গিটার এবং জন ডেনভার

শনিবার, ২১ মার্চ ২০১৫

জন ডেনভারের প্রথম গিটার ছিল গিবসন ব্র্যান্ডের একটা একোস্টিক গিটার। সেটা তার হাতে আসে যখন তার ১২ বছর বয়স। গিটারটা ছিল মূলত তার দাদির। বানানো হয়েছিল ১৯১০ সালে। পরে তার দাদিই গিটারটা তার হাতে তুলে দেন। আর তার গিটার বাজানোর হাতেখড়িও হয় সেই গিটার দিয়েই। সেই থেকে শুরু। তারপর থেকে গান তার আজীবনের সঙ্গী হয়ে থেকেছে। আজীবনের সঙ্গী হয়ে থেকেছে সেই গিটারটিও। যখন যেখানে গেছেন, সঙ্গী হয়েছে গিবসনটি। নিয়ে গেছেন আমেরিকার নানা প্রান্তে। একবার তো গিটারটি দিয়ে এক লোকের মাথায় কষিয়ে বাড়িও দিয়েছিলেন। সেই ঘটনার সাক্ষী হয়ে তার সেই গিটারে একটা দাগও রয়েছে। জন ডেনভারের প্রথম সে গিটারটি একবার হারিয়ে যায়। অনেক খুঁজেও গিটারটির কোনো হদিস পাওয়া গেল না। নেই তো নেই। ভীষণ প্রিয় গিটারটি হারিয়ে ডেনভারও ভীষণ মুষড়ে পড়েছিলেন। যেন তার সন্তান হারিয়ে গেছে। কিংবা হারিয়ে গেছে খুব কাছের এক বন্ধু। মুষড়ে পড়াটাই তো স্বাভাবিক; গিটারটা যে একই সঙ্গে অনেকগুলো কারণে তার ভীষণ প্রিয় গিটারটি তার প্রথম গিটার, সেই গিটার দিয়েই তিনি বাজানো শিখেছিলেন, গিটারটা তার দাদির গিটার, তার দাদি নিজে তাকে গিটারটা উপহার দিয়েছিলেন। সবচেয়ে বড় কথা, তিনি গিটার বাজানো শুরু করার পর থেকেই গিটারটা তার সঙ্গী, তার বন্ধু। কেটে গেল প্রায় বছর পাঁচেক। আস্তে আস্তে সে গিটার হারানোর শোক সামলে উঠছিলেন ডেনভার। জানুয়ারিতে লসএঞ্জেলেসে একটি স্পেশাল টিভি শোর কাজ করছিলেন তিনি। হঠাৎ করেই পেয়ে গেলেন গিটারটি। যেন ভোজবাজির মতো কোত্থেকে উড়ে এসে হাজির হয়ে গেল! গিটারটা পেয়ে তো ডেনভারের খুশি আর ধরে না। টিভি শোর প্রতি তার আর কোনো মনোযোগই নেই। কোনোমতে কাজ সেরে ছুটে গেলেন হোটেলে। গিয়েই বসে গেলেন গিটারটি নিয়ে। গিটার বাজাচ্ছিলেন তো না, যেন গিটারটির সঙ্গে গল্প করছিলেন। সে সময়ে তার অনুভূতির বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি একবার বলেন, আমার ও আমার গিটারের, দুজনের দুজনকে চিনে নিতে কোনোই সমস্যা হলো না। গিটারটাকে শেষবার দেখার পর কী কী হয়েছিল, আমি গিটারটাকে বললাম। গিটারটাও আমাকে কিছু গল্প বলল। তার ও গিটারের এমনি আলাপচারিতার মধ্য দিয়েই জন্ম হলো জন ডেনভারের অন্যতম বিখ্যাত গান- দিস ওল্ড গিটার। গানটি পরে তার ব্যাক হোম এগেইন (১৯৭৪) এলবামে স্থান পায়। স¤প্রতি আমেরিকার এরিজোনা অঙ্গরাজ্যের ফোনিক্সে স্থাপিত হয়েছে মিউজিক্যাল ইন্সট্রুমেন্ট মিউজিয়াম। গিটারটি বর্তমানে সেই জাদুঘরে রাখা আছে। য়

:: সালেহীন বাবু

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj