তুমি যুদ্ধে গিয়েছিলে বলে

শুক্রবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৬

** কাজী মোহিনী ইসলাম **

যেদিন তুমি যুদ্ধে গিয়েছিলে, বাবা,

মা তার পোষা প্রিয় ময়না পাখিটিকে

খাঁচা খুলে আকাশে উড়িয়ে দিয়েছিলো

আমি তখন মাটির মায়াবী বন্ধনে

মায়ের কোমল জঠরে বেড়ে ওঠা স্বপ্নভ্রƒণ…

সংযমের মিনারে বিশ্বাসের সবুজ পতাকা উড়িয়ে,

অগ্নিগর্ভা একটি সূর্যের প্রতীক্ষায়

নির্নিমেষ চেয়ে থাকে মায়ের দু’চোখ

স্বপ্নগুলো অন্তরা থেকে ক্রমেই সঞ্চারিতে

বুটের আওয়াজের হিংস্রতায় তীব্র অধঃপতনের গাঢ় শব্দে

কেঁপে ওঠে মায়ের বুক, নির্বিবেক মধ্যরাতে

তবুও দুর্ভিক্ষের সোনালি তৃষ্ণা তার, বিস্তার থেকে বিস্তারে।

তুমি যুদ্ধে গেছো, বাবা,

বিভীষিকাময় দুঃস্বপ্নের অথৈ অন্ধকার চারদিকে,

কষ্টের অশ্রæজলে জ্বালিয়ে রক্ত-শপথের অগ্নি মশাল

তীব্র ধারালো ঘৃণায় যেন ইসা খাঁর তরবারি হয়ে ওঠো তুমি

জ্বলে ওঠে তোমার নক্ষত্রনয়ন।

অতঃপর বুকের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে জয় করেছো

স্বপ্নের লাল-সবুজ পতাকা, প্রিয় মাটি-মাতৃভূমি,

সম্ভাবনার সোনালি দেশ।

দুঃখিনী মা আমার, তুমিহীন একাকী আজো

যেন সম্মুখে স্মৃতির সমুদ্র নিয়ে বসে আছে

বুকে তার দগদগে অগ্নিস্নাত একাত্তর।

মায়ের আঁচলে লেগে থাকা লাল বিরহের দাগ

জেগে আছে আমার বেদনাময় মুখে

তুমি যুদ্ধে গেছো বাবা

তোমার জন্য বিপুল কান্নার অশ্রæজল জমিয়ে রেখেছি বুকে

তুমি কবে ফিরবে বাবা?

আমার প্রতিটি ভোর, স্তব্দ দুপুর, বিষণœ বিকেল

তোমার জন্য উন্মুক্ত রেখেছি অনুভবের প্রতিটি দরোজা

কবে আসবে তুমি, কবে আমাদের দেখা হবে?

মায়ের সেই ময়না পাখিটি ফিরে এলো একদিন,

সাথে এলো একটি দোয়েল।

হঠাৎ আমার মনে হলো-

তবে কি দীর্ঘ দূরত্বের দীর্ঘশ্বাস হয়ে তুমিই ফিরে এলে

আর ভালোবেসে আমায় দিলে বিজয়ের এই স্বপ্ন-স্মারক!

বিজয় দিবস : বিশেষ আয়োজন ২০১৬'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj