টুকি-টাকি

শনিবার, ৩০ মে ২০১৫

শুধু খুঁটির ওপর দাঁড়িয়ে আছে একটি গ্রাম

কাগজ ডেস্ক : পুরো খুঁটির ওপর দাঁড়িয়ে আছে ঘানার একটি গ্রাম। নাম এনজুলেজো। সেখানে আছে ঘরবাড়ি, স্কুল থেকে শুরু করে টয়লেট, মন্দির সবই। ইটালির ভেনিসের কথা কে না জানে! পানির ওপর যেন পুরো একটি শহর দাঁড়িয়ে আছে। ঘানাতে এনজুলেজো নামে এমন একটি গ্রাম আছে যেখানকার ঘরবাড়ি, স্কুল থেকে শুরু করে টয়লেট, মন্দির সবই খুঁটির সহায়তায় টানডানে লেকের পানির ওপর অবস্থান করছে। তাই তো মাঝেমধ্যেই তাকে ‘ঘানার ভেনিস’ নামে ডাকা হয়। রাজধানী আক্রা থেকে প্রায় ৩৬০ কিলোমিটার পশ্চিমে অবস্থিত এই গ্রামে প্রায় ৫০০ লোক বাস করে।

পানি দেবতা

কাগজ ডেস্ক : লেকই যেহেতু তাদের বাঁচাচ্ছে বলে মনে করছে এনজুলেজোর মানুষ, সেই থেকে তারা পানিকে দেবতা মেনে নিয়ে তার পূজা করে। ছবিতে যে ঘরটি দেখতে পাচ্ছেন সেটি একটি মন্দির। পানি দেবতাকে সম্মান জানাতে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার সেখানে পবিত্র দিন হিসেবে পালিত হয়। নারীদের যাদের রজঃস্রাব হয়েছে তারা সে দিন পানিতে নামতে পারে না।

ছাগলের পেটে জন্ম নিল মানবশিশু!

কাগজ ডেস্ক : ছোট্ট দুটি শাবকের জন্ম দিয়েছে একটি ছাগল। কিন্তু দেখে কে বলবে সে দুটি ছাগলছানা। হুবহু মানুষের রূপ। মনুষ্য সদৃশ সেই দুই ছাগলছানার আবির্ভাব চমকে দিয়েছে স্থানীয় মানুষজনকে। একদিন ভোরে হইহই-রইরই কাণ্ড ভারতের কর্নাটকের শোলাপুরের এক গ্রামে। সেখানে এক অদ্ভুত ঘটনার মূল চরিত্র একটি গর্ভবতী ছাগল। সে দিন সকালে সেটি একটি ছানার জন্ম দেয়। তবে ছাগলের প্রসব করা ছানার ৭০ শতাংশই দেখতে মানুষের মতো। শরীরটা যেন পুরো স্টিলের। আর চোখ, নাক, মুখ, বুক, পেট, হাত, পা সব কিছুতেই অবিকল মানবশিশুর আদল।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj