কৃষক দলের সংবাদ সম্মেলন : কৃষকরা চালের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না, আমদানি বন্ধের আহ্বান

রবিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৪

কাগজ প্রতিবেদক : বাংলাদেশে ধানের ফলন ভালো হওয়ায় চাল আমদানির বন্ধ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে জাতীয়তাবাদী কৃষক দল বলেছে, এ কারণে দেশের কৃষকরা ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না।

গতকাল শনিবার সংগঠনটির এক সংবাদ সম্মেলনে এই অবস্থান তুলে ধরেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ও কৃষক দলের সভাপতি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সংবাদ সম্মেলনে চাল আমদানি বন্ধসহ ১৩ দফা দাবি তুলে ধরে তা বাস্তবায়নে বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সাবেক কৃষি প্রতিমন্ত্রী মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমান সরকার কৃষক ও কৃষিকে অবহেলার চূড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে গেছে। বাম্পার ফলন হয়েছে, অথচ কৃষকদের মাথায় হাত। তারা তাদের উৎপাদিত ধান বিক্রি করতে পারছেন না।

কৃষকের গোলায়, চাতাল ও গুদামে লাখ লাখ টন নতুন ধান, চাল থাকার পরও সরকারিভাবে এবং সরকারের আশীর্বাদপুষ্ট আমদানিকারকরা ভারত থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় চাল আমদানি করে একদিকে নিজেরা মুনাফা করছে, অন্যদিকে ধান চাষিদের পথে বসিয়ে দিচ্ছে।

সরকারের নীতির কারণে ৬০ হাজার পোল্ট্রি ফার্ম বন্ধ হয়ে গেছে দাবি করে কৃষক দল সভাপতি ফখরুল আরো বলেন, এতে ২০ লাখ মানুষ বেকার হয়ে পড়েছে। মৎস্য খাতেও রপ্তানি আয় কমেছে।

বর্তমান সরকার কৃষিতে ভর্তুকি কমিয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। কৃষি ঋণে কৃষকদের কাছ থেকে ১৯ শতাংশ সুদ নেয়ার অভিযোগও করেন তিনি।

কৃষকের মাঝে ঋণ বিতরণের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক ৫% সুদে ট্রাস্ট ব্যাংককে ২০০ কোটি টাকা দেবে। ট্রাস্ট ব্যাংক ‘সজাগ’ নামের একটি এনজিওর মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে ১৯% সুদে ঋণ বিতরণ করবে। বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যবস্থার কোথাও ১৯% সুদে লেনদেনের ঘটনা ইতিপূর্বে জানা যায়নি।

ভারত থেকে চাল আমদানি বন্ধসহ কৃষক দলের অন্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, সরকারিভাবে দ্রুত কৃষকদের কাছ থেকে ধান-চাল ক্রয়, ভারতের ভুট্টা আমদানি বন্ধ, রবিশস্য পরিবহনে চাঁদাবাজি ও পুলিশি হয়রানি বন্ধ, হাটে ইজারাদারদের দৌরাত্ম্য কমানো, নেরিকা ধানের চাষ বন্ধ এবং ডিজেলের মূল্য হ্রাস।

এসব দাবি আদায়ে আগামী ২৩ ডিসেম্বর সারা দেশে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্মারকলিপি দেবে কৃষক দল। এরপর ২৪-২৮ ডিসেম্বর বিভাগীয় শহরে আলোচনা সভার পর ২৯ ডিসেম্বর ঢাকায় কেন্দ্রীয় সভা হবে। ৩০ ডিসেম্বর কৃষক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের অংশ হিসেবে শেরে বাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল সুন্দরবনে শেলা নদীতে ট্যাংকার দুর্ঘটনটিকে পরিকল্পিত বলে দাবি করেন। তেলবাহী জাহাজডুবির ঘটনার সঙ্গে জড়িত ও মদদদাতাদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি করেন তিনি।

নয়াপল্টনে এ সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুলে সঙ্গে ছিলেন কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু, সহসভাপতি এম এ তাহের, মো. তমিজউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন জসিম প্রমুখ।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj