নাইকির অজানা ১১

রবিবার, ৯ নভেম্বর ২০১৪

খেলাধুলার উপযোগী পরিধেয় পণ্য তৈরির জন্য নাইকি বিশ্বের এক নম্বর প্রতিষ্ঠান। আর এ প্রতিষ্ঠানটির বহু তথ্য এখনও অনেকেরই অজানা। এ লেখায় থাকছে প্রতিষ্ঠানটির বিষয়ে ১১ তথ্য।

১. ব্লু রিবন স্পোর্টস নামে ১৯৬৪ সালে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে এটি নাইকি নাম নেয়।

২. প্রতিষ্ঠাকালে ব্যাংকে মাত্র ১ হাজার ২শ’ ডলার ছিল প্রতিষ্ঠানটির। এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন বিল বৌয়ারম্যান ও ফিল নাইট।

৩. ফিল নাইট প্রতিষ্ঠানটির নাম ‘ডাইমেনশন ৬’ রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু গ্রিক বিজয়ের দেবীর নাম অনুসারে প্রতিষ্ঠানটির নাম দেয়া হয়।

৪. নাইকির প্রথম জুতা তৈরি হয় ওয়াফল আয়রনের ভেতর।

৫. নাইকির ঐতিহ্যবাহী মনোগ্রামটি তৈরি করেছেন পোর্টল্যান্ড স্টেট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ক্যারোলিন ডেভিডসন। এর বিনিময়ে তিনি ৩৫ ডলার নিয়েছিলেন।

৬. প্রতিষ্ঠানটির স্লোগান ‘জাস্ট ডু ইট’-এর অনুপ্রেরণা নেয়া হয়েছিল সিরিয়াল কিলার গ্যারি গিলমোরের কাছ থেকে। ১৯৭৭ সালে তাকে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদন্ড দেয়ার আগে তিনি বলেন, ‘লেটস ডু ইট।’

৭. ‘জাস্ট ডু ইট’ স্লোগানের প্রচারণা শুরু হয় ১৯৮৮ সালে ৮০ বছর বয়সি দৌড়বিদ ওয়াল্ট স্ট্যাকের মাধ্যমে।

৮. বাস্কেটবল খেলোয়াড় মাইকেল জর্ডান বার্ষিক ৬০ মিলিয়ন ডলার পান নাইকি থেকে, যা তাকে নাইকির সর্বাধিক অর্থপ্রাপ্ত খেলোয়াড়ের মর্যাদা দিয়েছে।

৯. রোমানিয়ান টেনিস খেলোয়াড় ইলি নাস্টাস ১৯৭২ সালে নাইকির সঙ্গে প্রথম অ্যাথলেট হিসেবে চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

১০. ১৯৮৭ সালে নাইকির বিজ্ঞাপনে প্রথম বিটলসের গান ব্যবহার করা হয়, যা টিভি বিজ্ঞাপনে ব্যবহৃত প্রথম বিটলসের গান।

১১. বিশ্বের সবচেয়ে বড় নাইকি স্টোর লন্ডনের অক্সফোর্ড স্ট্রিটে অবস্থিত।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj