বিউটি : ঠোঁটের বাড়তি যতœ

রবিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৪

মেকআপের পাশাপাশি ঠোঁটকে সুন্দর ও সমৃণ রাখতে চাই বাড়তি যতœ। এই বাড়তি যতœ ও ঠোঁটের মেক-আপ নিয়ে কিছু পরামর্শ-

প্রাথমিক যতœ

০ নিয়মিত ঠোঁটের যতœ নেওয়া প্রয়োজন কারণ ঠোঁটে কোনও অয়েল গø্যান্ড থাকে না।

০ প্রতিদিন রাতে শোয়ার আগে আমন্ড ক্রিম বা আমন্ড অয়েল দিয়ে হালকা হাতে ঠোঁটে মাসাজ করুন। আমন্ড অয়েল ঠোঁট নরম ও সমৃণ রাখে।

০ দুধের সর বা ক্রিমও লাগাতে পারেন।

০ ভেজা অবস্থায় টিস্যু বা নরম কাপড় দিয়ে হালকা করে ঠোঁট ঘষুন। ঠোঁটের ডেড সেল ঝরে পড়বে।

ঠোঁট সুস্থ রাখতে

০ প্রচুর পরিমাণে পানি খান

০ শাক-সবজি বেশি পরিমাণে খান

০ লিপস্টিক লাগানোর আগে সব সময় কোনও কোল্ড ক্রিম বা লিপজেল লাগিয়ে নিন।

০ ঠোঁট শুকনো লাগলেই লিপজেল বা চ্যাপস্টিক লাগান।

০ আপনার লিপজেল, চ্যাপস্টিক বা লিপস্টিকে যেন এসপিএফ-১৫, ভিটামিন-ই, অ্যালোভেরা এবং গিøসারিন থাকে সে দিকে খেয়াল রাখা চাই।

০ ২ বছরের বেশি পুরনো হয়ে গেলে সেই লিপস্টিক আর ব্যবহার করবেন না। এতে ঠোঁটের ক্ষতি হতে পারে।

মানানসই করে বাছুন লিপস্টিকের শেড

০ গায়ের রং চাপা হলে পিংক বা পিচের মতো হালকা শেডের লিপস্টিক না লাগানোই ভাল।

০ হলদেটে ভাব থাকলে কমলা শেডের লিপস্টিক লাগাবেন না।

০ ব্রাউন, কপার, ব্রোঞ্জ-কোরাল, ব্রিক রেডের মতো কালার বেছে নিন। যা সবরকম ত্বকের জন্য ভাল।

০ ডার্ক রেড ব্যবহার করুন রাতের অনুষ্ঠানের জন্যে। তবে খুব ডার্ক মেরুন ব্যবহার করবেন না। ডার্ক রেড, বার্গান্ডি, ডিম কোরাল প্লাম, ওয়াইম রেবের মতো কালার ট্রাই করুন।

লিপস্টিক লাগাবেন ঠোঁটের ধরন বুঝে

০ লিপ পেনসিল লিপলাইনার হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন। আবার লিপস্টিকের মতোও ব্যবহার করতে পারেন।

০ ঠোঁট পাতলা দেখাতে চাইলে ম্যাঠ লিপস্টিক ব্যবহার করুন।

০ ফুল লিপস দেখাতে চাইলে ট্রাই করুন শিমার দেওয়া লিপস্টিক। এই ধরনের লিপস্টিককে বলে পার্লি লিপস্টিক। উজ্জ্বল চকচকে ড্রেস পরলে পার্লি লিপস্টিক ব্যবহার করুন।

০ লিপস্টিকের ওপর লিপগøস লাগাতে পারেন তাতে শিমারের কাজ করবে। ন্যাচারাল ইফেক্টের জন্যে লিপগøস আদর্শ।

লিপস্টিক কীভাবে লাগাবেন

০ লিপের শেপ ভাল বোঝাতে লিপ ব্রাশ দিয়ে লিপস্টিক লাগাতে পারেন। সোটার থেকে আউটওয়র্ড স্ট্রোকে লিপব্রাশ লাগান।

০ বাড়তি লিপস্টিক টিস্যুপেপার দিয়ে মুছে নিন। শাইন চাইলে লিপগøস লাগান।

০ লিপস্টিক না লাগিয়ে শুধু লিপগøস লাগাতে চাইলে লিপব্রাশ দিয়েই লিপগøস লাগান।

স্পেশাল টিপস

০ বেশিক্ষণ লিপস্টিক রাখার জন্য লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটে প্রথমে পাউডার লাগিয়ে নিন।

০ লিপস্টিক ব্যবহারের পূর্বে দিনের আলোয় লিপস্টিকের প্রপার কালার চেক করে নিন।

০ রাতের অনুষ্ঠানের জন্য ব্রাইট কালার লিপস্টিক ব্যবহার করুন।

০ ঠোঁটের পুরোটা কাভার আঁকা হয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করতে লিপস্টিক লাগানোর পর আয়নার দিকে তাকিয়ে মুখ খুলে হাসুন।

০ লিপ ও নেলকালার ম্যাচ করে লাগান। খেয়াল রাখবেন লিপ ও নেলকালার যেন ক্ল্যাশ না করে।

০ সব সময় এক রঙের লিপস্টিক লাগাবেন না। ড্রেসের সঙ্গে ম্যাচ করে লিপ কালারও লাগাতে পারেন।

০ লিপস্টিক ও ব্লুাশার এক শেডের ব্যবহার করতে পারলে ভাল।

০ ময়শ্চারাইজড লিপস্টিক বা লিপজেল ব্যবহার করুন। ঠোঁট নরম ও মসৃণ থাকবে।

ঘরোয়া টিপস

০ ন্যাচারাল গোলাপী ঠোঁট পেতে রাতে শোয়ার আগে ঠোঁটে বিটের রস লাগিয়ে শোবেন।

০ গোলাপের পাঁপড়ি পেস্ট করে ঠোঁটে লাগলে ঠোঁট নরম ও গোলাপী হবে।

০ ঠোঁটে ভাল করে লিপজেল বা পেট্রোলিয়াম জেলী লাগিয়ে পুরোনো বেবি টুথ ব্রাশ দিয়ে আস্তে আস্তে ঘষুন (জোরে ঘষবেন না) এতে ডেড স্কিন উঠে যাবে। তারপরেই আবার ক্রিম বা জেলী লাগিয়ে নেবেন।

০ নরম ঠোঁট পেতে এক সপ্তাহ রাতে শোয়ার সময় নারকেল তেল, চন্দনবাটা ও গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়ে লাগিয়ে রাখবেন। পরের দিন সকালে ধুয়ে ফেলবেন।

লিপস্টিক যতেœ রাখতে

০ গরমের সময়ে ফ্রিজে লিপস্টিক স্টোর করুন। প্লাস্টিক ব্যাগে ভরে ফ্রিজে রাখুন।

০ অতিরিক্ত গরম বা হিউমিডিটির সমস্যা না থাকলে ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারে রাখতে পারেন।

০ লিপ পেনসিল নিয়মিত শার্পনার দিয়ে কেটে রাখুন। পেনসিলের মুখ ক্যাপ দিয়ে আটকে রাখুন। ধুলো লাগলে লিপ পেনসিল নষ্ট হয়ে যায়।

০ লিপ ব্রাশ মাসে ২-৩ বার পরিষ্কার করুন। ঈষদুষ্ণ পানিতে, সাবান ও অ্যান্টিসেপ্টিক লোশন মিশিয়ে সেই পানিতে ব্রাশ ধুয়ে ফেলুন। শুকিয়ে গেলে বক্সে তুলে ফেলুন।

০ পরিষ্কার কাপড় বা টিস্যু পেপার দিয়ে মুছুন।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj