হাত : জুলি রহমান

বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০১৫

জলের ভেতর হারিয়ে যাওয়া আংটির মতো

খুঁজে ফিরি ললিত সুরের বাণী।

কবিতার পঙ্তিমালা ও একজন কবি!

যার মন শুধু ভাবের ভেতর নিমজ্জিত;

খুঁজে না যে জন আত্ম প্রচারের ক্ষুধিত ফলক।

একটা হাত খুঁজে ফিরি; যে হাতে হাত রাখলে

বিশুদ্ধ চিন্তার কুসুম ডানা মেলবে। বলতে

থাকবে সত্যের অমীয় বাণী।

কমর্রে সোপানে ভরে উঠবে ফসলের গোলা।

প্রতি ঘরে ঘরে; হেসে উঠবে সোনালি সকাল।

হাতের কাজ নিপুণ অতি যেমন- হাতে হাত

ভালোবাসার প্রথম প্রকাশ।

প্রাজ্ঞ অভিজ্ঞতার জ্ঞানপিপাসু বিবরণ

কলমের শরীর; হাতই তোলে নেয় তারে!

হাত তোলে নেয় উৎকোচসহ আগ্নেয়াস্ত্র

হাতের এপিঠ ওপিঠ প্রমাণ করে

নিখুঁত হৃদয়ের কারুকাজ।

পিতার প্রার্থনা মায়ের করুণ আর্তনাদ।

মঞ্চে উপবিষ্ট রাজনৈতিক ভাষণ জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

রক্তের নেশায় উন্মুক্ত হাত কেড়ে নেয় সরল জীবন।

একটা সিগ্নেচার একজনকে করে দেউলিয়া

হাতের স্পর্শেই বৃদ্ধ পিতার পেনশনের টাকা

লাল ফিতার দৌরাত্ম্যে ঘুরতে থাকে দিক

চক্রবালে এক প্রকোষ্ঠ থেকে অন্য প্রকোষ্ঠে

এক হাত থেকে সহস্রের হাতে

এই হাতই ওজনে করে ভুল মানুষ আর মনুষ্যত্বের।

হাত বিনা একদণ্ড নয় বাঁচার আশা!

যে হাতে শ্রমিক গড়ে দেশের ভাগ্য

আর ঐ চাষা।

হাতের কারুকাজে কতজনে

বাহবা শোনায়।

ভাবনা শুধু কোন হাত

বেঁচে থাকবে মানুষের সেবায়-

'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj