বিশ্বের সেরা পাঁচ মডেলিং এজেন্সি

রবিবার, ৪ জানুয়ারি ২০১৫

তাহমিনা আমীর

মডেলিং এজেন্সিগুলোর কাজই হলো যোগ্য এবং মডেলদের কাজ যোগাড় করে দেয়া, তাদের হয়ে অ্যাসাইনমেন্টগুলোর দরদাম বা মডেলদের পারিশ্রমিক ধার্য্য করা, তাদের দিয়ে ক্যাম্পেন এবং মডেল প্রোফাইল বা ইমেজকে চালু বা তরতাজা রাখা। যত ভালো এজেন্সি ততো ভালো তার মডেলের সুখ্যাতি এবং বাজার দর। ফ্যাশন দুনিয়ায় টিকে থাকতে হলে একজন মডেলকে অবশ্যই এক ভালো বা সেরা এজেন্সিতে নাম লিখাতে হয়। মডেলরা তাদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় এক বিশেষ সময় পর্যন্ত। সেই চুক্তিগুলো ভালো করে পড়েই একজন মডেল, মডেল এজেন্সির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়। এই হিসাবে খুঁজে পেতে পৃথিবীর পাঁচ সেরা মডেল এজেন্সির তালিকা বের করলাম। তাদের কিছু তথ্য নিয়ে আজকের লেখা-

প্রথমেই আসতেছে এক নম্বর মডেল এজেন্সির নাম দিয়ে তারপর পর্যায় ক্রমে পাঁচ নম্বর পর্যন্ত।

এলিট

এই এজেন্সি বিশ্ব সেরা। এর মডেলিং নেট ওয়ার্ক অসম্ভব শক্তিশালী। তিন যুগের ও বেশি এবং ৫ মিলিয়নেরও বেশী ক্লায়েন্ট বুকিং সফলতার সাথে সামলিয়েছে, বিশ্ব সেরা সুপার মডেলদের নিয়ে কাজ করছে তারা। এর মূল উদ্যোক্তা ছিলেন জন কাসাব্লু্যাংকাস। তার হাত ধরে এই মডেল এজেন্সির জন্ম ও সফল যাত্রা। নাম শুনলে চমকে যেতে হয় এমন সব সুপার মডেল, কাভার গার্ল যেমন এলেসেন্দ্রা এম্ব্রসিও, কেম্প মুল, রাইসা অলিভেরিয়া, ইফকে স্তারম এবং মেলিসা হারও। আর অভিনেতা আর অভিনেত্রীদের মধ্যে সিনডি ক্রেফোরড, টায়রা বেঙ্কস, জেনিস ডিকিন্সন, কেমরন দিয়াজ, ওমা থারমেন, দ্রিও বেরিমোর এবং এশলি জাড প্রমুখ এলিট মডেল এজেন্সির সাথে জড়িত। খ্যাতির শিখরে এলিট মডেলরা ছাড়া কোন বিশ্বও মানের ক্যাটওয়াক, ফ্যাশন ইভেন্ট, বিজ্ঞাপনের ধুম ধারাক্কা চিন্তা করা যায় না। আন্তর্জাতিক বাজারে তারা নিজেরা নতুন মুখদের পরিচিত করতে বিশাল ফ্যাশন শো এর আয়োজন করে থাকে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মডেল বাছাই পর্ব চলতে থাকে। বাংলাদেশের আগ্রহী মডেলরাও তাদের ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজেদের প্রোফাইল পোস্ট করতে পারো। তবে উচ্চতা একটা বিরাট এবং গুরুত্ব পূর্ণ হার্ডল। কেউ যদি মিনিমাম পাঁচ ফিট সাড়ে ছয় বা তার উপড়ে হও এবং টোনড আর ¯িøম দেহের অধিকারী, গায়ের রং নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে আগ্রহী আর আত্মবিশ্বাসী গন নিউইয়র্ক এ এলিট অফিসে যোগাযোগ করতে পারো। কে বলতে পারে তোমার দিকেও তারা হাত বাড়িয়ে দিতে পারে। এলিট নামের এই মডেলিং এজেন্সির পাওয়ার হাউসটি দুনিয়ার ফ্যাশন জগৎকে নিয়ন্ত্রণ করে আসছে।

ফোরড মডেলস

দ্বিতীয় নাম্বারে আছে ফোরড মডেলস। এই এজেন্সি শুরু হয়েছিল ১৯৪৬ সালে নিউইয়র্কে, এলিয়েন এবং জেরি ফোরড এর জন্মদাতা। ফোরড খুবি প্রেস্তিজিয়াস মডেল এজেন্সি। বেশ বিশ্বখ্যাত মডেলরা পাদ প্রদীপের আলোতে আসেন ফোরড মডেলসের কল্যানে তাদের মধ্যে অন্যতম ক্রিস্টি ব্রিঙ্কলি, রেচেল হান্টার, কোর্টনি কক্স এবং প্যারিস হিলটন। এই এজেন্সি অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে এদের ক্যারিয়ার পরিচালনা করছে। তারা নাম করা মডেলডের জন্ম দিয়েছে। যেমন এনা জাগডযিন্সকা, হেনা গেবি অদেল, রোজ কর্ডেরও, ক্রিস্টাল রেন, এন্দ্রেনিয়ান বস প্রমুখ।

বস মডেলস

বস মডেলস নাম কুড়িয়েছে তাদের পুরুষ মডেলদের নিয়ে। এরা মডেল এজেন্সির দুনিয়ায় তৃতীয় নাম্বারে আছে। এই এজেন্সির গোরা পত্তন হয়েছিল ১৯৮৮ সালে লন্ডনে ডেবরা বার্নের হাত ধরে। তারা টিভি কমার্শিয়াল থেকে শুরু করে ফ্যাশন সংক্রান্ত যে কোন শো বা ক্যাম্পেইনে মেল মডেল সরবরাহ করে আসছে। বিশ্ব জুড়ে তারা ট্যালেন্ট হান্ট করে বেড়ায়। আগ্রহীরা তাদের ওয়েবসাইটে যোগাযোগ করতে পারো। প্যারিস, মিলান, টকিয়ো, সিডনি, জার্মান, স্পেইন জুড়ে তাদের ক্লায়েন্ট।

ষ্টোরম

এই মডেল এজেন্সি লন্ডনের চেলসিতে অবস্থিত। সারা ডুকাস ১৯৮৭ সালে এই এজেন্সি খোলেন। ম্যাগাজিনের কাভার, কলাম থেকে শুরু করে ব্রিটেন এবং ইওরোপের ঃ ফ্যাশন রেম্প, টিভি কমার্শিয়াল আলো করে আছে এই এজেন্সির মডেলগুলো। তার মধ্যে খ্যাতিমান হোল সোফি ডেল, ডেভন অকি, ক্যাথরিন হারলি এবং লিলি কোল। এই এজেন্সির চারটা বিভাগ আছে। ওমেন মডেলস, নতুন মুখ, পুরুষ মডেল এবং রেগুলার ষ্টোরম মডেল। তারা অ্যালেক্স বেক, জেরম ক্লার্ক, মারজস এদের নিয়েও কাজ করে।

ওয়েল মিনা মডেলস

পাঁচ নম্বরে আছে এই মডেল এজেন্সি। এর অফিস নিউইয়র্কে। লসাঞ্জেলস এবং ফ্লোরিডাতে তাদের শাখা অফিস আছে। তাদের মডেল দের পোর্টফলিও অন লাইনে দেখা যায়। ওয়েলমিনা কুপার পৃথিবী সেরা এক মডেল এজেন্সি খোলেন যা প্রথম দিক থেকেই ফ্যাশন মডেল দুনিয়ায় সেরা মডেলদের দিয়ে বিভিন্ন ইভেন্ট বাজি মাত করেন। এই এজেন্সি পুরুষ, মহিলা, শিশু সব বয়সী মডেলদের রিপ্রেসেন্ট করে। এই পরিবর্তন শিল ফ্যাশন দুনিয়ায় ওয়েল মিনা বেশ মুনশিয়ানার সঙ্গে তাদের মডেলদের প্রমোট করে যাচ্ছে। কেট ডিলন, মার্ক ভান্দারলু, জেসন শ, মিয়া টেইলর প্রমুখ এই মডেল এজেন্সির সঙ্গে যুক্ত।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj