দ্বিতীয়বার হার্ট এটাক ও স্ট্রোক প্রতিরোধে স্বাস্থ্যসম্মত খাবার

শুক্রবার, ৮ মে ২০১৫

সম্প্রতি বিশ্বের ৪০টি দেশের ৩২,০০০ রোগীর ওপর ৫ বছর মেয়াদি একটি গবেষণা কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে। এ গবেষণার ফলাফলে দেখা গিয়েছে ফলমূল, শাকসবজি, শস্যদানা ও মাছ সমৃদ্ধ স্বাস্থ্যসম্মত খাবার দ্বিতীয়বার হার্ট এটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়। প্রথমবার হার্ট এটাক ও স্ট্রোকের পর যারা ওষুধের পাশাপাশি স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ করেছেন তাদের মধ্যে হৃদরোগ জনিত মৃত্যু ৩৫% কম, নতুনভাবে হার্ট এটাকের ঝুঁকি ১৫% কম, হার্ট ফেইলুরের ঝুঁকি ২৮% কম এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি ১৯% কম। অনেক রোগীর ধারণা যেহেতু তারা উচ্চ রক্তচাপ ও রক্তের চর্বি কমানোর ওষুধ সেবন করছেন, সেহেতু তাদের খাবার নিয়ন্ত্রণের কোনো প্রয়োজন নেই। গবেষকদের মতে, এ ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। এসপিরিন, এনজিওটেনসিন মডুলেটর, চর্বি কমার ওষুধ এবং বিটা ব্লুকার গ্রহণ করে উচ্চ রক্তচাপ ও চর্বি নিয়ন্ত্রণে রাখার পরও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার রোগীকে অতিরিক্ত উপকার প্রদান করে থাকে। পৃথিবীজুড়েই এটা প্রতিষ্ঠিত যে, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার হৃদরোগের ঝুঁকি ২০% কমায়। গবেষকদের ধারণা, যারা দ্বিতীয়বার হার্ট এটাক কিংবা স্ট্রোক প্রতিরোধের জন্য ওষুধ সেবন করছেন তাদের ওপর স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণের প্রভাব সম্পর্কিত এটিই প্রথম গবেষণা। তারা পরামর্শ দিয়েছেন, সব চিকিৎসকের উচিত হবে এ জাতীয় রোগীদের স্বাস্থ্যসম্মত খাবার সম্পর্কিত তথ্য ও উপদেশ প্রদান করা যাতে রোগীরা ওষুধ সেবনের পাশাপাশি পরিমিত মাত্রায় ফলমূল, শাকসবজি, শস্যদানা ও মাছ জাতীয় খাবার গ্রহণ করেন। এতে হার্ট এটাক ও স্ট্রোকের পুনরাবৃত্তি হবে না এবং বিশ্বজুড়ে অনেক রোগীর জীবন রক্ষা পাবে।

হ ডা. মুহাম্মদ কামরুজ্জামান খান

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও প্রভাষক, কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ

সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ।

পরামর্শ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj