১৪ প্রতিষ্ঠানকে চসিকের অর্থদণ্ড : চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে ওষুধ ও পণ্য জব্দ

বুধবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৭

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিপুল পরিমাণ ওষুধ ও বিভিন্ন পণ্য জব্দ করা করেছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। গত সোমবার কলকাতা ফেরত এক যাত্রীর ব্যাগ তল্লাশি করে ওই ওষুধ পাওয়া যায়। জব্দকৃত ওষুধের মধ্যে বেশ কিছু নকল ভায়াগ্রা রয়েছে বলে ধারণা করছেন শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। এদিকে নগরীতে পৃথক অভিযান চালিয়ে ১৪ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড দিয়েছেন চসিকের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের মহাপরিচালক মইনুল খান জানান, নভোএয়ারের একটি ফ্লাইটে সোমবার রাতে বঙ্কিম চন্দ্র ঘোষ নামে এক যাত্রী কলকাতা থেকে চট্টগ্রামে পৌঁছান। গ্রিন চ্যানেল পার হওয়ার সময় শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তারা তার ব্যাগ তল্লাশি করেন। ব্যাগে ৫৮০টি ভায়াগ্রা পাওয়া গেছে, সেগুলো নকল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এছাড়া আরো বিভিন্ন ওষুধ পাওয়া গেছে, ব্যাগেজ সুবিধা বহির্ভূতভাবে আনা শাড়ি ও থ্রি-পিসও রয়েছে। এ ঘটনায় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে নগরীতে পৃথক অভিযান চালিয়ে ট্রেড লাইসেন্স দেখাতে না পারায় ১৪ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড দিয়েছেন চসিকের ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দিনব্যাপী কোতোয়ালি থানা এলাকায় এ ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেন চসিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট যুথিকা সরকার।

ম্যাজিস্ট্রেট যুথিকা সরকার বলেন, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, পঁচাবাসি খাবার পরিবেশন ও ট্রেড লাইসেন্স না থাকায় কোতোয়ালি থানা এলাকায় ১৪টি প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন অংকে অর্ধলাখ টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। অর্থদণ্ডপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো, এ এস মেডিকো, বনফুল, মিঠাই, সিপি ফাইভস্টার, আর এস টেলিকম, মেসার্স বড়–য়া ডিজিটাল স্টুডিও মডার্ন ফেন্সি কর্ণার, স্বর্ণালী জুয়েলার্স, শাহ জালাল বিরিয়ানি প্যারাডাইস, মিরাজ ফুড, হোটেল শাহেন শাহ, হোটেল মদিনা, সাতকানিয়া ভাতঘর।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj