ট্রেন্ড : এলো নিউ গ্রে‘

রবিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৪

মুক্তার বুকে শুক্তি যেমন তেমনি তোমাকে আমি’ পুরনো দিনের মন খালি করা গানটা শুনতে শুনতে সাদা মুক্তার পাশাপাশি ধুসর বা ছাই রঙা মুক্তার মালাটা হাতে তুলে নেই। হাতের কাছের যত লাইফ স্টাইল ম্যাগাজিন আছে তাতে দেখি এবারের অ্যাডভান্স কালার ধূসর বা গ্রে। বিখ্যাত ভগ ম্যাগাজিনের এডিটর তার সম্পাদকীয়তে এই গ্রে নিয়ে এক বর্ণময় আর্টিকেল লিখেছেন। নিজেকেও একটু এই তথ্যের আলোয় আলোকিত করলাম। গ্রে রং এখন নতুন কালো। কালো আর সাদার যে যথেচ্ছ ব্যবহার ফেব্রিকের আর ফ্যাশন ট্রেন্ডে যুগ যুগ ধরে, তা দখল করতে এলো নিউ গ্রে। একছত্র কালো যা শোক বা রাতের পার্টি কালার, তার বিকল্প হতে পারে এই গ্রে এবং তার বিভিন্ন শেড। ইউরোপ আর আমেরিকার হাই স্ট্রিট আর বুর্জোয়াদের পোশাকের রং বদলে এলো ধূসর কণার ছটা। এ যেনও এক নতুন যুগে প্রবেশ। মেটাল, স্টিল, টাইটানিয়াম এবং ফিউচারিসটিক সাইড অফ সিলভার এর রূপ ধরে এলো গ্রে। অডরে হেরপবার্ন আর সফিয়া লরেনের সিøভ লেস বা শর্ট সিøভের গ্রে আউট ফিট এখন বাজার দখল করে আছে। সেই বই বা ছবিটার কথা মনে আছে? ফিফটি শেডস অফ ডিফারেনট গ্রে। বলা মুশকিল এই কি সেই রং যার অনুপ্রেরণায় বই লেখা বা ছবি বানানো হলো? যাক মাথার গ্রে ম্যাটারকে আর এর মধ্যে টেনে আনলাম না। শীতের সোয়েটার, টিউনিক, ব্লুাউজ, শর্ট স্কার্ট, ছেলেদের শার্ট, স্যুট বা বেøজার কি নেই? আগে গ্রে কালার কে শুধু মাত্র ফর্মাল বা অফিসিয়াল পোশাকের রং হিশাবে গণ্য করা হতো এখন এই রং হট আর সেক্সি রং হিসাবে ইন। কিছুদিন আগে ভারতের নামকরা ডিজাইনার সব্যসাচী হাজির হোল গ্রে রঙের শাড়ির কালেকশান নিয়ে। সব বলিউড সুন্দরী নায়িকা আর মডেলরা রেম্প আলো করলো গ্রে শাড়ি আর লম্বা আনারকলির লেটেস্ট ভারসান নিয়ে। আমার চোখে ভাসতেছে, আমাদের চিরচেনা গ্রে জামদানী আর খোঁপায় বেলি ফুলের মালা জড়িয়ে যে কোন তরুণী বা মধ্য বয়সী নারী হৃদয়ে ঝড় তুলতে পারে। ব্লুাউজ লঙ সিøভ বা সিøভ লেস। গ্রে রংয়ের বেসে কালো, সাদা, সবুজ, পিঙ্ক আর কালোর বিভিন্ন প্রিন্ট। ফেব্রিকের রঙ্গের ভিন্নতা চলতেই পারে। একরঙা গ্রে সিল্ক বা শিফনের শাড়ি বা সালওয়ার কামিজ কম কি? সঙ্গে মন কাঁড়া এক্সসরিজ। স্যান্ডেল বা ব্যাগ ম্যাচিং বা কন্ট্রাস্ট কালারের হতে পারে। চোখে টানা ক্লিওপেট্রার স্টাইলের কাজল বা আইলাইনার। যারা ওয়েস্টার্ণ পোশাকে স্বাচ্ছন্দ্য, তারা গ্রে কালারের বিভিন্ন শেডের লম্বা টিশার্ট, ফিটিং ফতুয়া টিউনিক প্যান্ট এর সঙ্গে পরতে পার। লম্বা টপসের সঙ্গে স্কিনি জিন্সের ব্যবহার ভালো লাগে। শীতের ধূসরের সঙ্গে মিলিয়ে একটা ধূসর চাদর ওড়নার বিকল্প হিসাবে গায়ে জড়ানো যায়। মোটিফ হিসাবে মাথায় রাখা যেতে পারে পার্বত্য ট্রাইবের বিভিন্ন নকশা। শুধু বেছে নিতে হবে রং চঙার পরিবর্তে গ্রে রং। ছেলেরা গলার টাই হিসাবে গ্রে টাই আর গ্রে শার্ট বা বেøজারের সিলেকশন দেখতে পারো। শাইনি গ্রে নিঃসন্দেহে মনকে আর পারসনালিটিতে উজ্জ্বলতা বা শাইন যুক্ত করবে। চুলের রং বা হাইলাইটে এলো গ্রেয়ের ছটা। অনেকেই বার্গান্ডি বা কপারের সাথে গ্রে কালার পরখ করে দেখছে। কিন্তু নিজের মুখের আদল বা পারসোনালিটির সাথে এর মাত্রা জড়িত। বর্ষীয়াণ অনেকেই চুলের কালো ডাই বাদ দিয়ে প্রাকৃতিক গ্রে রঙে খুশি। জীবনের বিভিন্ন মাত্রায় গ্রে রং হয়ে উঠুক পছন্দের তালিকায় শীর্ষে।

:: তাহমিনা রশিদ

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj