আলোচনায় রনদীপ

শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৬

বলিউডের সবচেয়ে মেনলি হিরো তিনি! সব সময়ই ফ্যাশনেবলও থাকেন। চরিত্রের প্রয়োজনে যেকোনো বেশ ধারণ করতে পারেন। বৈচিত্রময় চরিত্রে অভিনয়ে জুরি নেই বলিউডের মেনলি হিরোদের অন্যতম রনদীপ হুদার। সেক্স কমেডি জিসম-এ তিনি যেমন মানিয়ে যান, ঠিক তেমনি রঙ রসিয়া কিংবা হাইওয়ের মতো সিনেমায় তিনি নিজের ভেতরের অভিনেতা সত্তাকে প্রকাশ করতে পারেন। এবার তাকে দেখা গেল পুরো ভিন্ন লুকে। যে বেশে এর আগে কেউ তাকে দেখেনি! হ্যাঁ। বলছিলাম রনদীপ হুদার আসন্ন ছবি ‘সর্বজিৎ’-এ তার প্রথম লুক নিয়ে। ‘সর্বজিৎ’ নির্মাতা অমুং কুমার সদ্য প্রকাশ করেছেন তার আসন্ন ছবি ‘সর্বজিৎ-এর প্রথম লুক। যেখানে ফ্যাশনেবল রনদীপ হুদা মিলিয়ে গেছেন একজন নির্যাতনের শিকারীতে। উস্কো খুশকো চুল, দাড়ি-গোঁফে কোনোভাবেই চেনা যায় না রনদীপকে। একেবারে ভারসাম্যহীন এক মানুষে পরিণত রনদীপ হুদা। নির্মাতা অমুং জানিয়ে দিলেন, এমন পাগলের মতো চেহারাতেই সত্যিকারের সর্বজিতের চরিত্রে দেখা যাবে বলিউডের সেক্সি ম্যান রনদীপকে! পাকিস্তানে নিহত ভারতীয় যুবক সর্বজিতের আত্মজীবনীমূলক সিনেমা ‘সর্বজিত’। ছবিতে তার বোনের চরিত্রে আছেন ঐশ্বিরিয়া রাই। তার স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করতে চলেছেন ‘মাসান’ খ্যাত অভিনেত্রী রিচা চাড্ডা!

রনদীপ হুদা, ঐশ্বরিয়া রাই এবং রিচা চাড্ডা অভিনীত ছবিটির কাজ এরই মধ্যে পুরোদমে চলছে। সাদাসিধে পোশাক আর হালকা মেকআপ নিয়ে ‘সর্বজিৎ’ ছবিতে হাজির হচ্ছেন ঐশ্বরিয়া। অমৃতসরের বিখ্যাত স্বর্ণ মন্দিরে ছবিটিতে অভিনয় করতে গিয়ে সম্প্রতি তেমন করেই ক্যামেরায় ধরা পড়েছেন তিনি। বেশভুষা আর উপস্থাপনে নিজেকে অনেকটাই পাঞ্জাবি করে তুলেছেন ৪২ বছর বয়সী এ বলিউড তারকা। পাকিস্তানের জেলে নির্যাতনের শিকার হয়ে নিহত ভারতীয় নাগরিক সর্বজিতের বোন দলবির সিংয়ের ভূমিকায় অভিনয় করছেন ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। আর সে দৃশ্যে অভিনয় করতে গিয়ে রীতিমতো বাসন মাজা, মেঝে পরিষ্কার আর সবজি রান্না করতে হচ্ছে এ তারকাকে। দীর্ঘদিন পাকিস্তানের কারাগারে সর্বজিৎয়ের বন্দিদশা এবং তার মুক্তির জন্য তার বোনের সংগ্রামের কাহিনীকে ঘিরেই তৈরি হচ্ছে ‘সর্বজিৎ’ ছবিটি। অমুং কুমারের পরিচালনায় ছবিতে সর্বজিতের চরিত্রেই অভিনয় করছেন রণদীপ হুদা। অমৃতসর, মালের কোটলা এবং পাটিয়ালাসহ পাঞ্জাবের বেশ কয়েকটি শহরে হবে সর্বজিৎ ছবির শুটিং। শোনা যাচ্ছে আসছে ২০ মে রিলিজের ঘোষণা দিয়েছেন সর্বজিতের বায়োপিক নির্মাতা অমুং কুমার। উল্লেখ্য, সর্বজিত সিং ভারতের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে পাকিস্তানে কারাবন্দি ভারতীয় নাগরিক, যিনি লাহোর ও মুলতানে বোমা হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামি ছিলেন। ১৯৯০ সাল থেকে লাহোর কারাগারে বন্দি ছিলেন তিনি। এর আগে সর্বজিত সিংকে মুক্তি দিতে পাকিস্তানের কাছে আনুষ্ঠানিক আহ্বান জানিয়েছিল নয়াদিল্লি। ৪৯ বছর বয়সী এই বন্দিকে ভারতে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণের সুবিধার্থে স্থানান্তরেরও আহ্বান জানিয়েছিল ভারত সরকার। কিন্তু পরবর্তীতে পাকিস্তানের জেলখানায় অস্বাভাবিক মৃত্যু হয় তার।

:: মেলা ডেস্ক

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj