মায়ানমারের সংবিধানে সেনাবাহিনীর ভূমিকা থাকবে

শনিবার, ২৭ জুন ২০১৫

কাগজ ডেস্ক : সংবিধান পরিবর্তনের ক্ষেত্রে সেনাবাহিনীর ভেটো দেয়ার ক্ষমতা রাখার পক্ষেই ভোট দিয়েছে মায়ানমারের সংসদ। এই ভোটের মাধ্যমে মায়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সুচি প্রেসিডেন্ট হওয়ার সুযোগ থাকল না। তার প্রেসিডেন্ট হওয়ার বিষয়টি নিষিদ্ধই থাকল। সংসদের অধিকাংশ সদস্যই এই বিলের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। মায়ানমার সংসদের এই ভোটের মাধ্যমে দেশ পরিচালনায় সেনাবাহিনীকে ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে রাখা হলো। তবে এই বিল পাস করার জন্য ৭৫ শতাংশ ভোটের প্রয়োজন হলেও তা লাভ করতে পারেনি। মায়ানমারের গণমাধ্যম জানিয়েছে সংসদে এই ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার সময় সংসদের দুকক্ষের ৬৬৪ জন সদস্যের মধ্যে ৩৮৮ জন এর পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

কিন্তু এটি কার্যকর করার জন্য ৪৯৮ ভোটের প্রয়োজন ছিল। সংসদের স্পিকার জানিয়েছেন প্রয়োজনীয় ভোট না পাওয়ায় এটি কার্যকর করা যাচ্ছে না।

সামরিক শাসন থেকে উত্তরণের জন্য ২০১১ সালে মায়ানমারে সীমিত পরিসরে সংস্কার শুরু হলেও সে দেশের সংসদে এখনো সেনাবাহিনী এবং সাবেক সেনা কর্মকর্তাদের আধিপত্য রয়েছে।

এই বছরের শেষের দিকে যে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে তার সংসদীয় কমিটি সংবিধানে সামান্য কিছু পরিবর্তনের সুপারিশ করেছিল। কিন্তু সেই সুপারিশগুলোর অধিকাংশই বাতিল হয়ে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে মায়ানমারের আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে বর্তমান ক্ষমতাসীনদের বিপক্ষে অং সান সুচির নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির বড় জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj