অগ্নিঝরা মার্চ : ফিরোজা সামাদ

রবিবার, ২৬ মার্চ ২০১৭

এই মাসে টুঙ্গিপাড়ায় জন্মেছিলেন বাংলার দামাল ছেলে,

মাতৃভূমিকে ভালোবেসেছিলেন ভয়কে পিছন ফেলে !!

পাকিস্তানিদের পরাধীনতা কভু মানতে নাহি পারে,

সাত মার্চ রমনায় ডাক দিলো মুক্তি ও স্বাধীনতার তরে !!

দৃপ্তপায়ে মঞ্চে এসে দাঁড়ালেন বাংলা মায়ের সোনার খনি,

জনতার মাঝে পড়লেন তিনি তাঁর সেই মহাকাব্যখানি !!

আমাদের সংগ্রাম মুক্তির সংগ্রাম বললেন যখন তিনি ,

আমাদের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম

বলায় বাংলা ইতিহাস হয় তখনি!!

পঁচিশ মার্চে নির্বিচারে হয়েছিল গণহত্যার নির্মম যজ্ঞ,

সেই যাতনায় রুখে উঠেছিল নবীন যুবা বৃদ্ধ যতো অজ্ঞ!!

এই মাসে মহান মুক্তিযুদ্ধের সূচনা

সেই উনিশশ একাত্তরে,

স্বাধীনতার জন্য প্রাণপণে সবাই গিয়েছিল সেদিন লড়ে!!

একমাস দুই মাসের কষ্ট নয়তো টানা নয় নয়টি মাস,

পাকিস্তানি আর রাজাকার মিলে করলো কতো সর্বনাশ!!

মা হারালো বুকের ধন আর বোন হারালো ভাই,

কতো নারীর হারালো সম্ভ্রম সঠিক হিসাব নাই!!

বাংলা মায়ের দামাল ছেলেরা রইলো না কেউ চুপ,

কোমর বেঁধে যুদ্ধ করে রচলো ওদের মরন ক‚প!!

স্বাধীনতার কেতন উড়েছিল একাত্তরে অগ্নিঝরা মাসে,

করলো লড়াই দিয়ে কতো প্রাণ বিজয় কি তাতে আসে?

আসলো শুধু মুষ্টিমেয় কিছু সুবিধাবাদী লোকের,

তাই পনের আগস্ট মায়ের বুকে পড়লো ছায়া শোকের !!

সবুজ মায়ের রাঙাবুকে আর হয় না স্বপ্নের চাষ,

কি করে কাটাবে স্বাধীনতায় মায়ের সন্তান বারোমাস?

বাংলার আকাশে এখনো আছে নিশুতি আঁধারী ছায়া,

পাকিস্তানি আত্মা ঘুরে বেড়ায় মানুষরূপী কিছু কায়া!!

ফিরে ফিরে আসে বুকে ক্ষত নিয়ে সেই অগ্নিঝরা মার্চ,

কাঁদছে বাংলা কাঁদছে মাতৃভূমি দেখে স্বাধীনতার সর্বনাশ!!

স্বাধীনতা দিবস : বিশেষ আয়োজন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj