চট্টগ্রামে জামাতের হরতালে নগরজীবন ছিল স্বাভাবিক

সোমবার, ৩ নভেম্বর ২০১৪

চট্টগ্রাম অফিস : জামাতের ডাকা দেশব্যাপী দ্বিতীয় দফা হরতালে গতকাল চট্টগ্রাম নগরীর পরিস্থিতি ছিল অনেকটা স্বাভাবিক। নগর জীবনে হরতালের কোনো প্রকারের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়নি। সকাল থেকে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটেনি। কেউ গ্রেপ্তার বা আটক হয়নি বলে সিএমপি সূত্রে জানা গেছে। জামাতের সাবেক আমির মানবতাবিরোধী অপরাধে মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির দণ্ডাদেশ দেয়ার প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার, গতকাল রোববার ও আজ সোমবার সর্বমোট ৭২ ঘণ্টা হরতালের ডাক দেয় জামাতে ইসলামী। এদিকে গতকাল হরতাল চলাকালে চট্টগ্রাম নগরীতে ছোট-বড় যানবাহন চলাচল করলেও যানবাহনের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে কম ছিল। ফলে অফিসগামী এবং কর্মস্থলে ছুটে যেতে নগরবাসীকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তবে হরতালে সরকারি-বেসরকারি অফিস, ব্যাংক বীমা অধিকাংশ খোলা থাকলেও উপস্থিতি কম বলে জানা গেছে। এছাড়া চট্টগ্রাম বন্দরের পণ্য উঠানো-নামানোর কাজ চললেও হরতালের কারণে কোনো পণ্য বা কন্টেইনার বন্দরের বাইরে যেতে পারেনি বলে বন্দর সূত্র নিশ্চিত করেছে।

গতকাল সকাল থেকে হরতালের নাশকতা ঠেকাতে বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ র‌্যাবের টহল দিতে দেখা গেছে। হরতাল আহ্বানকারী জামাত-শিবিরের কর্মীরা নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ঝটিকা মিছিল করলেও কোনো সড়কে পিকেটিং করতে দেখা যায়নি। এছাড়া হরতালে নাশকতা ঠেকাতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। নগরীর বেশ কিছু পয়েন্টকে ঝুঁকিপূর্ণ মনে করে নগরীতে নিয়মিত পুলিশসহ অতিরিক্ত তিন হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পাশাপাশি নগরীতে ছয় প্লাটুন বিজিবি সদস্য টহল দিতেও দেখা গেছে।

চট্টগ্রাম রেলস্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ জানান, চট্টগ্রাম থেকে রেল চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সকাল থেকে নির্ধারিত সব কয়টি ট্রেন গন্তব্যের উদ্দেশে চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে গেছে। কোথাও কোনো সমস্যা হয়নি। এদিকে হরতালে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস চলাচলের ঘোষণা দিয়েছিল পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা। কিন্তু গতকাল সকাল থেকে মাত্র কয়েকটি বাস ছেড়ে যায়। এছাড়া নগরীর বহদ্দারহাট বাস স্টেশনে সব ধরনের দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ বলে জানান পরিবহন শ্রমিকরা। তাদের মতে নগরীতে শহর এলাকার বাস চলাচল করলেও দূরপাল্লার কোনো বাস সকাল থেকে ছেড়ে যায়নি। সকাল থেকে সরকারি-বেসরকারি অফিস ব্যাংক বীমা খোলা থাকলেও যথারীতি চট্টগ্রাম আদালতের সব বিচারকাজ বন্ধ থাকে। হরতালের কারণে কোনো আদালত বসেনি বলে জানান আইনজীবীরা।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj