বছরে উধাও ৬ নারী, কিনারা পাচ্ছে না মার্কিন পুলিশ

শনিবার, ২৭ জুন ২০১৫

কাগজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের ছোট শহর ওহিও। এই শহর থেকে গত ১৩ মাসে ছয়জন নারী নিখোঁজ হয়েছেন। পরবর্তী সময়ে চারজনের মৃতদেহ মিলেছে, অপর দুজন এখনো নিখোঁজ। কিন্তু শহরের পুলিশ এটিকে সিরিয়াল কিলিং হিসেবে ধারণা করলেও এখনো নিশ্চিত করে কিছু জানাতে পারছে না। এমনকি ১৩ মাসে গ্রেপ্তারও করতে পারেননি কাউকে।

এক সংবাদ সম্মেলনে ওহিও কমিউনিটির পক্ষে সেরিভ জর্জ লেভেন্ডার বলেন, আমাদের সমাজ থেকে ইদানীং বিস্ময়করভাবে নারীরা হারিয়ে যাচ্ছে। কেন এমনটি হচ্ছে, এখন এটি জানার সময়। গত শনিবার উদ্ধার হয় নিখোঁজ সাইরির মরদেহ। প্রশাসনের পক্ষে জানানো হয়েছে, সাদা টেপ দিয়ে পেঁচানো ছিল সাইরির মরদেহ। ময়নাতদন্তে জানা যায়, তাকে হত্যা করা হয়েছে। তবে কীভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে, এ বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

সিলিকোথি অঞ্চল থেকে গত ১৩ মাসে মোট ছয়জন নারী নিখোঁজ হয়েছেন। এদের মধ্যে টিফাইনি সাইরি অন্যতম। নিখোঁজ ছয়জনের মধ্যে তিনজনের মরদেহ রাস্তার পাশে মিলেছে। অপর একজনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ মিলেছে। বাকি দুজন এখনো নিখোঁজ। ২৬ বছর বয়সী সাইরির ছয় এবং দুবছর বয়সী দুটি সন্তান রয়েছে। নিখোঁজ অপর দুজনের মধ্যে একজন ২৭ বছর বয়সী শার্লট। তিনি গত বছরের ৩ মে নিঁেখাজ হয়েছেন। অপর জন ৩৭ বছর বয়সী ওয়ান্ডা লেমনস, তিনি পাঁচ সন্তানের জননী। পুলিশ জানায়, ওই নিখোঁজ দুই নারী এবং মৃত সাইরি একে অপরের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে পরিচিত।

এদিকে তিন সন্তানের জননী লিঞ্চি। গত বছরের ৩ মে থেকে নিখোঁজ। ওই বছরেই ২৪ মে সড়কের পাশে মিলেছে তার মৃতদেহ। গত শনিবার সাইরির মৃতদেহ যে অঞ্চল থেকে মিলেছে, লিঞ্চির মরদেহও ওই একই এলাকায় পাওয়া গিয়েছিল।

২০ বছর বয়সী সন্তান সম্ভবা হিমালরিক ২০১৪ সালের ক্রিসমাস পার্টিতে শেষবারের মতো দেখা গিয়েছিল। নিখোঁজের এক সপ্তাহ পরেই হিমালরিকের মরদেহ সড়কের পাশে সেতুর ওপরে পড়ে ছিল।

৩৮ বছর বয়সী টিম্বালির গুলিবিদ্ধ মরদেহ মিলেছে ২৯ মে। তাকে একটি জনশূন্য বাড়িতে হত্যা করে ফেলে রাখা হয়েছিল। টিম্বালির হত্যায় দায়ে প্রধান সন্দেহভাজন ৩৬ বছর বয়সী জ্যাসন ম্যাকক্যারি। তবে প্রত্যক্ষভাবে হত্যা ষড়যন্ত্রের সঙ্গে তার কোনো যোগসাজশ পায়নি পুলিশ। নিখোঁজের ঘটনা তদন্তে নেমেছে স্থানীয় পুলিশ, প্রাদেশিক পুলিশের পাশাপাশি এফবিআই।

সেরিভ লেভেন্ডার জোর দিয়ে বলেন, আগামী ছয় থেকে আট সপ্তাহের মধ্যে সাইরির হত্যাকারীকে খুঁজে বের করা হবে।

এই ঘটনার সঙ্গে কোনো সিরিয়াল কিলার জড়িত আছে কি না, তাও প্রকাশ করা হবে। আমরা আইন লঙ্ঘন করে কাউকে শাস্তি দেব না। তবে কেউ যদি আইন ভঙ্গ করে, সেটা এড়িয়ে যেতে পারব না।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj