জঙ্গি রানা পাঁচ দিনের রিমান্ডে

বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

কাগজ প্রতিবেদক : ব্লুগার রাজীব হায়দার হত্যা মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রেদোয়ানুল আজাদ রানা ও তার সহযোগী আশরাফকে সন্ত্রাসবিরোধী আইনের এক মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে ঢাকার মহানগর হাকিম মাজহারুল ইসলাম গতকাল মঙ্গলবার এই আদেশ দেন।

রানা ও আশরাফকে গ্রেপ্তারের পর তাদের আদালতে হাজির করে উত্তরা পশ্চিম থানায় দায়ের করা সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক মোহাম্মদ মুনিরুল ইসলাম। অন্যদিকে রানার আইনজীবী হাফেজ আহামেদ রিমান্ডের বিরোধিতা করে বিচারকের কাছে তার মক্কেল জামিন চান। শুনানি শেষে বিচারক জামিন আদেন নাকচ করে দুই আসামিকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি দেন।

গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন চলাকালে ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজধানীর পল্লবীতে ব্লুগার রাজীবকে তার বাসার কাছে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র আনসারউল্লাহ বাংলাটিমের সংগঠক রানার পরিকল্পনায় ওই হত্যাকাণ্ড হয় বলে পরে পুলিশের তদন্তে উঠে আসে।

ঢাকার ৩ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাঈদ আহমেদ ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর ওই মামলার রায়ে রানা এবং ফয়সাল বিন নাঈম দীপের ফাঁসির আদেশ দেন। এ ছাড়া একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং জসীমউদ্দিন রাহমানীসহ পাঁচজনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজার আদেশ হয়। নিম্ন আদালতের ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে সাত আসামির আপিলের রায় যেকোনো দিন ঘোষণা করা হবে। তবে পলাতক থাকায় রানা হাইকোর্টে আপিল করার সুযোগ পাননি।

পুলিশ বলছে, রাজীব হত্যার পর ২০১৩ সালের শেষ দিকে ভুয়া ঠিকানায় পাসপোর্ট বানিয়ে মালয়েশিয়ায় পালিয়ে যান রানা। সেখানে গত প্রায় তিন বছর ধরে জঙ্গি তৎপরতা চালাচ্ছিলেন তিনি। সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর দেশটির কর্তৃপক্ষ রানাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। গত সোমবার দুপুরে ঢাকার উত্তরা থেকে রানা ও আশরাফকে গ্রেপ্তার করার কথা জানায় পুলিশ।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj