ওয়েলিংটনের লড়াইয়ে নিউজিল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা

শনিবার, ৩ জানুয়ারি ২০১৫

ওয়েলিংটনে আজ শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে নিউজিল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা মধ্যকার দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। ক্রাইস্টচার্চে প্রথম টেস্টে সফরকারীদের যেভাবে বিধ্বস্ত করেছে কিউইরা। আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া টেস্টে নিশ্চয় করে অনেক বেশি উজ্জীবিত থাকবে তারা। ওয়েলিংটনেও জিতে সফরকারীদের হোয়াইট ওয়াশ করতে চায় তারা। অন্যদিকে, সফরকারী শ্রীলঙ্কাও গত টেস্টের কথা মাথায় রেখে নিজেদের উজ্জীবিত করতে পারে। প্রথম ইনিংসে বোলিং-ব্যাটিংয়ে ধস নাকাল হওয়ার পর দ্বিতীয় ইনিংসে তাদের লড়াকু মানসিকতা, তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। দ্বিতীয় ইনিংসের খেলার পুনরাবৃত্তি ওয়েলিংটনে করতে পারলে জয়ের আশা করতে পারে তারাও।

২০১৪ সাল নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের ইতিহাসের সেরা বছর। এ বছর তারা পাঁচটি টেস্টে জয়লাভ করেছে। সাফল্যে মোড়ানো এ বছরে তারা ৩টি টেস্ট সিরিজে জয়লাভ করে। এবং পাকিস্তানের বিপক্ষে দুবাইয়ের সিরিজটি ড্র করে। আর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়ের মাধ্যমে বছরকে বিদায় জানায় তারা। আগামী মাসেই ঘরের মাঠে বিশ্বকাপের পর্দা উঠবে ঘরের মাঠে। বিশ্বকাপের আগে তাই নিজেদের চেনা ছন্দ হারাতে রাজি নয় কিউইরা। গত বছরের মতো নতুন বছরকেও তারা স্বাগত জানাতে চায় জয়ের মধ্য দিয়েই।

ক্রাইস্টচার্চের প্রথম ইনিংসে ব্রেন্ডন ম্যাককালামের তাণ্ডবে লঙ্কানরা ছন্নছাড়া হয়ে পড়েছিল। ১৩৪ বলে তিনি খেলেছিলেন ১৯৫ রানের অতিমানবীয় এক ইনিংস। যে ইনিংসের ধকল কাটিয়ে আর সফরকারীদের ম্যাচে ফেরা সম্ভব হয়নি। বছরজুড়েই তিনি এমন ইনিংস খেলে এসেছেন। ঠিক আগের সফরেই দুবাইয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনি আরো একটি মারমুখী ডাবল সেঞ্চুরি উপহার দিয়েছিলেন। এর আগে এ বছরই তার ব্যাট থেকে এসেছে একটি ডাবল ও একটি ট্রিপল সেঞ্চুরি। শ্রীলঙ্কাকে জয় পেতে হলে তাই সবার আগে থামাতে হবে ম্যাককালামকে।

কিউইদের থামিয়ে ওয়েলিংটনে জয় পেতে হলে পারফর্ম করতে হবে লঙ্কান ব্যাটসম্যানদেরও। প্রথম ইনিংসে বোলারদের মতো ব্যাটসম্যানরাও অসহায় হয়ে পড়েছিল সফরকারী দলের ব্যাটসম্যানরা। দ্বিতীয় ইনিংসেও করুনারতেœ ও অধিনায়ক ম্যাথুস ছাড়া আর কেউই প্রতিরোধ গড়তে পারেনি। আর এ দলের অধিনায়ক তাকিয়ে আছেন কুমার সাঙ্গাকারার ব্যাটের দিকে। ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের দুই ইনিংসে গত বছরের সর্বাধিক রান সংগ্রাহক এ ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসে মাত্র ৭ রান।

আজ দুদলেই পরির্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে। টিম সাউদির ইনজুরিতে দলে জায়গা পেতে পারেন ড্রাগ ব্রেসওয়েল। আর গত টেস্টে মাঠের বাইরে থাকা কোরি অ্যান্ডারসনও সুস্থ হয়ে উঠেছে। কিন্তু তার জায়গায় খেলা জিমি নিশামও ক্রাইস্টচার্চে ৮০ বলে ৮৫ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেন।

দলের আরেক অলরাউন্ডার কেন উইলিয়ামসন ইনিজুরির কারণে মাঠের বাইরে থাকতে পারেন। আর শ্রীলঙ্কা দলে থারিন্ডু কুশালের জায়গা নিতে পারেন অভিজ্ঞ স্পিনার রঙ্গনা হেরাথ। তবে এ জন্য আগে তাকে ফিটনেস পরীক্ষায় পাস করতে হবে। আর উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নিরোশান দিকভেলার জায়গা নিতে পারেন দিনেশ চান্দিমাল। আর দাম্মিকা প্রসাদের পরিবর্তে একাদশে আসতে পারেন নুয়ান প্রদীপ। ইন্টারনেট।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj