বছর কারাদণ্ড দেয়ার বিধান আছে।

কী বলার বা লেখার কারণে প্রাওয়েতকে গ্রেপ্তার করে এসব অভিযোগ আনা হয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা পরিষ্কার হয়নি।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj