টেকনাফ কলেজের শিক্ষক শামসুল আলমকে পিটিয়ে হত্যা

রবিবার, ২ নভেম্বর ২০১৪

টেকনাফ (কক্সবাজার) সংবাদদাতা : টেকনাফ ডিগ্রি কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামসুল আলমকে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার বিকাল ৩টার দিকে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের হামলায় কলেজ শিক্ষক আলম আহত হন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে ঈদগাহ এলাকায় তিনি মারা যান। প্রফেসর শামসূল আলম হোয়াইক্যং ইউনিয়নের পশ্চিম মহেশখালীয়া পাড়া এলাকার মৃত ফজল করিমের ছেলে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, দীর্ঘদিনের জমিসংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে স্থানীয় সালিসে উভয়পক্ষের মধ্যে তর্কাতর্কির একপর্যায়ে ওই প্রফেসরের ওপর স্থানীয় গোলাম সুলতানের ছেলে আব্দুল মালেক, শব্বির আহমদের ছেলে জালাল ও মুহম্মদ ইলিয়াছের ছেলে মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে ১০-১৫ জনের সশস্ত্র গ্রুপ হামলা চালায়। এ সময় তিনি গুরুতর আহত হলে তাকে টেকনাফ হাসপাতাল হয়ে কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জেলা হাসপাতালে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চমেক হাসপাতালে রেফারড করেন। পরে চট্টগগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাওয়ার পথে রাত ৮টার দিকে ঈদগাহ এলাকায় পৌঁছলে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন বলে জানান নিহতের আত্মীয়রা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ হাসান বলেন, আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম না, তবে মারামারির একপর্যায়ে প্রফেসরকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান বলে শুনেছি। টেকনাফ মডেল থানার ওসি মোক্তার হোসেন শিক্ষকের নিহত হওয়ার বিষয় নিশ্চিত করে জানান, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেউ মামলা করতে থানায় যায়নি।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj