বিদ্যুৎ বিভ্রাটে চরম দুর্ভোগ : বরিশালে কল-কারখানায় উৎপাদন বন্ধ হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত

রবিবার, ২ নভেম্বর ২০১৪

এম মিরাজ হোসাইন, বরিশাল : দিনভর বিদ্যুৎ না থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন বরিশাল নগরীসহ জেলার কয়েক লাখ মানুষ। আর ব্যাহত হয়েছে কল-কারখানার উৎপাদনসহ হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা। ফলে দিনভর চরম দুর্ভেগে পড়েছে বরিশালের মানুষ। গতকাল বেলা ১১টার দিকে আকস্মিকভাবে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে বরিশালসহ সারা দেশে। ফলে বন্ধ হয়ে যায় বরিশালের সবকটি শিল্প ও কল-কারখানা। সারা দিনে আর উৎপাদনে ফিরতে পারেনি এখানকার অপসোনিন কেমিক্যালস রিমিটেডের ৩টি, খানসন্স লিমিটেডের অ্যাংকর সিমেন্ট, সোনারগাঁও টেক্সটাইল মিলসসহ ৪টি, মেডিমেট ফার্মাসিউটিক্যালস, রেফকো ফার্মাসিউটিক্যালস, কেমিস্ট ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, ইন্দ্রো বাংলা, ইলেকট্রেনিক্স সামগ্রী তৈরির এমইপি কোম্পানির ফ্যাক্টরি, নেপচুন সু হাউজ, বেঙ্গল বিস্কুট, প্রায় ১৫টি বরফ কলসহ সহস্রাধিক শিল্প প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠান গতকাল শনিবার বন্ধ থাকায় একদিকে লোকসান গুনতে হবে মালিকদের, তেমনি অলস সময় কাটিয়েছেন শ্রমিকরা। সব মিলিয়ে বরিশালের জীবনযাত্রা চরমভাবে ব্যাহত হয়ে পড়ে।

অপরদিকে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সদর (জেনারেল) হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়লে চরম দুর্ভোগে পরে রোগীরা। হাসপাতাল দুটির বেশ কিছু ওয়ার্ডে আলোর স্বল্পতা থাকায় অন্ধকারের মধ্যে বেশ দুর্ভোগ পোহতে হচ্ছে তাদের। বিদ্যুৎ না থাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় (জেনারেটর) শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চলছে রোগীদের জরুরি সেবা। তবে ঝুঁকির সম্ভাবনা থাকায় জরুরি অপারেশনগুলো আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। শুধু সাধারণ অপারেশন কার্যক্রম সচল রয়েছে। পাশাপাশি মেডিকেল হাসপাতালের ভারী চিকিৎসা যন্ত্রপাতি, সিটিস্ক্যান, এক্সরে, এমআরআইসহ গুরুত্বপূর্ণ সব মেশিন সার্ভিস বন্ধ রয়েছে। এদিকে লিফট বন্ধ থাকায় রোগীদের কোলে করে ওয়ার্ডে নেয়া হচ্ছে। এতে দুর্বল রোগীদের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. রিয়াজুল ইসলাম জানান, প্রাথমিক চিকিৎসা ও জরুরি সেবার কয়েকটি স্থানে বিকল্প ব্যবস্থায় বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বরিশাল সদর হাসপাতালে বিকল্প বিদ্যুতের ব্যবস্থা না থাকায় দুপুর ১২টা থেকে এখানে সব ধরনের সেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলে জানান হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. দেলোয়ার হোসেন। তবে উভয় হাসপাতালে চিকিৎসক ও কর্মচারীরা বিদ্যুৎহীন অবস্থাতেও রোগীদের চিকিৎসাসেবা অব্যাহত রেখেছেন।

বরিশাল বিদ্যুৎ বিভাগের একটি সূত্র জানায়, বরিশালে কোনো সমস্যা নেই তবে জাতীয় গ্রিডের সমস্যার কারণে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সমস্যা সমাধানে চেষ্টা অব্যাহত আছে। তার মতে, রাত ৯টার দিকে অবস্থার উন্নতি হতে পারে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বরিশালের কিছু এলাকায় স্বল্প পরিসরে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা হয়েছে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj